উরবান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

উরবান (মৃত্যু ১৪৫৩) ছিলেন একজন ধাতু বিশারদ ও প্রকৌশলী। ১৪৫৩ খ্রিষ্টাব্দে কনস্টান্টিনোপল অবরোধের সময় তিনি উসমানীয় সুলতানের জন্য বিরাট একটি কামান নির্মাণ করেন।

কনস্টান্টিনোপল অবরোধের জন্য উরবানের তৈরী কামানের উপর ভিত্তি করে ১৪৬৪ খ্রিষ্টাব্দে নির্মিত কামান শাহি। বর্তমানে এটি ব্রিটিশ রাজকীয় অস্ত্রাগারে রয়েছে।

অধিকাংশ সূত্রমতে উরবান একজন হাঙ্গেরিয়ান ছিলেন।[১][২][৩][৪][৫] কিছু পন্ডিতের মতে তার পূর্ব বংশধারা জার্মান। অপরপক্ষের কিছু তত্ত্ব অনুযায়ি তিনি ওয়ালাচিলান বংশোদ্ভূত। লাওনিকোস চালকোকোনডাইলিসের বর্ণনায় তাকে অস্পষ্টভাবে “ডেচিয়ান” শব্দ দ্বারা চিহ্নিত করা হয়েছে।[৬][৭][৮][৯][১০]

১৪৫২ তে তিনি বাইজেন্টাইনদের অধীনে কাজ করার জন্য আবেদন জানান। কিন্তু সম্রাট একাদশ কনস্টান্টাইন তার উচ্চ বেতন ও বিরাটকার কামান নির্মাণের জন্য তার প্রয়োজনীয় ধাতব উপকরণ সরবরাহে সক্ষম ছিলেন না। উরবান এরপর উসমানীয় সুলতান দ্বিতীয় মুহাম্মদের কাছে যান। উরবান দাবি করেন যে তার অস্ত্র এমনকি ব্যবিলনের দেয়ালও উড়িয়ে দিতে পারবে। যথেষ্ট পরিমাণ আর্থিক সাহায্য ও উপকরণ পাওয়ার পর তিনি তিন মাসের মধ্যে এড্রিনোপলে কামানটি নির্মাণ করেন। এখান থেকে তা ষাটটি ষাড়ের সাহায্যে কন্সটান্টিনোপল নিয়ে যাওয়া হয়। এর মধ্যে উরবান তুর্কি বাহিনীর জন্য অন্যান্য কামান নির্মাণ করেন।[১১]

হাঙ্গেরিয়ান সেনাবাহিনীর জন্য গোলন্দাজ প্রযুক্তি বিশেষত জার্মান কারিগররা[১২] সূচনা করে। ১৪০০ থেকে ১৪৫০ এর মধ্যে পশ্চিম ইউরোপে অবরোধ যুদ্ধের ধরন বদলে যায়।[১৩][১৪] তার একটি কামান বিস্ফোরিত হওয়ার পর উরবান তার সহকারীদের নিয়ে প্রায় মারা যেতে বসেছিলেন। এটি সেসময় স্বাভাবিক ঘটনা ছিল।[১৫] একজন আধুনিক লেখকের গবেষণা অনুযায়ী তিনি জার্মান হতে পারেন। হাঙ্গেরির রাজকীয় দরবারে কর্মরত কামান নির্মাতাদের ভিত্তিতে একথা বলা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Hans-Henning Kortüm: Transcultural Wars from the Middle Ages to the 21st century, Akedemie Verlag, Berlin, 2006 [১]
  2. Gábor Ágoston: Guns for the Sultan: Military Power and the Weapons Industry in the Ottoman Empire, Cambridge University Press, 2005 [২]
  3. Kelly DeVries, Robert Douglas Smith: Medieval Weapons: An Illustrated History of Their Impact, ABC CLIO, 2007 [৩]
  4. David Nicolle, Christa Hook: Constantinople 1453: The End of Byzantium, Osprey Publishing, 2000 [৪]
  5. Arthur Cotterel: Asia: A Concise History, John Wiley and Sons, 2011
  6. Clifford Rogers: The Oxford Encyclopedia of Medieval Warfare and Military Technology, Volume 1, Oxford University Press, 2010 [৫]
  7. [৬]
  8. [৭]
  9. [৮]
  10. [৯]
  11. Runciman 1990, পৃ. 77–78
  12. The heirs of Archimedes: science and the art of war through the Age of Enlightenment, Brett D. Steele & Tamera Dorland, The MIT Press, 2005, p.128 & Roger Crowley, on In Our Time: Constantinople Siege & Fall, broadcast 2006
  13. Schmidtchen 1977a, পৃ. 153–157
  14. Schmidtchen 1977b, পৃ. 226
  15. Schmidtchen 1977b, পৃ. 237, Fn. 121

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • Nicolle, David (২০০০), Constantinople 1453: The End of Byzantium, Osprey Publishing, পৃষ্ঠা 13, আইএসবিএন 1-84176-091-9 
  • Runciman, Steven (১৯৯০), The Fall of Constantinople: 1453, London: Cambridge University Press, পৃষ্ঠা 77–78, আইএসবিএন 978-0-521-39832-9 
  • Schmidtchen, Volker (১৯৭৭a), "Riesengeschütze des 15. Jahrhunderts. Technische Höchstleistungen ihrer Zeit", Technikgeschichte, 44 (2): 153–173 
  • Schmidtchen, Volker (১৯৭৭b), "Riesengeschütze des 15. Jahrhunderts. Technische Höchstleistungen ihrer Zeit", Technikgeschichte, 44 (3): 213–237 
  • Crowley, Roger (২০০৬), In Our Time: Constantinople Siege and Fall