ইরানের আর্মেনীয় মনাস্টেরি সমূহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ইরানের আর্মেনীয় মনাস্টেরি সমূহ
Qareh kelissa.jpg
কারা কেলিসা, চালদোরান, পশ্চিম আজারবাইজান
ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান
অবস্থানইরান
আয়তন১২৯.২৮১৯ হেক্টর (০.৪৯৯১৬০ মা)
অন্তর্ভুক্ত
মানদণ্ড(২য়), (৩য়), (৬ষ্ঠ) উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন[১]
তথ্যসূত্র1262
স্থানাঙ্ক৩৮°৫৮′৪৪″ উত্তর ৪৫°২৮′২৪″ পূর্ব / ৩৮.৯৭৮৮৯° উত্তর ৪৫.৪৭৩৩৩° পূর্ব / 38.97889; 45.47333স্থানাঙ্ক: ৩৮°৫৮′৪৪″ উত্তর ৪৫°২৮′২৪″ পূর্ব / ৩৮.৯৭৮৮৯° উত্তর ৪৫.৪৭৩৩৩° পূর্ব / 38.97889; 45.47333
শিলালিপির ইতিহাস২০০৮ (৩২তম সভা)
ইরানের আর্মেনীয় মনাস্টেরি সমূহ ইরান-এ অবস্থিত
ইরানের আর্মেনীয় মনাস্টেরি সমূহ
ইরানের আর্মেনীয় মনাস্টেরি সমূহের অবস্থান

আর্মেনীয় মনাস্টেরি সমূহ , হল ইরানের মধ্যে অবস্থিত পশ্চিম আজারবাইজান এবং পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের তিনটি আর্মেনীয় গীর্জা যা প্রতিষ্ঠিত হয় খ্রিস্টাব্দ সপ্তম এবং চতুর্দশ শতাব্দীতে। এইগুলো হল সেন্ট থ্যাডিয়াস আশ্রম, সেন্ট স্টেফানোস আশ্রম, এবং জর্জর চ্যাপেল। 8 জুলাই, 2008 এ ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ কমিটির 32তম অধিবেশনে ইউনেস্কো'র ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ তালিকায় সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য হিসেবে এটিতালিকাভুক্ত হয়। তিন গীর্জাগুলির মোট এলাকা, ১২৯ হেক্টর (৩২০ একর) এবং ইউনেস্কোর মানদণ্ড নং (ii), (iii), এবং (vi) এ তালিকাভুক্ত করা হয়েছে আর্মেনীয় স্থাপত্য এবং ঐতিহ্যের অসাধারণ প্রদর্শশনীর জন্য। এছাড়াও এটি ওই অঞ্চলে আর্মেনীয় সংস্কৃতির বিস্তরের একটি মুখ্য কেন্দ্র এবং সেন্ট থ্যাডিয়াসের, যিনি আর্মেনীয় ধর্মীয় ঐতিহ্যের একজন প্রমুখ ব্যক্তিত্ব, তাঁর তীর্থযাত্রাকেন্দ্র হিসাবে পরিচিত। বর্তমানে এই গীর্জাগুলি হল প্রাচীন আর্মেনীয় সংস্কৃতির দক্ষিণ-পূূর্ব প্রান্তের দৃষ্টান্ত।

  1. http://whc.unesco.org/en/list/1262.