বিষয়বস্তুতে চলুন

খানিম লতিফ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

খানীম রহিম লতিফ (সোরানি কুর্দি: خانم لەتیف, রোমান্স: জানিম Letîf; আরবি: خانم لطيف, রোমান্স: জানিম Latīf),(জন্ম ১ জানুয়ারি, ১৯৬৯ ইরাকের সুলায়মানিয়াহ) ইরাকি কুর্দিস্তানের একজন উদারপন্থী নারী অধিকার কর্মী যিনি সমতা রক্ষা করতে এবং নারীদের লিঙ্গ ভিত্তিক সহিংসতা থেকে রক্ষা করতে চেয়েছিলেন।

প্রাথমিক জীবন এবং শিক্ষা

[সম্পাদনা]

লতিফ ২০১৪-২০১৫ সালে আইন ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতক এবং ২০০৬ সালে যুক্তরাজ্যের চার্চ ইউনিভার্সিটি অফ ক্যান্টারবারি থেকে সামাজিক কর্ম অনুশীলনে ডিপ্লোমা অর্জন করেছেন।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

লতিফ ২০ সালে কুর্দিস্তানে নারী অধিকার আন্দোলনে যোগ দেন। ২০০২ সালে, তিনি প্রথম নারী সুরক্ষা আশ্রয় কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেন যা লিঙ্গ ভিত্তিক সহিংসতা এবং সম্মান হত্যার শিকারদের আশ্রয় প্রদান করে। তিনি সুলায়মানিয়াহ শহরে অবস্থিত ইরাকে নারীদের প্রতি সহিংসতার উপর মনোনিবেশ কারী প্রথম স্বাধীন এনজিও সুদার পরিচালক হিসেবে নিযুক্ত হন। তিনি কুর্দিভাষায় বেশ কয়েকটি পুস্তিকা এবং বই প্রকাশ করেছেন যার মধ্যে রয়েছে নারীদের প্রতি সহিংসতার পরিণতি। লতিফ কুর্দিদের বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক কনভেনশন এবং সিইডিএডব্লিউ-এর মতো মহিলাদের অধিকার সম্পর্কিত নথিতেও অনুবাদ করেছেন।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরে সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী কন্ডোলিজা রাইসের সঙ্গে খানিম লতিফের সাক্ষাৎ, ২০০।

লতিফ ২০১০ সাল থেকে ফ্রন্টলাইন ডিফেন্ডারস ইন্টারন্যাশনালের সদস্য, ২০১১ সাল থেকে কুর্দিজাতীয় কংগ্রেসের (কেএনকে) সদস্য এবং ২০০৬ সাল থেকে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের সদস্য। তিনি ইরাক ও কুর্দিস্তানে ইউএনসিআর১৩২৫ সম্পর্কিত কার্যক্রমে ব্যাপকভাবে কাজ করেছেন এবং ইউএনসিআর১৩২৫ ইরাক ন্যাশনাল অ্যাকশন প্ল্যান (আইএনএপি) জোটের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। লতিফ মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকার জন্য মহিলাদের জন্য গ্লোবাল ফান্ডের উপদেষ্টা।[১][২] লতিফ অনার ভিত্তিক সহিংসতা সচেতনতা নেটওয়ার্কেরও একজন সদস্য।[৩]

লতিফ ২০০৫ সালের নির্বাচনের জন্য ইরাকি জাতীয় পরিষদ (সংসদ) নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হন।[৪] তিনি বাগদাদ এবং ইরাকের অন্যান্য শহরগুলিতে দেশব্যাপী অনেক সম্মেলন, কর্মশালা এবং মহিলাদের উপর সিম্পোজিয়ামে অংশ নিয়েছিলেন। তিনি ইরাক জাতীয় পরিষদে ভবিষ্যতের আইন প্রণেতা কর্তৃপক্ষের অংশগ্রহণের জন্য ২৫% কোটা সমর্থন করার জন্য প্রচারণায় অংশ নেন।

লতিফ ২০০৮ সালে মার্কিন স্টেট উইমেন অফ কারেজ পুরস্কারের জন্য মনোনীত এবং ২০১৬ সালের ভাইটাল ভয়েসেস গ্লোবাল লিডারশিপ পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন।[৫]

লতিফ কুর্দিস্তান ও ইরাকে নারীদের সমস্যা নিয়ে আন্তর্জাতিক ও স্থানীয় সংস্থা এবং গণমাধ্যমের অনেক প্রতিবেদনে অবদান রেখেছে এবং ইরাকে নারীদের অধিকার সংক্রান্ত তথ্যের উৎস হিসেবে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের সাক্ষাৎকার নিয়েছে। [৬][৭][৮][৯][১০][১১][১২][১৩][১৪][১৫][১৬][১৭][১৮][১৯][২০]

সংঘর্ষে যৌন সহিংসতার বিষয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের বিশেষ প্রতিনিধি জয়নাব হাওয়া বাঙ্গুরার সঙ্গে খানিম লতিফের সাক্ষাৎ, মার্চ ২০১৬

লতিফ নিয়মিতভাবে আন্তর্জাতিক, আঞ্চলিক, দেশব্যাপী এবং স্থানীয় ইভেন্ট এবং ইরাকে মহিলাদের অধিকার এবং এসজিবিভি বিষয়ক সম্মেলনে অংশগ্রহণ করে।[২১]

কেনেডি আর্টস সেন্টারে ভাইটাল ভয়েসেস গ্লোবাল লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান-২০১৬-এ খানিম লতিফ

