মূত্রনালীতে সংক্রমণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Urinary tract infection
শ্রেণীবিভাগ এবং বহিরাগত রিসোর্স
Multiple white cells seen in the urine of a person with a urinary tract infection via microscopy
আইসিডি-১০ N39.0
আইসিডি- 599.0
রোগ ডাটাবেস 13657
মেডলাইনপ্লাস 000521
ইঔষধ emerg/625 emerg/626
মেএসএইচ D014552

‘”মূত্রনালীতে সংক্রমণ”’ (‘”ইউটিআই”’) হল এক ধরনের ব্যাকটেরিয়াঘটিত infection যার ফলে urinary tract আংশিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। যখন এর ফলে মূত্রনালীর নিম্নাংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তখন তাকে সাধারণ cystitis (মূত্রথলির সংক্রমণ) বলে আর যখন এর ফলে মূত্রনালীর ঊর্ধ্বাংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তখন তাকে pyelonephritis (কিডনির সংক্রমণ) বলে। মূত্রনালীর নিম্নাংশের সংক্রমণের ক্ষেত্রে যেসব উপসর্গ দেখা যায় তার অন্তর্গত হল বেদনাদায়ক urination এবং হয় ঘন ঘন মূত্রত্যাগ করা বা পেচ্ছাপ পাওয়া, তবে যাদের পাইলোনেফ্রাইটিস হয় তাদের ক্ষেত্রে মূত্রনালীর নিম্নাংশের ইউটিআই সংক্রমণের মত উপসর্গ ছাড়াও fever এবং flank pain দেখা যায়। বয়স্ক এবং খুব কম বয়সীদের ক্ষেত্রে উপসর্গগুলি অস্পষ্ট বা অনির্দিষ্ট ধরনের হতে পারে। এই উভয় ধরনের রোগের কারণ হল Escherichia coli, অবশ্য অন্য ধরনের ব্যাকটেরিয়া, virus সমূহ বা বিরল ক্ষেত্রে fungi এর কারণ হয়ে থাকতে পারে।

মূত্রনালীর সংক্রমণ পুরুষদের তুলনায় মহিলাদের ক্ষেত্রেই তুলনামূলকভাবে বেশী দেখা যায়, অর্ধেক সংখ্যক মহিলারা জীবনের কোন না কোন সময় অন্তত একবার সংক্রামিত হন। বার বার হবার ঘটনা প্রায়শই দেখা যায়। নারীদের শারীরিক গঠন, যৌনমিলন এবং বংশগত ধারা প্রভৃতি উপাদান হল ঝুঁকির কারণে। যদি কখনো পাইলোনেফ্রাইটিস হয়, তাহলে সাধারণত তার পরেই মূত্রথলিতে কোন সংক্রমণ হয় তবে কোন blood borne infectionঘটিত সংক্রমণের ফলেও এটা হতে পারে। স্বাস্থ্যবতী যুবতি মহিলাদের ক্ষেত্রে রোগনির্ণয়ের কাজ শুধুমাত্র উপসর্গের উপরে নির্ভর করেই করা যেতে পারে। যাদের ক্ষেত্রে উপসর্গগুলি অনির্দিষ্ট ধরনের হয়, তাদের রোগনির্ণয় কঠিন হতে পারে কারণ কোনো সংক্রমণ না হলেও ব্যাকটেরিয়ার উপস্থিতি থাকতে পারে। জটিল ধরনের রোগের ক্ষেত্রে বা যদি চিকিত্সা ব্যর্থ হয়, তাহলে এক বার urine culture করানো হলে সেটা কাজে লাগতে পারে। যাদের মাঝেমাঝেই সংক্রমণ হয়, প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা হিসাবে তারা কম মাত্রার antibiotic-গুলি খেতে পারেন।

জটিল নয় এমন ঘটনায়, মূত্রনালীর সংক্রমণ সহজেই অল্প দিনের অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্স খেলে নিরাময় করা যায়, যদিও এই ধরনের অবস্থার নিরাময় করার এই ধরনের অনেকগুলি অ্যান্টিবায়োটিকের ক্ষেত্রে resistance হবার ঘটনা বাড়ছে। জটিল ঘটনাগুলির ক্ষেত্রে, শিরার মধ্য দিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে অ্যান্টিবায়োটিক কোর্স নিতে হতে পারে, আর যদি দু-তিন দিনের মধ্যে অবস্থার উন্নতি না হয়, তাহলে আবারও রোগ নির্ণয়ের জন্য অতিরিক্ত কিছু পরীক্ষা করানোর দরকার হতে পারে। মহিলাদের ক্ষেত্রে, মূত্রনালীর সংক্রমণ হল সবচেয়ে বেশি পরিচিত ব্যাকটেরিয়াঘটিত সংক্রমণ যেহেতু 10% মহিলার বছরে একবার করে মূত্রনালীর সংক্রমণ দেখা দেয়।

