অ্যাম্বিয়ান্স

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
অ্যাম্বিয়ান্স
Ambiancé
পরিচালক অ্যান্ডার্স ওয়েবার্গ
রচয়িতা অ্যান্ডার্স ওয়েবার্গ
মুক্তি ২০২০
দৈর্ঘ্য ৭২০ ঘণ্টা
দেশ সুইডেন
ভাষা সুইডীয়

অ্যাম্বিয়ান্স সুইডেনের বিশিষ্ট চলচ্চিত্র পরিচালক অ্যান্ডার্স ওয়েবার্গ[১] পরিচালিত; ৭২০ ঘণ্টা (৩০দিন)-এর দৈর্ঘ্য সহ চলচ্চিত্রটি হবে বিশ্বের সবচেয়ে বেশী স্থায়িত্ব সম্পন্ন[২] নির্বাক চলচ্চিত্র।[৩] এই চলচ্চিত্রটিই হবে পরিচালক অ্যান্ডার্স ওয়েবার্গ পরিচালিত অন্তিম চলচ্চিত্র।[৪]

সারাংশ[সম্পাদনা]

অম্বিয়ান্স চলচ্চিত্রটি আংশিকভাবে ১৯৫৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত দ্য সেভেন্থ সিল চলচ্চিত্রের চেস খেলার উপর ভিত্তি করে তৈরি হয়েছে।[৫] পিরিচালক অ্যান্ডার্স চলচ্চিত্রটিকে চলন্ত ছবির সাথে অতিবাহিত শিল্পীর সময় বিমূর্ত অ-রৈখিক আখ্যান সারসংক্ষেপ হিসেবে চিত্রিত করবেন বলে জানিয়েছেন।

মুক্তি ও চিত্রায়ন[সম্পাদনা]

পরিচালক ওয়েবার্গ পুরনো ও ক্লাসিক বোয়ের পুনঃনির্মাণের বিরুদ্ধে অ্যাম্বিয়ান্স চলচ্চিত্রটি তৈরি করছেন। চলচ্চিত্রটি একটি অংশ সুইডেনের একটি সমুদ্রসৈকতে চিত্রায়িত করা হয়েছে যেখানে দ্য সেভেন্থ সিল বোয়টিরও চিত্রায়ন করা হয়।

২০১৬ সালে পরিচালক জানায় যে বোয়ের ৪০০ ঘণ্টা চিত্রায়ন সফল হয়েছে। ২০১৪ সালে বোয়টির ৭২ মিনিটের একটি ট্রেলারের মুক্তি দেওয়া হয়।[১] ২০১৬ সালে বোয়ের ২০ ঘণ্টা স্থায়িত্ব সম্পন্ন ট্রেলার রিলিজ করা হয়। ২০১৮ সাল পর্যন্ত বোয়ের একটি ৭২ ঘণ্টা সময়ের ভিডিও মুক্ত করা হবে। এবং শেষে ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর পূর্ণ দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি সারা পৃথিবী জুড়ে প্রদর্শিত হবে।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "৭ ঘণ্টা ২০ মিনিটের ট্রেলার!! তা হলে ফিল্মের দৈর্ঘ্য কত?"আনন্দবাজার পত্রিকা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৪-২৭ 
  2. "৭২০ ঘন্টায় পৃথিবীর সবচেয়ে লম্বা ছবি 'অ্যাম্বিয়ান্স'"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৪-২৭ 
  3. http://www.anandabazar.com/entertainment/watch-world-s-longest-movie-trailer-7-20-hours-dgtl-1.371241
  4. "সুইডীয় চলচ্চিত্র পরিচালক অ্যান্ডার্স ওয়েবার্গের শেষ চলচ্চিত্র হবে অম্বিয়ান্স"Toronto Star। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৪-২৭ 
  5. "প্রথম বার্তা"Prothom Barta। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৪-২৭ 
  6. "[VIDEO] 72-Minute Trailer Released for Longest Film Ever, 'Ambiance'"The Hollywood Reporter। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৪-২৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]