অস্ট্রেলিয়ান সেক্স পার্টি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অস্ট্রেলিয়ান সেক্স পার্টি
নেতাফিওনা প্যাটেন
প্রতিষ্ঠা২০০৯; ১২ বছর আগে (2009)
ভাঙ্গন২০১৭; ৪ বছর আগে (2017)
একীভূত হয়েছে রিজন পার্টি
সদর দপ্তর১০ ইপসুইচ সেন্ট
ফিশউইক অ্যাক্ট ২৬০৯
মতাদর্শ যৌন ইতিবাচকতা
নাগরিক স্বাধীনতাবাদ
প্রগতিবাদ
ধর্মনিরপেক্ষ উদারতাবাদ
রাজনৈতিক অবস্থানকেন্দ্রীয় বাম
আনুষ্ঠানিক রঙ     Yellow and
     Red
দলনেত্রী ফিওনা প্যাটেন

অস্ট্রেলিয়ান সেক্স পার্টি ছিল অস্ট্রেলীয় রাজনীতিতে ধর্মের ক্রমবর্ধমান প্রভাব নিয়ে উদ্বেগের প্রতিক্রিয়া হিসাবে ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত একটি অস্ট্রেলীয় রাজনৈতিক দল[১] [২] দলটি একটি প্রাপ্তবয়স্ক-শিল্প লবি গ্রুপ, ইরোস অ্যাসোসিয়েশন থেকেই জন্মগ্রহণ করেছিল। এর নেতা ফিয়োনা প্যাটেন আগে সমিতির প্রধান নির্বাহী ছিলেন। [৩]

প্যাটেন দলটিকে একটি "নাগরিক মুক্তির বিকল্প" হিসাবে বর্ণনা করেছিলেন। [৪] প্যাটেন সেন্সর ব্যবস্থাপনা, সাম্যতা এবং বৈষম্যের মতো ইস্যুতে একজন প্রবীণ প্রচারক। [৫] [৬] ২০১৪ সালের রাজ্য নির্বাচনে প্যাটেন ভিক্টোরিয়ান আইন পরিষদে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

অস্ট্রেলীয় নির্বাচনী কমিশন (এইসি) এর পক্ষ থেকে ৫ মে ২০১৫ তারিখে দলটির নিবন্ধন বাতিল হয়েছিল, এটা নিরীক্ষণের পর যে, এটি ৫০০ সদস্যের বিধিবদ্ধ প্রয়োজনীয়তা পূরণ করতে পারছে না, তবে জুলাইয়ে পুনরায় নিবন্ধিত হয়েছিল। [৭] [৮]

সেক্স পার্টি ভিক্টোরিয়া রাজ্য পর্যায়ে নিবন্ধিত ছিল, যেখানে এর সংসদীয় প্রতিনিধিত্ব ছিল, পাশাপাশি অস্ট্রেলীয় রাজধানী অঞ্চল এবং উত্তর অঞ্চলগুলিতেও। ২০১৭ সালে, দলটি অস্ট্রেলিয়ান সাইক্লিস্ট পার্টির সাথে একীভূত হয়ে রিজন পার্টি গঠন করে। [৯] [১০]

সংসদীয় পদক্ষেপ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bennett, Lucy (১৭ নভেম্বর ২০০৮)। "Australian Sex Party launches on Thursday"The Australian। ১৮ ডিসেম্বর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৩-১৫ 
  2. "Sex flirts with politics", Herald Sun, 16 November 2008.
  3. "Eros" 
  4. Gardiner, Ashley (১৫ নভেম্বর ২০১০)। "Sex Party hopes to make history and win an Upper House seat in state election"Herald Sun 
  5. "People Trafficking, Human Security and Development"Australian National University। ২৯ আগস্ট ২০০৪। ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১০-০৮ 
  6. Syvret, Paul (৮ ডিসেম্বর ২০০৯)। "Australian Sex Party a dark horse in federal politics"The Courier-Mail। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১০-০৮ 
  7. "Australian Electoral Commission: Australian Sex Party"। AEC.gov.au। ১০ আগস্ট ২০১৫। 
  8. "Sex Party Rises Again"। Australian Sex Party। ২৪ জুলাই ২০১৫। ২২ ডিসেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  9. "The Australian Cyclists Party Closes (and promotes alternative broad issue party)"Bicycles Network Australia (ইংরেজি ভাষায়)। ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১১ জুলাই ২০১৯ 
  10. Preiss, Benjamin (২২ আগস্ট ২০১৭)। "Australian Sex Party to become the Reason Party"The Sydney Morning Herald (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১১ জুলাই ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]