উপসর্গ ও লক্ষণসমূহ[সম্পাদনা]

পেচ্ছাপের সাথে পুঁজ বেরোতে পারে (এই রকমের পরিস্থিতিকে বলে pyuria) যেমনটা sepsis রোগগ্রস্ত ব্যক্তির মূত্রনালীতে সংক্রমণ হবার ফলে দেখা যেতে পারে।

মূত্রনালীর নিম্নাংশের সংক্রমণকে মূত্রথলির সংক্রমণও বলা হয়। সর্বাধিক পরিচিত উপসর্গগুলি হল burning with urination এবং ঘন ঘন পেচ্ছাপ করা (অথবা পেচ্ছাপ পাওয়া) অথচ vaginal discharge না হওয়া এবং উল্লেখযোগ্য মাত্রার ব্যথা। [১] এই উপসর্গগুলি অল্প থেকে তীব্র মাত্রার হতে পারে [২] এবং স্বাস্থ্যবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে এটা গড়ে ছয়  দিন স্থায়ী থাকে।[৩] pubic bone–র উপরের দিকে বা lower back–এর নীচের দিকে কিছুটা ব্যথা থাকতে পারে। যেসব মানুষ মূত্রনালীর উপরাংশের সংক্রমণে বা pyelonephritis-এ ভুগছেন, তারা flank pain, fever, বা বমি বমি ভাব ও vomiting ছাড়াও মূত্রনালীর নিম্নাংশের সংক্রমণের চিরাচরিত উপসর্গগুলি দেখা যেতে পারে।[২] বিরল ঘটনা হিসাবে রক্তের মতো পেচ্ছাপ [৪] বা দৃশ্যমান রকমের pyuria (পেচ্ছাপের সাথে পুঁজ) হতে পারে।[৫]

শিশুদের ক্ষেত্রে[সম্পাদনা]

কম বয়সী শিশুদের ক্ষেত্রে, মূত্রনালীর সংক্রমণ (ইউটিআই)-এর একমাত্র উপসর্গ হিসাবে জ্বর হতে পারে। আর কোন তুলনামূলক ভাবে স্পষ্ট লক্ষণ না থাকার কারণে, যখন দুই বছরের কম বয়সী মেয়েদের বা এক বছরের কম বয়সী ছেলেদের যাদের সুন্নত করা হয়নি, তাদের যদি জ্বর হয়, বহু ডাক্তারি সংগঠনের তরফ থেকে তাদের পেচ্ছাপ পরীক্ষা করানোর পরামর্শ দেওয়া হয়। শিশুরা খাওয়া-দাওয়া কমিয়ে দিতে, বমি করতে, বেশি সময় ধরে ঘুমোতে পারে, বা তাদের মধ্যে jaundice হবার লক্ষণ দেখা দিতে পারে। অপেক্ষাকৃত বড়ো শিশুদের নতুন করে নিয়ন্ত্রণহীনতা urinary incontinence (মূত্রথলির উপর নিয়ন্ত্রণ হারানো) দেখা দিতে পারে।[৬]

বয়স্কদের ক্ষেত্রে[সম্পাদনা]

মূত্রনালীর সংক্রমণের উপসর্গগুলি elderly-দের ক্ষেত্রে প্রায়ই দেখা যায় না। [৭] এর প্রকাশ অস্পষ্ট প্রকৃতির যেমন পেচ্ছাপ সংযত করতে না পারা, change in mental status, বা ক্লান্তিই একমাত্র উপসর্গ হিসাবে দেখা যেতে পারে।[২] কেউ কেউ কোন স্বাস্থ্য পরিসেবাদানকারীর কাছে প্রাথমিক উপসর্গ হিসাবে sepsis নিয়ে উপস্থিত হন, যা কিনা এক ধরনের রক্তের মধ্যে সংক্রমণ হবার ঘটনা।[৪] রোগ নির্ণয় করা মুশকিল হতে পারে কারণ ঘটনা হল অনেক বয়স্ক ব্যক্তিদেরই আগে থেকেই পেচ্ছাপ সংযত না করতে পারার সমস্যা বা dementia থাকে।[৭]

