ইওয়ান্নিনা

স্থানাঙ্ক: ৩৯°৩৯′৪৯″ উত্তর ২০°৫১′০৮″ পূর্ব / ৩৯.৬৬৩৬১° উত্তর ২০.৮৫২২২° পূর্ব / 39.66361; 20.85222
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ইওয়ান্নিনা
Ιωάννινα
Panoramic view of Lake Pamvotis and IoanninaOld Town of IoanninaMunicipal Clock Tower of IoanninaMunicipal Ethnographic Museum of IoanninaKaplaneios SchoolFerry to the IslandPost OfficeCastle of IoanninaIoannina montage. Clicking on an image in the picture causes the browser to load the appropriate article, if it exists.
এই চিত্র সম্পর্কে
Dimos ioannitwn seal.jpg
সীলমোহর
ইওয়ান্নিনা গ্রিস-এ অবস্থিত
ইওয়ান্নিনা
ইওয়ান্নিনা
স্থানাঙ্ক: ৩৯°৩৯′৪৯″ উত্তর ২০°৫১′০৮″ পূর্ব / ৩৯.৬৬৩৬১° উত্তর ২০.৮৫২২২° পূর্ব / 39.66361; 20.85222
দেশ গ্রিস
প্রশাসনিক অঞ্চলএপিরাস
আঞ্চলিক ইউনিটইওয়ান্নিনা
সরকার
 • মেয়রমোসেস এলিসাফ (স্বাধীন)
আয়তন
 • পৌরসভা৪০৩.৩২ বর্গকিমি (১৫৫.৭২ বর্গমাইল)
 • পৌর ইউনিট৪৭.৪৪ বর্গকিমি (১৮.৩২ বর্গমাইল)
উচ্চতা৪৮০ মিটার (১,৫৭০ ফুট)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • পৌরসভা১,১২,৪৮৬
 • পৌরসভা ঘনত্ব২৮০/বর্গকিমি (৭২০/বর্গমাইল)
 • পৌর ইউনিট৮০,৩৭১
 • পৌর ইউনিট ঘনত্ব১,৭০০/বর্গকিমি (৪,৪০০/বর্গমাইল)
সম্প্রদায়
 • জনসংখ্যা৬৫,৫৭৪ (২০১১)
 • আয়তন (কিমি)১৭.৩৫৫
সময় অঞ্চলইইটি (ইউটিসি+২)
 • গ্রীষ্মকালীন (দিসস)ইইএসটি (ইউটিসি+৩)
পোস্টাল কোড৪৫x xx
এরিয়া কোড(সমূহ)২৬৫১০
যানবাহন নিবন্ধনআইএন
ওয়েবসাইটioannina.gr

ইওয়ান্নিনা গ্রিসের অভ্যন্তরে, উত্তর-পশ্চিম গ্রিসের একটি প্রশাসনিক অঞ্চল ইওয়ান্নিনা আঞ্চলিক এককএপিরাসের রাজধানী ও বৃহত্তম শহর। ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুসারে, শহরের জনসংখ্যা ৬৫,৫৭৪ জন ছিল, যেখানে পৌরসভার বাসিন্দা ১,১২,৪৮৬ জন ছিল।[২] এটি পামভোতিস হ্রদের (Παμβώτις) পশ্চিম তীরে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৫০০ মিটার (১,৬৪০ ফুট) উচ্চতায় অবস্থিত। ইওয়ান্নিনা অ্যাথেন্সের ৪১০ কিমি (২৫৫ মাইল) উত্তর-পশ্চিমে, থেসালোনিকি থেকে ২৬০ কিলোমিটার (১৬২ মাইল) দক্ষিণ-পশ্চিমে ও আয়োনীয় সাগরের ইগোমেনিৎসা বন্দর থেকে ৮০ কিলোমিটার (৫০ মাইল) পূর্বে অবস্থিত।

