অ্যালেক্সিস সিপ্রাস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অ্যালেক্সিস সিপ্রাস
Αλέξης Τσίπρας
Alexis Tsipras July 2015.jpg
গ্রীসের প্রধানমন্ত্রী
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৫
রাষ্ট্রপতিপ্রকপিস পাভলোপাউলাস
ডেপুটিইয়ানিস ড্রাগাসাকিস
পূর্বসূরীভাসিলিকি থানৌ
কাজের মেয়াদ
২৬ জানুয়ারী ২০১৫ – ২৭ আগস্ট ২০১৫
রাষ্ট্রপতিকরলোস পাপুলিয়াস
প্রকপিস পাভলোপাউলাস
ডেপুটিইয়ানিস ড্রাগাসাকিস
পূর্বসূরীএন্থোনিস সামারাস
উত্তরসূরীভাসিলিকি থানৌ
পররাষ্ট্র বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
২০ অক্টোবর ২০১৮ – ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
পূর্বসূরীনিকোস কোটজিয়াস
উত্তরসূরীজর্জিয়াস কাটারুগালুস
বিরোধীদলীয় নেতা
কাজের মেয়াদ
২০ জুন ২০১২ – ২৬ জানুয়ারী ২০১৫
প্রধানমন্ত্রীএন্থোনিস সামারাস
পূর্বসূরীএন্থোনিস সামারাস
উত্তরসূরীএন্থোনিস সামারাস
Syriza এর নেতা
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
৪ অক্টোবর ২০০৯
পূর্বসূরীআলিকোস আলাভিনোস
Hellenic Parliament এর সদস্য
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
৪ অক্টোবর ২০০৯
Party of the European Left এর ভাইস প্রেসিডেন্ট
কাজের মেয়াদ
৫ ডিসেম্বর ২০১০ – ১৭ ডিসেম্বর ২০১৬
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1974-07-28) ২৮ জুলাই ১৯৭৪ (বয়স ৪৫)
এথেন্স, গ্রীস
রাজনৈতিক দলSyriza (2013–present)
অন্যান্য
রাজনৈতিক দল
Communist Party (before 1991)
Synaspismos (1991–2013)
ঘরোয়া সঙ্গীপ্রিস্টিনা বাজিয়ানা
সন্তান
বাসস্থানম্যাক্সিমস ম্যানসন
প্রাক্তন শিক্ষার্থীNational Technical University of Athens
স্বাক্ষর

টেমপ্লেট:Alexis Tsipras sidebar অ্যালেক্সিস সিপ্রাস (গ্রিক: Αλέξης Τσίπρας, উচ্চারিত [aˈleksis ˈt͡sipras];২5 জুলাই 1974 সালে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি গ্রীকের একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে ২০১৫ সাল থেকে দেশটির প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বরত আছে্ন।

একজন সমাজতান্ত্রিক হিসেবে সিপ্রাস ,২০০৯ সাল থেকে গ্রিক রাজনৈতিক দল Syriza এর নেতা হিসেবে দায়িত্বপালন করছেন। সিপ্রাস চতুর্থ প্রধানমন্ত্রী যিনি ২০১০ সালের গ্রিক সরকার-ঋণ সংকটকালীন সময়ে শাসন করেছেন। মূলত সংকটের সময় প্রয়োগ করা কঠোর নীতি সমালোচক দের দৃষ্টি আকর্ষন করেছে।

সিপ্রাস ১৯৭৪ সালে এথেন্সে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৮০ এর দশকের শেষ দিকে তিনি গ্রিসের কমিউনিস্ট যুব তে যোগ দেন এবং ১৯৯০ এর দশকে শিক্ষা সংস্কার পরিকল্পনার বিরুদ্ধে ছাত্র বিক্ষোভের ক্ষেত্রে সক্রিয়ভাবে সক্রিয় হন এবং আন্দোলনের মুখপাত্র হয়ে ওঠেন। তিনি অ্যাথেন্সের জাতীয় কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয়ে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়াশোনা করেন এবং ২০০০ সালে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন এবং পরবর্তীকালে urban and regional planning এ স্নাতকোত্তর গবেষণায় অংশ নেন। তিনি প্রাথমিকভাবে এথেন্স ভিত্তিক নির্মাণ শিল্পে, সিভিল ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে কাজ করেন।

১৯৯৯ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত, Synaspismos Youth এর সেক্রেটারি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।২০০৪ সালে তিনি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং পরে রাজনৈতিক সচিবালয়ে সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০৬ সালের স্থানীয় নির্বাচনে তিনি এথেন্সের মেয়রের Syriza প্রার্থী হিসেবে ১০.৫% ভোট পেয়েছিলেন। ২০০৪ সালে, তিনি আলেকস আলভানসোকে পদচ্যুত করে Syriza এর নেতা নির্বাচিত হন। ২০০৯ সালের নির্বাচনে তিনি প্রথম এথেন্স এ প্রতিনিধিত্বকারী হেলেনীয় সংসদে নির্বাচিত হন এবং মে এবং জুন ২০১২ সালে পুনরায় নির্বাচিত হন, পরবর্তীতে বিরোধী দলের নেতা হন এবং নিজের ছায়া মন্ত্রিসভা নিয়োগ করেন।