কারণ[সম্পাদনা]

80–85% ক্ষেত্রে মূত্রনালীর সংক্রমণের কারণ হল E. coli, আর 5–10% ক্ষেত্রে Staphylococcus saprophyticus হল এর কারণ। [১] বিরল ক্ষেত্রেই এর কারণ viral বা fungalঘটিত সংক্রমণ হতে পারে।[৮] অন্যান্য ব্যাকটেরিয়াঘটিত কারণগুলির মধ্যে আছে: Klebsiella, Proteus, Pseudomonas, এবং Enterobacter। এগুলি সাধারণ ক্ষেত্রে দেখা যায় না এবং বিশেষ করে মূত্র নিঃসরণ ব্যবস্থার বা urinary catheterization-র অস্বাভাবিকতার সাথে সম্পর্কিত।[৪] Staphylococcus aureus-এর কারণে মূত্রনালীর সংক্রমণগুলি বিশেষ করে রক্তবাহিত সংক্রমণের গৌণ কারণ হিসাবে দেখা যায়।[২]

যৌনতা[সম্পাদনা]

কমবয়সী যৌন-সক্রিয় মহিলাদের ক্ষেত্রে, যৌনক্রিয়াই 75–90% মূত্রথলির সংক্রমণের কারণ, যে ক্ষেত্রে যৌনক্রিয়া সংঘটনের হারের সাথে সংক্রমণের ঝুঁকি সম্পর্কিত হয়।[১] “হনিমুন সিস্টাইটিস” পরিভাষাটি এই বিয়ের শুরুর দিকের ঘনঘন মূত্রনালীর সংক্রমণের ঘটনার ক্ষেত্রেই প্রযুক্ত হয়েছে। post-menopausal মহিলাদের ক্ষেত্রে, যৌনক্রিয়ার ঘটনা মূত্রনালীর সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ায় না। যৌনক্রিয়া সংঘটনের হার যেমনই থাকনা কেন, Spermicide এর ব্যবহার মূত্রনালীর সংক্রমণের হার বাড়িয়ে দেয়।[১]

মহিলাদের মূত্রনালীর সংক্রমণের ঝুঁকি পুরুষদের থেকে বেশি কারণ, মেয়েদের ক্ষেত্রে, urethra হল অনেকটা ছোটো এবং তুলনামূলকভাবে anus এর বেশী কাছাকাছি।[৯] যেহেতু কোন মহিলার ইস্ট্রোজেনের মাত্রা menopause–র সাথে সাথে কমতে থাকে, তার মূত্রনালীর সংক্রমণে ঝুঁকি বাড়তে থাকে কারণ প্রতিরক্ষাকারী vaginal flora হ্রাস পায়।[৯]

মূত্রঘটিত ক্যাথিটারসমূহ[সম্পাদনা]

Urinary catheterization মূত্রনালীর সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ায়। bacteriuria হবার ঝুঁকি (পেচ্ছাপে ব্যাকটেরিয়া থাকা) দিন প্রতি তিন থেকে ছয় শতাংশ এবং প্রফাইল্যাকটিক অ্যান্টিবায়োটিকগুলি সংক্রমণঘটিত উপসর্গগুলি কমানোর ক্ষেত্রে কার্যকর নয়।[৯] একমাত্র যখন নেহাতই দরকার তখনই, প্রবেশ করানোর জন্য aseptic technique ব্যবহার করে, এবং ক্যাথিটারের মধ্য দিয়ে অবাধ ও বদ্ধ ধরনের নিঃসরণের ব্যবস্থা বজায় রেখে ক্যাথিটার ব্যবহার করতে পারলে তার সাথে সংশ্লিষ্ট সংক্রমণের ঝুঁকিও কমানো যেতে পারে।[১০][১১][১২]

অন্যান্য[সম্পাদনা]