২০১৪ সালে, সন্ত্রাসী দল আইএসআইএস এই অঞ্চলের ইয়াজিদি জনগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সহিংস প্রচারণা শুরু করার পর, লতিফ পরিত্যক্ত ভবন এবং অস্থায়ী আশ্রয়স্থলে বেঁচে যাওয়া মহিলাদের সন্ধানে অবদান রাখেন। তিনি আবিষ্কার করেন যে আইএসআইএস হামলার সময় কমপক্ষে ২,০০০ মহিলাকে অপহরণ করেছিল। অপহৃত কয়েকজন মহিলা পালাতে শুরু করার সাথে সাথে লতিফ তাদের খুঁজে বের করে এবং সুদার যত্নের প্রস্তাব দেয়। তিনি জানতে পারেন যে নারীদের উপর অত্যাচার করা হচ্ছে, বিক্রি করা হচ্ছে, যৌন নির্যাতন করা হচ্ছে এবং শ্রমে বাধ্য করা হচ্ছে এবং স্থানীয় এবং বিশ্বব্যাপী এই নৃশংসতাপ্রচার করা হচ্ছে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

ব্যক্তিগত জীবন

[সম্পাদনা]

লতিফ ইরাকি কুর্দিস্তানের সাংবাদিক এবং শার্প্রেস পাবলিকেশনের পরিচালক কামাল রউফকে বিয়ে করেছেন এবং তার একটি মেয়ে রয়েছে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

পুরস্কার

[সম্পাদনা]

ইরাকে নারী অধিকারে তার কাজ এবং অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ লতিফ মানবাধিকারের জন্য ভাইটাল ভয়েসেস ১৫তম গ্লোবাল লিডারশিপ পুরস্কার লাভ করেন। ২০১৬ সালের ৯ মার্চ ওয়াশিংটন ডিসির কেনেডি সেন্টারে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের সময় তাকে সম্মানিত করা হয়। এই পুরস্কারলতিফকে আরও তিনজন সক্রিয় কর্মীর সাথে সম্মানিত করে: হাফসাত আবিওলা-কস্টেলো, আকাঙ্ক্ষা হাজারি এবং ইয়োনি সানচেজ।[২২][২৩][২৪]

তথ্যসূত্র

[সম্পাদনা]
  1. "Kongra Kurdistan"। ২২ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  2. "Inspirational Women Leaders"Global Fund for Women (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৬ 
  3. "EXPERTS"hbv-awareness.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৯ 
  4. Raphaeli, Nimrod। "The New Iraqi Government—Central Themes and Key Figures"। The Middle East Media Research Institute। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মার্চ ২০১৭ 
  5. "Global Leadership Awards | Vital Voices"www.vitalvoices.org। মার্চ ২৬, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-২১ 
  6. "Khanim Rahim Latif: We have to be United"VOA। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৬ 
  7. Aid, Christian। "Women's rights – at election time and beyond - Christian Aid"www.christianaid.org.uk। ২০১৭-০৭-২৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৬ 
  8. Chulov, Martin (২০১০-০৭-০৫)। "The razor and the damage done: female genital mutilation in Kurdish Iraq"The Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0261-3077। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৬ 
  9. "One Woman Is Risking Her Life to Save Thousands in Iraqi Kurdistan"TakePart। ২০১৭-০৫-১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৬ 
  10. "Time for a Rethink"Qantara.de - Dialogue with the Islamic World। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৬ 
  11. "Honour Based Violence Report IKR and Kurdish Diaspora" (পিডিএফ)। মার্চ ৫, ২০১৭ তারিখে মূল (পিডিএফ) থেকে আর্কাইভ করা। 
  12. "IRAQ COUNTRY OF ORIGIN IN FORMATION (COI) REPORT" (পিডিএফ) 
  13. "law | Equal Power - Lasting Peace"www.equalpowerlastingpeace.org। ২০১৭-০৫-১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৬ 
  14. "New weapon's law in Iraq deadly threat to women - Kvinna till Kvinna – works for peace and gender equality"Kvinna till Kvinna – works for peace and gender equality (ইংরেজি ভাষায়)। মে ১০, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৬ 
  15. "Meet the Bold, Brave Woman Fighting for Women's Rights in Iraqi Kurdistan"AnonHQ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৬ 
  16. "The feminists on the frontline"Stylist Magazine। ২০১৭-০৬-০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৬ 
  17. Twitter, Michele Kelemen। "Sister's Forced Marriage Started Iraqi Woman On Activist Path"NPR.org। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৬ 
  18. (design), echonet communication gmbh (http://www.echonet.at), gregor borbely (css / HTML / templates), norbert adenberger (php / database), anja merlicek। "Frauen-Ohne-Grenzen.org | Women-Without-Borders - SAVE - Activities"www.women-without-borders.org (জার্মান ভাষায়)। মে ১০, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-১৬ 
  19. Lattimer, Mark (২০০৭-১২-১৩)। "Freedom lost"The Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0261-3077। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-২১ 
  20. "How picture phones have fuelled frenzy of honour killing in Iraq"The Independent (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-২১ 
  21. "Building a New Iraq: Women's Role in Reconstruction" (পিডিএফ)। মার্চ ২১, ২০১৬ তারিখে মূল (পিডিএফ) থেকে আর্কাইভ করা। 
  22. "Global Leadership Awards"। মার্চ ২৬, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  23. "Women, Always Postponed"The Huffington Post। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৪-০২ 
  24. "Vital Voices - 15th Annual Global Leadership Awards"Exposure। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৪-০২