আবদুস সোবহান রাহাত আলী উচ্চ বিদ্যালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আবদুস সোবহান রাহাত আলী উচ্চ বিদ্যালয়
Asrahs mainbuilding.jpg
অবস্থান
পটিয়া, চট্টগ্রাম (পটিয়া থানা সংলগ্ন)

তথ্য
ধরনএমপিওভুক্ত
নীতিবাক্যজ্ঞানই আলো
প্রতিষ্ঠাকাল১৯১৪
প্রধান শিক্ষকআহমদ শরীফ আজাদ (ভারপ্রাপ্ত)
শ্রেণীশ্রেণী ৬-১০
শিক্ষার্থী সংখ্যা২,০০০ প্রায়
ভাষার মাধ্যমবাংলা
শিক্ষায়তন৩.৫ একর (ভবন ৬টি) এবং ২টি মাঠ
রঙ         
ক্রীড়াফুটবল, ক্রিকেট, বাস্কেটবল
শিক্ষা বোর্ডচট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড

আবদুস সোবহান রাহাত আলী উচ্চ বিদ্যালয় চট্টগ্রামের পটিয়ায় অবস্থিত একটি উচ্চ বিদ্যালয়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মুসলমান ছেলেদের শিক্ষার প্রসারে এই বিদ্যালয়টি ১৯১৪ সালে চট্টগ্রাম-এর পটিয়া সদরের শূন্য কিলোমিটারে মাওলানা আবদুস সোবহান কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রথমে এটি একটি ধর্মীয় মক্তব হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। দুষ্কৃতকারীরা মক্তব পুড়িয়ে দিলে মাওলানা আবদুস সোবহান মক্তবের পাশে অবস্থিত থানায় যান ও দারোগা রাহাত আলীর সাথে কথা বলেন। কথার মধ্যে দারোগা রাহাত আলীর মাওলানা আবদুস সোবহানকে মুসলমানদের উন্নতির জন্য মক্তবের পরিবর্তে আধুনিক ইংরেজি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার গুরুত্ব বুঝান ও ১ হাজার টাকা প্রদান করেন। পরে এটিকে উচ্চ ইংরেজি বিদ্যালয় হিসেবে উন্নীত করা হয়। ১৯১৭ সালে মাওলানা সাহেবের অনুরোধে তৎকালীন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে রাহাত আলী দারোগার নাম অর্ন্তভুক্ত করে। এরপর থেকে অদ্যবধি বিদ্যালয়টি ‘আবদুস সোবহান রাহাত আলী উচ্চ বিদ্যালয়’ হিসেবে পরিচিত হয়ে আসছে।

অবস্থান[সম্পাদনা]

পটিয়া থানার ১০০ মিটারের মধ্যেই রয়েছে এই স্কুল। এর উত্তর-পূর্ব পাশে রয়েছে বিশ্ববিখ্যাত ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় আল জামিয়া আল ইসলামিয়া পাটিয়া

স্কুল ভবন[সম্পাদনা]

৬টি দ্বিতল ভবনের ২০টি কক্ষে বিদ্যালয়ের শ্রেণী কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। বিজ্ঞান শিক্ষার জন্য রয়েছে সমৃদ্ধ পৃথক ২টি ল্যাব কক্ষ, যেখানে রসায়ন ও জীব বিজ্ঞান হাতে কলমে শিক্ষা দেয়া হয়।

ছাত্রদের আবাসন[সম্পাদনা]

স্কুলের ছাত্রদের জন্য ছাত্রাবাস নির্মাণাধীন।

মাঠ[সম্পাদনা]

৩.৫ একর জায়গার উপর বর্তমানে বিদ্যালয়ের কার্যক্রম চলছে। বিদ্যালয়ের সামনে ও পিছনে রয়েছে দু’টি মাঠ।

অনুষদ ও বিভাগসমূহ[সম্পাদনা]

উচ্চ বিদ্যালয়- ক্লাস ৬ থেকে ১০ পর্যন্ত।

পাঠাগার[সম্পাদনা]

পাঠ্য বইয়ের বাইরে জ্ঞান অর্জনের জন্য রয়েছে একটি সমৃদ্ধ পাঠাগার কক্ষ।

অন্যান্য অবকাঠামোগত সুযোগ সুবিধাসমূহ[সম্পাদনা]

বিজ্ঞান শিক্ষার জন্য রয়েছে সমৃদ্ধ পৃথক ২টি ল্যাব কক্ষ, যেখানে রসায়ন ও জীব বিজ্ঞান হাতে কলমে শিক্ষা দেয়া হয়। আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি শিক্ষার জন্য রয়েছে পৃথক কম্পিউটার ল্যাব। পাঠ্য বইয়ের বাইরে জ্ঞান অর্জনের জন্য রয়েছে একটি সমৃদ্ধ পাঠাগার কক্ষ। রয়েছে পৃথক অফিস কক্ষ। প্রধান শিক্ষকের জন্য রয়েছে সুবিশাল অফিস কক্ষ ও বিশ্রামাগার। শিক্ষকদের জন্য রয়েছে পৃথক কমন রুম। রয়েছে একটি নামায ঘর। বিদ্যালয়ের মাঝে পৃথক একটি অডিটোরিয়াম রয়েছে। যেখানে বছরব্যাপী অনুষ্ঠিত হয় সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রোগ্রাম। তবে ইচ্ছে করলে বাইরের লোকজনও শর্ত সাপেক্ষে নির্দিষ্ট ফি’র বিনিময়ে অডিটোরিয়াম ব্যবহার করতে পারেন। একটি পৃথক বিল্ডিং-এ রয়েছে ছাত্রদের জন্য রয়েছে একাধিক শৌচালয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]