বিভিন্ন পরিবারের মধ্যে মূত্রথলির সংক্রমণের প্রাকপ্রবণতা থেকে থাকতে পারে। অন্যান্য ঝুঁকির উপাদানগুলি হল diabetes,[১] uncircumcised করানো, এবং large prostate থাকা।[২] জটিলতা বাড়ানোর উপাদানগুলি বরং কিছুটা অস্পষ্ট ধরনের যার মধ্যে আছে বংশগত শারীরিক, কার্যকলাপঘটিত, বা বিপাকজনিত অস্বাভাবিকতার ধারা। কোন জটিল ধরনের মূত্রনালীর সংক্রমণ নিরাময় করা তুলনামূলক ভাবে বেশী কষ্টকর এবং সাধারণত তুলনামূলক ভাবে বেশী দ্রুত মূল্যায়ন, চিকিৎসা এবং চিকিৎসা পরবর্তী কার্যকলাপ করা দরকার হয়।[১৩] বাচ্চাদের ক্ষেত্রে মূত্রনালীর সংক্রমণের ঘটনাগুলি vesicoureteral reflux (bladder থেকে ureter গুলিতে বা kidney গুলিতে urine এর সঞ্চালনজনিত তলপেটের গতিশীলতা) এবং constipation-র সাথে সম্পর্কিত বিষয়।[৬]

যাদের spinal cord injury আছে তাদের মূত্রনালীর সংক্রমণের ঝুঁকি বেশী অংশত দীর্ঘস্থায়ী ভাবে ক্যাথিটার ব্যবহার করা, এবং অংশত voiding সংক্রান্ত কার্যকলাপের গোলমালের কারণে।[১৪] এই অঞ্চলের মানুষের ক্ষেত্রে এটাই হল সংক্রমণ হবার সবচেয়ে প্রধান কারণ, পাশাপাশি মানুষের হাসপাতালে ভর্তি হবারও এটাই সবচেয়ে প্রধান কারণ।[১৪] তাছাড়া, এখানকার মানুষের ক্ষেত্রে cranberry juice এর ব্যবহার বা ক্র্যানবেরির পরিবর্ত কিছুর ব্যবহার রোগের প্রতিরোধ এবং চিকিৎসার কাজে কার্যকর নয় বলে মনে হচ্ছে।[১৫]

রোগের কারক নির্ণয়[সম্পাদনা]

যে bacteria মূত্রনালীর সংক্রমণ ঘটায় সেটা বিশেষত মূত্রথলিতে প্রবেশ করে মূত্রনালীর মধ্য দিয়ে। যদিও, রক্ত বা lymph এর মধ্য দিয়েও এটা দেখা দিতে পারে। এমন মনে করা হয় যে ব্যাকটেরিয়া মূত্রনালীতে বাহিত হয় অন্ত্রের মধ্য দিয়ে, তাই মেয়েদের ক্ষেত্রে তাদের শারীরিক গঠনের জন্য সংক্রমণের ঝুঁকি বেশী হয়। মূত্রথলিতে প্রবেশ করার পরে E. Coliগুলি মূত্রথলির দেওয়ালে আক্রমণ করতে সক্ষম হয় এবং একটা biofilm গঠন করে যা কিনা শরীরের রোগপ্রতিরোধ জনিত প্রতিক্রিয়াকে প্রতিরোধ করে।[৪]

রোগ প্রতিরোধ[সম্পাদনা]

বেশ কিছু সংখ্যক বিধান মূত্রনালীর সংক্রমণকে প্রভাবিত করতে পারে কিনা সেই বিষয়ে সুনিশ্চিত হওয়া যায়নি যার মধ্যে আছে: birth control pills বা condoms ব্যবহার করা, সঙ্গমের ঠিক পরেই পেচ্ছাপ করা, ব্যবহৃত অন্তর্বাসের ধরন, পেচ্ছাপ বা defecating করার পরের ব্যক্তিগত পরিচ্ছন্নতার পদ্ধতিসমূহ, বা কোন ব্যক্তি বিশেষ কোনো ধরনের স্নান করা বা শাওয়ার ব্যবহার করেন কিনা।[১] একই ভাবে, পেচ্ছাপ চেপে রাখা, tampon-র ব্যবহার, এবং ডুশ দেওয়ার ফলাফল বিষয়েও প্রামাণ্য তথ্যের অভাব আছে।[৯]

