আনরকালী কউর হনারিয়ার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

আনরকালী কউর হনারিয়ার একজন পাঞ্জাবী শিখ[১] আফগান রাজনীতিবিদ।.[২] তিনি একজন নারী অধিকার কর্মী এবং একজন দন্ত-চিকিৎসক হিসেবে আফগানিস্তানের একটি হাসপাতালে কর্মরত আছেন।[৩] আফগানিস্তানে মাত্র ৩০,০০০ এর মতো শিখ এবং হিন্দু রয়েছে, ডা. আনরকালী কউর হনারিয়ার তাদের মধ্যে একজন ।[৪] তিনি আফগানিস্তানের জাতীয় পরিষদের প্রথম অমুসলিম সদস্য।[৫]

ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

২০০১ সালে আফগানিস্তান যখন তালিবান মুক্ত হয়, হনারিয়ার তখন কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ে মেডিসিনের উপর অধ্যয়ন করেন। তালিবান পতনের পর আফগানিস্তানের অর্ন্তবর্তীকালীন সরকার সদস্য, লয়া জিরগার সদস্য, এবং আফগান সংবিধান প্রণয়ন কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০৬ সালে তিনি আফগান স্বাধীন মানবাধিকার কমিশনের সদস্য হন। ২০১০ সালে, দেশের মেশরানি জিরগার সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন এবং প্রথম অমুসলিম নারী হিসেবে পার্লামেন্টের সদস্য হওয়ার মাইলফলক অর্জনের করেন।[৬] ২০১৫ সালের মাঝামাঝি সময়ে তিনি তার পদ থেকে পদত্যাগ করেন।[২][৩]

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

হনারিয়ার একজন সুপরিচিত মানবাধিকার কর্মী[৬] এবং সহনশীলতা এবং অহিংসা প্রচারের জন্য ইউনেস্কো-মদনজিৎ সিং পুরস্কারে ভূষিত করা হয়েছে।[২] "তার কাজে তার দেশের মহিলাদের গার্হস্থ্য নির্যাতন, জোরপূর্বক বিয়ে এবং লিঙ্গ বৈষম্যের শিকার হওয়া এবং মানবাধিকার, পারস্পরিক শ্রদ্ধা ও সহনশীলতার আদর্শের উন্নয়নের ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখেছে।"[৭] ২০০৯ সালে হনারিয়ার রেডিও ফ্রি ইউরোপীয় আফগান চ্যাপ্টার কর্তৃক বছরের সেরা ব্যক্তি হিসেবে মনোনিত হন।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]