২০১৫ সালের জানুয়ারিতে, সিপ্রাস Syriza কে জয় এনে দেয় এবং হেলেনিক সংসদে ৩০০ টি আসনের মধ্যে ১৪৯ টি জিতে যায় তার দল এবং অন্য রাজনীতিক দল ইন্ডিপেন্ডেন্ট গ্রীক দের সঙ্গে জোট করে সরকার গঠন করেন। ২০ আগস্ট ২০১৫ তারিখে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্বগ্রহণ করেন এবং সাত মাস তিনি তার সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারান এবং পদত্যাগের ঘোষণা দেন এবং পরবর্তী মাসের জন্য একটি স্ন্যাপ নির্বাচনের আহ্বান জানান। ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরের নির্বাচনে সিপ্রাস Syriza কে আরেকটি বিজয় এনে দেয় এবং ৩০০ আসনের মধ্যে ১৪৫ টি জিতে ইন্ডিপেন্ডেন্ট গ্রীক দের সঙ্গে জোট গঠন করে। প্রধানমন্ত্রী হিসাবে, তিনি গ্রিক সরকার-ঋণ সংকটের বিষয়ে আলোচনা পরিচালনা করেছেন, গ্রীক ব্যালাউট গণভোট শুরু করেছেন এবং ইউরোপীয় অভিবাসী সংকটে কাজ করেছেন।টাইম ম্যাগাজিনে ২০১৫ সালে প্রকাশিত বিশ্বব্যাপী ১০০ জন প্রভাবশালী ব্যক্তির মধ্যে তিনি অন্তর্ভূক্ত হন।

প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বগ্রহণ করার পর বিরোধীদলের লোকজন তার বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ আনে ,তার মধ্যে অন্যতম হলো সংকটকালীন সময় থেকে জিডিপি ২৫% কমে যাওয়া।

প্রাথমিক জীবন এবং কর্মজীবন[সম্পাদনা]

সিপ্রাস ২8 জুলাই ১৯৭৪ সালে এথেন্সে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা পাভলস এপিরিস ঠিকাদার ছিলেন,তার মা অরিস্তি,ইস্টার্ন ম্যাসেডোনিয়া ও থ্রাস পেরিফেরির একটি শহর এলফথারুপোলিতে জন্মগ্রহণ করেন,গ্রীস ও তুরস্কের মধ্যে ১৯২৩ সালের জনসংখ্যা বিনিময়কালে সিপ্রাস এর মায়ের পরিবার গ্রীসে স্থান্তরিত হয়েছিল।

১৯৮০-এর দশকের শেষদিকে ত্রিপরা গ্রিসের কমিউনিস্ট যুবাতে যোগ দেন। ১৯৯০-এর দশকের প্রথম দিকে, এম্পেলোকিপো মাল্টি-ডিসিপিলিনারি হাই স্কুলে ছাত্র হিসাবে, তিনি শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ভাসিলিস কন্টোগিয়ানপোলোসোর বিতর্কিত আইনের বিরুদ্ধে ছাত্র বিদ্রোহ এ সক্রিয় ছিলেন। ছাত্র আন্দোলনের প্রতিনিধি হিসাবে তিনি বিশেষত্ব অর্জন করেন যখন তিনি সাংবাদিক আন্না পানাগোটিয়ারের একটি টেলিভিশন অনুষ্ঠানের অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সাক্ষাৎকারের সময়, পানাগোটিয়া উল্লেখ করেছিলেন যে বিক্ষোভের সময় পিতামাতার নোটিশ ছাড়াই মাধ্যমিক ও উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অনুপস্থিতির অধিকারকে রক্ষা করার জন্য সিপ্রাস নির্দোষ ছিল।

সিএসপিরা এনটিউএর স্কুল অব আর্কিটেকচারের একটি আন্তঃবিভাগীয় এমফিলের পর নগর ও আঞ্চলিক পরিকল্পনায় স্নাতকোত্তর গবেষণায় অংশ নেওয়ার আগে ২০০০ সালে অ্যাথেন্সের জাতীয় কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয়ে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং অধ্যয়ন করেন। স্নাতকোত্তর গবেষণার পাশাপাশি, তিনি নির্মাণ শিল্পে সিভিল ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে কাজ শুরু করেন। তিনি এথেন্স শহরের পরিকল্পনার উপর তিনটি গবেষণা এবং প্রকল্প লিখেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হিসাবে, সিপ্রাস বামপন্থী আন্দোলন, বিশেষত "এনসেল্যাডাস" (গ্রিক: Εγκέλαδος)এ যোগ দেন এবং এর সদস্য হিসাবে তিনি সিভিল সার্ভিসের ছাত্র ইউনিয়নের নির্বাহী বোর্ডে নির্বাচিত হন। এনটিইউএ এর ইঞ্জিনিয়ারিং স্কুল এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটে ছাত্র প্রতিনিধি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৫ থেকে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত তিনি গ্রিসের জাতীয় ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের সদস্য নির্বাচিত হন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]