যাদের ঘনঘন মূত্রনালীর সংক্রমণ হয় তেমন যারা গর্ভনিরোধক হিসাবে শুক্রাণুনাশক বা কোন ডায়াফ্রাম ব্যবহার করেন, তাদের পরামর্শ দেওয়া হয় যেন বিকল্প ব্যবস্থাসমূহ অবলম্বন করেন।[৪] Cranberry (রস বা ক্যাপসুলগুলি) যাদের ঘনঘন সংক্রমণের ঘটনা হয় তাদের সমস্যা কমিয়ে দিতে পারে,[১৬][১৭] কিন্তু দীর্ঘমেয়াদী ব্যবহারের পরে জীবাণুদের সহ্যশক্তি বেড়ে যাওয়াটা একটা সমস্যা [১৬] যার সাথে পৌষ্টিক তন্ত্রের গোলমালের ঘটনা হতেও 30%–র বেশী ক্ষেত্রেই দেখা যায়।[১৮] দেনে একবার করে ব্যবহার করার চেয়ে দিনে দুই বার ব্যবহার করা হলে অপেক্ষাকৃত ফলপ্রসূ হতে পারে।[১৯] 2011 পর্যন্ত যা জানা যায়, যোনির ভেতরে probiotics ব্যবহারের উপকারী ফলাফল আছে কিনা সেটা জানার জন্য আরও বেশি অধ্যয়ন করা দরকার হবে।[৪] spermicide ছাড়া কনডোমের ব্যবহার বা জন্ম নিয়ন্ত্রণের বটিকা খাওয়ার ফলে জটিল নয় এমন মূত্রনালীর সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ায় না।[২০]

ওষুধপত্র[সম্পাদনা]

যাদের বার বার সংক্রমণ হয়, তাদের ক্ষেত্রে একবার দীর্ঘস্থায়ী দৈনিক অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্স করে নেওয়াটা কার্যকর।[১] প্রায়শ ব্যবহৃত ওষুধগুলির মধ্যে আছে nitrofurantoin এবং trimethoprim/sulfamethoxazole[৪]Methenamine হল এমন আরেকটা এজেন্ট যাকে প্রায়ই এই কারণে ব্যবহার করা হয় কারণ মূত্রথলিতে যেখানে অম্লতা কম, সেখানে এটা formaldehyde উৎপাদন করে যার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে উঠতে পারে না।[২১] যেসব ক্ষেত্রে সংক্রমণ হবার ঘটনা সঙ্গমের সাথে সম্পর্কিত, সে ক্ষেত্রে সঙ্গমের পরে অ্যান্টিবায়োটিক খেয়ে নেওয়া হলে সেটা কার্যকর হতে পারে। [৪] রজোনিবৃত্ত মহিলাদের ক্ষেত্রে, যোনির topical দিকে estrogen দেওয়া হলে সেটা বার বার সংক্রমণ হওয়া কমাতে পারে বলে দেখা গিয়েছে। ত্বকের উপরিতলে ক্রিম লাগানোর বদলে, pessaries-র মাধ্যমে অল্প মাত্রার অ্যান্টিবায়োটিক হিসাবে যোনিপথে ইস্ট্রোজেন দিলে সেটা কার্যকর হয়নি।[২২] 2011 সাল নাগাদ যেমন জানা যাচ্ছে বেশ কিছু vaccine তৈরি করা হচ্ছে।[৪]

শিশুদের ক্ষেত্রে[সম্পাদনা]

অ্যান্টিবায়োটিকগুলো যে বাচ্চাদের মূত্রনালীর সংক্রমণ কমাতে পারে এমন ধারণার সপক্ষে প্রমাণ খুব দুর্বল।[২৩] অবশ্য বার বার মূত্রনালীর সংক্রমণের ফলে কিডনির সমস্যা ঘটানোর সম্ভাবনা বিরল যদি না ভিতরে ভিতরে কিডনির অন্য কোন গোলমাল থেকে থাকে, যার ফলে এক শতাংশের তিন ভাগের এক ভাগের কম (0.33%) প্রাপ্তবয়স্ক রোগীদের chronic kidney disease হতে পারে।[২৪]

রোগনির্ণয়[সম্পাদনা]

বহু bacilli (দণ্ডাকৃতি ব্যাকটেরিয়া, এখানে কালো রঙের এবং সিম বীজের মতো আকৃতি সম্পন্ন) পেচ্ছাপের আণুবীক্ষণিক দৃশ্যের মধ্যে শ্বেত রক্তকণিকাগুলির মাঝে দেখানো হয়েছে। এই ধরনের পরিবর্তনগুলি মূত্রনালীর সংক্রমণকে সূচিত করে।