শহরের ভিত্তি স্থাপনের জন্য ঐতিহ্যগতভাবে ৬ষ্ঠ শতাব্দীতে বাইজেন্টাইন সম্রাট জাস্টিনিয়ানকে দায়ী করা হয়েছে, কিন্তু আধুনিক প্রত্নতাত্ত্বিক গবেষণা হেলেনীয় বসতির প্রমাণ উন্মোচিত করেছে। বাইজেন্টাইন যুগের শেষের দিকে (১৩-১৫ শতকে) ইওয়ান্নিনার বিকাশ ঘটে। বাইজেন্টাইন যুগের শেষের দিকে (১৩-১৫ শতকে) আয়াননিনার বিকাশ ঘটে। এটি চতুর্থ ক্রুসেডের পরে এপিরাসের স্বৈরাচারের অংশ হয়ে ওঠে এবং অনেক ধনী বাইজেন্টাইন পরিবার কনস্টান্টিনোপলকে বরখাস্ত করার পরে সেখানে পালিয়ে যায়, রাজনৈতিক অস্থিরতা সত্ত্বেও শহরটি প্রচুর সমৃদ্ধি ও যথেষ্ট স্বায়ত্তশাসনের অভিজ্ঞতা লাভ করে। ইওয়ান্নিনা ১৪৩০ সালে অটোমানদের কাছে আত্মসমর্পণ করে এবং এটি ১৮৬৮ সাল পর্যন্ত ইয়ানিনা পাশালিকের প্রশাসনিক কেন্দ্র ছিল। শহরটি ১৮তম ও ১৯তম শতকের মধ্যবর্তী সময়ে আধুনিক গ্রিক আলোকিতকরণের একটি প্রধান কেন্দ্র ছিল।[৩][৪][৫][৬] বলকান যুদ্ধের পর ১৯১৩ সালে ইওয়ান্নিনাকে গ্রিসের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছিল। শহরে দুটি হাসপাতাল রয়েছে, ইওয়ান্নিনার জেনারেল হাসপাতাল "জি. হাতজিকোস্তা" ও ইওয়ান্নিনা বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল। এটি ইওয়ান্নিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আসনও বটে। শহরের প্রতীকটি বাইজেন্টাইন সম্রাট জাস্টিনিয়ানের প্রতিকৃতি নিয়ে গঠিত, যা দোদোনার নিকটবর্তী প্রাচীন থিয়েটারের একটি শৈলীযুক্ত চিত্র দ্বারা মুকুট পরানো।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Απογραφή Πληθυσμού - Κατοικιών 2011. ΜΟΝΙΜΟΣ Πληθυσμός" (গ্রিক ভাষায়)। হেলেনিক পরিসংখ্যানগত কর্তৃপক্ষ। 
  2. (আধুনিক গ্রিক ভাষায়) "GOV. results of permanent population 2011", p. 10571 (p. 97 of pdf), and in Excel format "Table of permanent population 2011" from the site Hellenic Statistical Authority. Archived 24 November 2017. Retrieved 2018-01-09.
  3. Sakellariou M. V. Epirus, 4000 years of Greek history and civilization. Ekdotikē Athēnōn, 1997, আইএসবিএন ৯৭৮-৯৬০-২১৩-৩৭১-২ p. 268
  4. Fleming Katherine Elizabeth. The Muslim Bonaparte: diplomacy and orientalism in Ali Pasha's Greece. Princeton University Press, 1999. আইএসবিএন ৯৭৮-০-৬৯১-০০১৯৪-৪. p. 63-66
  5. The Era of Enlightenment (late 7th century – 1821). Eθνικό Kέντρο Bιβλίου, p. 13
  6. Υπουργείο Εσωτερικών, Αποκέντρωσης και Ηλεκρονικής Διακυβέρνησης Περιφέρεια Ηπείρου: "Στη δεκαετία του 1790 ο νεοελληνικός διαφωτισμός έφθασε στο κορύφωμά του. ΦορέαA_1του πνεύματος στα Ιωάννινα είναι ο Αθανάσιος ΨαλίδαA_."

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]