এন্ড্রু লি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মাননীয়

এন্ড্রু লি (李國能)

১ম আদালতের আপিল বিভাগের বিচারপতি
কাজের মেয়াদ
১ জুলাই ১৯৯৭ – ৩১ আগস্ট ২০১০
নিয়োগদাতাটুং চি হুয়া
উত্তরসূরীজিওফ্রে মা
উচ্চ আদালতের সহকারী বিচারপতি
কাজের মেয়াদ
১৯৯১ – ১৯৯৭
জেলা আদালতের সহকারী বিচারপতি
কাজের মেয়াদ
১৯৮২ – ১৯৮৫
হংকং কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য
কাজের মেয়াদ
অক্টোবর ১৯৯২ – ১৯৯৬
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মডিসেম্বর ১৯৪৮ (বয়স ৭২)
ব্রিটিশ হংকং
জাতীয়তাচীনা
প্রাক্তন শিক্ষার্থীফিটজউইলিয়াম কলেজ, ক্যামব্রিজ (এমএ, এলএলএম)

মাননীয় এন্ড্রু লি, জেবিএম, সিবিই, জেপি (চীনা: 李國能; জন্ম: ডিসেম্বর ১৯৪৮) একজন হংকংয়ের অবসরপ্রাপ্ত বিচারক এবং একজন সাবেক প্রধান বিচারপতি। তিনি ছিলেন ১৯৯৭ সালের ১লা জুলাই প্রতিষ্ঠিত হওয়া হংকং উচ্চ আদালতের প্রথম অধ্যক্ষ। ২০১০ সালের ১লা সেপ্টেম্বরে তার উত্তরসূরী হিসেবে জিওফ্রে মা যোগ দেন।

প্রাথমিক জীবন ও শিক্ষা[সম্পাদনা]

হংকংয়ে জন্মগ্রহণ করে, এন্ড্রু লি সেন্ট পলস্ কো-এডুকেশনাল কলেজ থেকে প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করেন ও পরবর্তীতে ইংল্যান্ডের রেপ্টন স্কুল, ডার্বিশায়ার-এ ভর্তি হন। তিনি কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ ও এলএলএম লাভ করেন।

আইনি পেশা[সম্পাদনা]

লি ১৯৭০ সালে মিডল টেম্পলে যোগ দেন এবং ১৯৭৩ সালে হংকং বারে যোগ দেন। ওদ্রে ইউ তার প্রথম ছাত্র ছিলেন, যিনি ১৯৭৮ সাল পর্যন্ত তার অধীনস্থ ছিলেন। তার ভাই সিনিয়র আইনি উপদেষ্টা বেঞ্জামিন ইউ ও তার একজন ছাত্র ছিলেন। বিচার মন্ত্রণালয়ের সাবেক সভাপতি উং ইয়াং লুং ছিলেন লির শেষ ছাত্র। ১৯৮৮ সালে তাকে রাণীর আইনি উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল।

১৯৯৯ সালে, তিনি "এনজি কা লিঙ এবং অন্য অভিবাসন"[১] সম্পর্কিত প্রধান রায় দেন যেটি সে সময়কার বাসস্থান সম্পর্কিত একটি প্রধান বিতর্কিত রায় ছিল।

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১০ সালে, হংকং ইউনিভার্সিটি জনগণ মতামত আয়োজনে লি সর্বোচ্চ স্কোর (৬৮.১) সংগ্রহ করেন।

প্রধান বিচারপতির পদ থেকে অবসর নেওয়ার পর লি শিক্ষার কাজে নিয়োজিত হয়েছিলেন। তিনি হংকং বিশ্ববিদ্যালয়, হংকং চীনা বিশ্ববিদ্যালয় এবং হংকং সিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে অধ্যাপনার দায়িত্ব পালন করেছেন।[২][৩] তাছাড়া তিনি তিসুঙ্গা বিশ্ববিদ্যালয়েরও একজন সাক্ষাৎকারী অধ্যাপক ছিলেন।

১৭ জুলাই ২০১০ সালে, লির জন্য একটি বিদায় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। আদালতকক্ষ বিচারক ও আইনজীবিদের দ্বারা পূর্ণ ছিল, তাছাড়া আরও ছিল হংকংয়ের আইন সোসাইটি এবং বার এসোসিয়েশনের অনেক সদস্য।

বিচার-বহির্ভূত জীবন[সম্পাদনা]

লি দুইজন কন্যাসহ বিয়ে করেন। তার স্ত্রী লি উ মো ইং জুড়ি হংকং ইউনিভার্সিটি (সমাজ বিজ্ঞান, ১৯৭০) থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন।

লি ল্যান্ড ডেভেলপমেন্ট করপোরেশনে চেয়ারম্যান হিসেবে, ইংল্যান্ড রেভেনিউ বোর্ড অফ রিভিউ-এর সহকারী চেয়ারম্যান হিসেবে, সিকিউরিটিস কমিশনের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তাছাড়া, তিনি হংকং জকি ক্লাবের একজন তত্ত্বাবধায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন।

২০০৮ সালে হংকং সরকার লিকে গ্র্যান্ড বাহুনিয়া ম্যাডেল পুরস্কার প্রদান করেন।[৪] ২০১০ সালে জনসেবামূলক কাজের জন্য তিনি উড্রো উইলসন পুরস্কার এবং দ্য সিং টাও লিডার অব দ্য ইয়ার পুরস্কার পান। পরের বছর তাকে হংকং বার এসোসিয়েশন এবং হংকং লো সোসাইটি-এর আজীবন সদস্যের স্বীকৃতি প্রদান করা হয়। তাছাড়া তিনি বিংহাম সেন্টারের রুল অব লো-এর একজন সাহায্যদাতা।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "FACV No. 14-16 of 1998" 
  2. "李國能任三大名譽教授 – 新浪網 – 新聞"। Sina Corp। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১০ 
  3. "rthk.hk – University appointments for retiring CJ"। RTHK। ২৩ আগস্ট ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১০ [অকার্যকর সংযোগ]
  4. “Civil and Miscellaneous Lists” (http://www.info.gov.hk/cml/eng/miscell/index2.htm ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৬ অক্টোবর ২০১৮ তারিখে). Government of Hong Kong. 1 July 2010. Retrieved 18 September 2010.
আইনি অফিস
পূর্বসূরী দ্বারা

ক্রিস্ট্মাস ক্ষমতা

হিসাবে প্রধান বিচারপতি সুপ্রিম কোর্টের হংকং

অভিনয়
প্রধান বিচারপতি ফাইনাল আপীল কোর্টের

1997-2010
সফল দ্বারা

জিওফ্রে এমএ
অর্ডার অব প্রেসিডেন্স
পূর্বসূরী দ্বারা

লি Shau-kee

প্রাপক এর গ্র্যান্ড Bauhinia পদক
হংকং অর্ডার অব প্রেসিডেন্স

প্রাপক এর গ্র্যান্ড Bauhinia পদক
সফল দ্বারা

হেনরি হু

প্রাপক এর গ্র্যান্ড Bauhinia পদক