সাধারণ ঘটনাগুলির ক্ষেত্রে, রোগনির্ণয় ও চিকিৎসা কেবলমাত্র উপসর্গগুলির উপর নির্ভর করে ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করে সুনিশ্চিত না হয়েই করা যেতে পারে। কোন জটিল বা সন্দেহজনক ক্ষেত্রে, রোগনির্ণয় সুনিশ্চিত করতে urinalysis করানো দরকার যেন urinary nitriteসমূহ, white blood cells (লিউকোসাইটসমূহ), বা leukocyte esterase আছে কিনা সেটা নিশ্চিত হওয়া যায়। আরেকটি পরীক্ষা, urine microscopy, করালে red blood cells, শ্বেতরক্ত কণিকা, বা ব্যাকটেরিয়ার উপস্থিতি বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়। পেচ্ছাপের culture করানো হলে যদি তাতে ব্যাকটেরিয়ার কলোনির সংখ্যা প্রতি mL-এ সাধারণ মূত্রনালীর জীবাণু 103 colony-forming unit এর সমান বা তার বেশী দেখায়, সেটাকে ইতিবাচক ভাবে উপস্থিতি আছে বলে ধরে নেওয়া হবে। অ্যান্টিবায়োটিকের সংবেদনশীলতা পরীক্ষা করার জন্যও এই কালচার করা যেতে পারে, যা কিনা সঠিক অ্যান্টিবায়োটিক নির্বাচন করে চিকিৎসা করার ব্যাপারে বেশ কার্যকর। অবশ্য, যেসব মহিলাদের কালচারের ফল নেতিবাচক হয়, তাদের ক্ষেত্রেও অ্যান্টিবায়োটিক দিয়ে চিকিৎসা করানো হলে অবস্থার উন্নতি হতে পারে।[১] যেহেতু উপসর্গগুলি অস্পষ্ট ধরনের হতে পারে এবং বিশ্বাসযোগ্য ভাবে মূত্রনালীর সংক্রমণের পরীক্ষা না করানো হলে বয়স্কদের ক্ষেত্রে রোগনির্ণয় করা কষ্টকর হতে পারে।[৭]

শ্রেণীবিভাগ[সম্পাদনা]

মূত্রনালীর সংক্রমণ বলতে কেবলমাত্র মূত্রনালীর নিম্নাংশের কথা বোঝানো হতে পারে, সে ক্ষেত্রে এটাকে মূত্রথলির সংক্রমণ বলা হয়। এর বদলে, মূত্রনালীর উপরাংশের সংক্রমণও হতে পারে, সে ক্ষেত্রে একে পাইলোনেফ্রাইটিস বলা হয়। যদি পেচ্ছাপের সাথে উল্লেখযোগ্য মাত্রায় ব্যাকটেরিয়া থাকে কিন্তু কোন উপসর্গ না থাকে, তাহলে সেই অবস্থাকে অ্যাসিম্পটোম্যাটিক (উপসর্গবিহীন) ব্যাকটেরিউরিয়া বলা হয়।[২] যদি কোন মূত্রনালীর সংক্রমণের ক্ষেত্রে নালীর উপরাংশ প্রভাবিত হয়ে থাকে, এবং ব্যক্তিটির diabetes mellitus থেকে থাকে, গর্ভবতী হয়ে থাকেন, তিনি যদি পুরুষ হন, বা immunocompromised হয়ে থাকেন, তাহলে তাকে জটিল সংক্রমণ বলা হয়।[৩][৪] এর বদলে যদি কোন মহিলা স্বাস্থ্যবতী এবং premenopausal অবস্থায় থেকে থাকেন, তাহলে তাকে সরল ধরনের সংক্রমণ বলা হয়।[৩] শিশুদের ক্ষেত্রে, যখন কোন মূত্রনালীর সংক্রমণের সাথে সাথে জ্বর হয়, তখন ধরা হয় যে সংক্রমণটা মূত্রনালীর সংক্রমণ মূত্রনালীর উপরাংশে হয়েছে।[৬]

শিশুদের ক্ষেত্রে[সম্পাদনা]

