ওয়ার্দুন ইউসুফ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ওয়ার্দুন ইউসুফ
Wardun25.jpg
ট্রেইনিংরত অবস্থায় ওয়ার্দুন ইউসুফ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম মোহাম্মদ ওয়ার্দুন বিন ইউসুফ
জন্ম (1981-09-14) ১৪ সেপ্টেম্বর ১৯৮১ (বয়স ৩৮)
জন্ম স্থান ব্রুনাই
উচ্চতা ১.৭৫ মিটার (৫ ফুট ৯ ইঞ্চি)
মাঠে অবস্থান গোলরক্ষক
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব
ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাব
জার্সি নম্বর ২৫
যুব পর্যায়
উইজায়া ফুটবল ক্লাব
জ্যেষ্ঠ পর্যায়*
সাল দল ম্যাচ (গোল)
ব্রুনাই
২০০৪ ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাব
২০০৫–২০০৬ উইজায়া ফুটবল ক্লাব
২০০৬– ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাব
২০১০–২০১১মিজরা ফুটবল ক্লাব (ধার)
জাতীয় দল
২০০১ ব্রুনাই অনূর্ধ্ব ২৩ (০)
২০০১– ব্রুনাই ২৩ (০)
*শুধুমাত্র ঘরোয়া লীগে ক্লাবের হয়ে উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা গণনা করা হয়েছে এবং সকল তথ্য ৭ অক্টোবর ২০১৬ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।
‡ জাতীয় দলের হয়ে উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

মোহাম্মদ ওয়ার্দুন বিন ইউসুফ (জন্ম: ১৪ সেপ্টেম্বর ১৯৮১) হচ্ছেন ব্রুনাই এর একজন ফুটবল খেলোয়াড় যিনি ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাব এবং ব্রুনাই জাতীয় ফুটবল দল এর গোলরক্ষক হিসেবে খেলে থাকেন।[১]

ক্লাব ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

২০০৬ সাল থেকে ওয়ার্দুন ইউসুফ ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাব এ খেলছেন, ২০০৪ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য উইজায়া ফুটবল ক্লাব এ খেলে পুনরায় আবার ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাব এ ফিরে আসেন।[২] পূর্বে, তিনি ব্রুনাই (মালয়েশিয়া প্রিমিয়ার লীগ দল) দলের একজন সদস্য ছিলেন যেখানে তিনি মালয়েশিয়া প্রিমিয়ার লীগ এ অংশগ্রহণ করেছিলেন।[৩]

২০১০ সালে ব্রুনাই এর ওপর দুই বছরের জন্য ফিফা এর নিষেধাজ্ঞা বহাল রেখে ওয়ার্দুন ইউসুফকে মিজরা ফুটবল ক্লাব এ ধারে প্রেরণ করা হয়।[৪] তিনি সেই সময় দলের অধিনায়ক হন এবং এমনকি ২০১১ ব্রুনাই লীগের কাপের সেমিফাইনালে পেনাল্টি পায়,[৫] অতঃপর তারা ফাইনালে জয়লাভ করে।[৬]

২০১২ সালে তার পুরানো ক্লাবের সাথে লিগে ফিরে আসার পর, ওয়ার্দুন ইউসুফ একসময় অবিস্মিত হয়ে ওঠে। তিনি ২০১৫ সালের ঋতুতে একটি খেলা মিস করেননি যখন ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাব শেষ দুই বার কাপ একটুর জন্য হেরে গিয়ে অবশেষে শিরোপা জিতেছিল।[৭]

২ এপ্রিল, ২০১৭ তারিখে, ওয়ার্দুন ইউসুফ বেঞ্চে বসে যান এবং তিন বছরের মধ্যে তার প্রথম লীগ খেলাটি মিস করেন, দীর্ঘতম প্রতিদ্বন্দ্বী আলিজ্যান্ড স্যাটম লীগে খেলা সবচেয়ে বয়স্ক খেলোয়াড় হতে সাহায্য করেন।[৮] একই সাথে তার বেঞ্চে বসে যাওয়ার কারণ ছিল তার গোড়ালি আঘাত।[৯]

