হিবাকুশা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হিরোশিমায় পারমানবিক বোমার শিকার এক ব্যক্তি। তার শরীর পুড়ে গিয়েছিল। চামড়ার উপর যে দাগ দেখা যাচ্ছে সেগুলো আক্রমণের সময় সে যে কিমোনো পড়ে ছিল তার কারণে হয়েছে।

হিবাকুশা (নি হোং গো: 被爆者) জাপানি ভাষায় বহুল ব্যবহৃত একটি শব্দ। হিরোশিমা এবং নাগাসাকিতে পারমানবিক বোমা বিস্ফোরণের দ্বারা আক্রান্ত ব্যক্তিদের বোঝাতে শব্দটি ব্যবহৃত হয়। ২০০৭ সালের ৩১ মার্চ-এর তথ্য অনুযায়ী এ পর্যন্ত জাপানী সরকার মোট ২৫১,৮৩৪ জন হিবাকুশা চিহ্নিত করেছে যাদের গড় বয়স ৭৪.৬ বছর।[১] জাপানি ভাষায় হিবাকুশা শব্দের আক্ষরিক অর্থ "বিস্ফোরণের দ্বারা আক্রান্ত জনগণ"। হিবাকুশাদের প্রায় সবাই জাপানে বাস করে, বোমা হামলায় মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে এমন কয়েক হাজার হিবাকুশা কোরিয়া এবং অন্যান্য স্থানে বাস করে।

১৯৫৬ সালে জাপানের হিবাকুশা জনগণ একটি গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করে যার জাপানি নাম নিহোন হিদাংকিয়ো। ইংরেজিতে একে "জাপান কনফেডারেশন অফ এ- অ্যান্ড এইচ-বম্ব সাফার্‌স অর্গানাইজেশন" বলা হয়। এই সংস্থার কাজ হচ্ছে হিরোশিমা নাগাসাকির বোমা হামলায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের প্রতি সহযোগিতা বৃদ্ধি এবং নিউক্লীয় অস্ত্র বিলুপ্তীকরণ নীতিমালা প্রণয়নে জাপান সরকারকে চাপ প্রয়োগ করা। তারা বিশ্বব্যাপী নিউক্লীয় অস্ত্র বিনাশের দাবী জানায়।[২]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

মন্তব্য[সম্পাদনা]

  1. ""Hiroshima marks 62nd A-bomb anniversary""Kuwait News Agency। সংগৃহীত 2007-08-30 
  2. "Welcome to HIDANKYO"। Japan Confederation of A- and H-Bomb Sufferers Organization (Nihon Hidankyo) website। সংগৃহীত 2007-08-31 

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বগিঃসংযোগ এবং তথ্য উৎস[সম্পাদনা]