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

২০০৪ সালের ৭ এপ্রিলে, ২০০২ ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব (এএফসি)ইয়েমেন জাতীয় ফুটবল দল এর বিপক্ষে ৫–০ গোলে হেরে যাওয়া ম্যাচে থেকে ওয়ার্দুন ইউসুফ প্রথমবারের মতো ব্রুনাই জাতীয় ফুটবল দল এর হয়ে খেলা শুরু করেন। ওয়ার্দুন ইউসুফ এর গোল মালদ্বীপ এ অনুষ্ঠিত ২০০৪ এএফসি এশিয়ান কাপ এর যোগ্যতা ম্যাচগুলির লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করেছিল।

কোন আন্তর্জাতিক উপস্থিতি ছাড়াই একটি বিশাল সময় পরে, ওয়ার্দুন ইউসুফ ২০০৮ সালে সুজুকি কাপের জন্য বাছাইপর্বে খেলেন, সেসময় তিনি সম্পূর্ণ ব্রুনাই দল এবং তার ক্লাব, ডিপিএমএম ফুটবল ক্লাবকে প্রতিনিধিত্ব করছিলেন।[১০]

২০১১ সালের ১২ মার্চ, কৌসিংউংয়ের চীনা তাইপেইতে ব্রুনাই প্রথম বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে ম্যাচ জেতার জন্য অন্যতম ভূমিকা রেখেছিলেন ওয়ার্দুন ইউসুফ।[১১] এর প্রায় এক বছর পর, তিনি কম্বোডিয়া এ অনুষ্ঠিত ২০১০ সালের এএফএফ সুজুকি কাপের বাছাইপর্বের জন্য লাইনআপেও ছিলেন। ওয়ার্দুন ইউসুফ তিনটি ম্যাচের মধ্যে আট গোল করেন, যার ফলে ব্রুনাই কোয়ালিফাইং গ্রুপে তৃতীয় স্থান অর্জন করে।[১২]

ওয়ার্দুন ইউসুফ পরবর্তী আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টটি ছিল এক মাস পর ২০১৬ সালে, যেটি মালয়েশিয়া এর কুচিং এ অনুষ্ঠিত হয।[১৩] ১২ নভেম্বর মাকাও এর বিরুদ্ধে সেমি-ফাইনালে, ৫৫ মিনিতে নিকি তরাও এর একটি নিশ্চিত গোল ঠেকিয়ে দেন।[১৪] উক্ত ম্যাচ ব্রুনাই ৪–৩ গোলের ব্যবধানে জয়লাভ করে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Wardun Yussof"। worldfootball.net। সংগ্রহের তারিখ ১৩ অক্টোবর ২০১২ 
  2. "Brunei 2004"। Rec.Sport.Soccer Statistics Foundation। ২৬ মে ২০০৫। সংগ্রহের তারিখ ১১ মে ২০১৫ 
  3. "M-League - Brunei get three valuable points"। Borneo Bulletin। ১০ জুলাই ২০০১। সংগ্রহের তারিখ ১১ মে ২০১৫ 
  4. "BPL under watchful eyes of DPMM FC"। The Brunei Times। ৩ মার্চ ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ১১ মে ২০১৫ 
  5. "6-star Majra in Cup final"। The Brunei Times। ১ জুন ২০১১। ১৮ মে ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ মে ২০১৫ 
  6. "Majra take League Cup"। The Brunei Times। ৬ জুন ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ১১ মে ২০১৫ 
  7. "DPMM FC bask in glory"। The Brunei Times। ২২ নভেম্বর ২০১৫। ২৩ নভেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ নভেম্বর ২০১৫ 
  8. "Wasps Secure First Victory Of The Season Against Cheetahs"। S.League। ২ এপ্রিল ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৭ এপ্রিল ২০১৭ 
  9. "DPMM FC face Balestier Khalsa FC tonight"। BruSports News। ৬ এপ্রিল ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৭ এপ্রিল ২০১৭ 
  10. "DPMM FC head to Cambodia"। The Brunei Times। ১৫ অক্টোবর ২০০৮। ২ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ মে ২০১৫ 
  11. "Brunei make history"। The Brunei Times। ১৩ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মার্চ ২০১৫ 
  12. "Brunei put up strong fight"। The Brunei Times। ২২ অক্টোবর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৪ অক্টোবর ২০১৬ 
  13. "AFC Solidarity Cup: Brunei Darussalam 4-0 Timor-Leste"Asian Football Confederation। ২ নভেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১৪ নভেম্বর ২০১৬ 
  14. "Macau to face Nepal in AFC Solidarity Cup final"। Asian Football Confederation। ১২ নভেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১৪ নভেম্বর ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]