শিশুদের ক্ষেত্রে, কোন মূত্রনালীর সংক্রমণের রোগনির্ণয় করতে হলে, একবার পেচ্ছাপের কালচার ইতিবাচক হওয়া প্রয়োজন। কোন ধরনের পদ্ধতিতে নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে তার উপর নির্ভর করে মাঝে মাঝেই দূষণ ছড়ানোর সমস্যা একটা চ্যালেঞ্জ হিসাবে দেখা দেয়, তাই 105 CFU/mL কে ক্রান্তীয় সীমা ধরে নিয়ে “পরিষ্কার নমুনা” মধ্যবর্তী ধারা প্রবাহ থেকে সংগ্রহ করা হয়, 104 CFU/mL কে ক্রান্তীয় সীমা ধরে নিয়ে তার থেকে ক্যাথিটার থেকে পাওয়া নমুনা সংগ্রহ করা হয়, এবং 102 CFU/mL কে ক্রান্তীয় সীমা ধরে নিয়ে suprapubic aspirationসমূহ (এমন এক নমুনা যা কিনা সরাসরি মূত্রথলি থেকে কোন সূচের সাহায্যে) সংগ্রহ করা হয়। World Health Organization এর তরফ থেকে নমুনা সংগ্রহের জন্য “ইউরিন ব্যাগ” ব্যবহার করাকে নিরুৎসাহিত করা হয় কারণ কালচার করার সময় দূষণ ছড়ানর হাত খুব বেশি হয়, এবং যাদের যথাযথ ভাবে টয়লেট ব্যবহার করার প্রশিক্ষণ নেই, তাদের ক্ষেত্রেও ক্যাথিটার ব্যবহার করার বিকল্পই শ্রেয় মনে করা হয়। কোন কোন সংস্থা যেমন, American Academy of Pediatrics সুপারিশ করে যেন যেসব শিশুর দুই বছরের কম বয়সে মূত্রনালীর সংক্রমণ হয়েছে তাদের ক্ষেত্রে যেন renal ultrasound এবং voiding cystourethrogram (পেচ্ছাপ করার সময় তাদের মূত্রনালী ও মূত্রথলি এক্স-রে দিয়ে সরাসরি দেখে বিচার করে) ব্যবহার করা হয়। অবশ্য, যেহেতু সমস্যা যদি ধরা পড়ে সেক্ষেত্রে কোন কার্যকর চিকিৎসার পদ্ধতির অভাব আছে, তাই অন্যান্যরা যেমন, National Institute for Clinical Excellence সুপারিশ করে যেন যেসব শিশুর বয়স ছয় মাসের কম বা যাদের ক্ষেত্রে অস্বাভাবিক ধরনের কিছু পাওয়া গেছে, কেবল তাদের ক্ষেত্রেই নিয়মিত চিত্রগ্রহণ করা হয়।[৬]

তুলনাত্মক রোগনির্ণয়[সম্পাদনা]

মহিলাদের যাদের cervicitis (cervix ফুলে যাওয়া) বা vaginitis (vagina ফুলে যাওয়া)-র সমস্যা হয় এবং কমবয়সী পুরুষদের যাদের মূত্রনালীর সংক্রমণের উপসর্গগুলি দেখা যায়, সেটা কোন Chlamydia trachomatis বা Neisseria gonorrheae–র কারণে সংক্রমণ হওয়ার জন্যই হতে পারে।[২][২৫] ভ্যাজিনাইটিস কোন yeast infection–র কারণেও হতে পারে।[২৬] Interstitial cystitis (মূত্রথলিতে দীর্ঘ দিনের ব্যথা) হয়েছে বলে তাদের ক্ষেত্রেই ধারণা করা যেতে পারে যারা বহুবার মূত্রনালীর সংক্রমণ হবার অভিজ্ঞতার কথা বলেন কিন্তু যাদের পেচ্ছাপের কালচার করলে নেতিবাচক ফল পাওয়া যায় এবং অ্যান্টিবায়োটিক দিলেও অবস্থার উন্নতি হয় না।[২৭] Prostatitis (prostate ফুলে যাওয়া)-র কথাও তুলনামূলক রোগনির্ণয়ের সময় বিবেচনা করা যেতে পারে।[২৮]

চিকিৎসা[সম্পাদনা]

চিকিৎসা করার প্রধান উপাদান হল antibioticসমূহ। কখনো কখনো প্রথম কিছু দিনের জন্য অ্যান্টিবায়োটিকের সাথে Phenazopyridine দেবার কথা সুপারিশ করা হয় জ্বালা করা এবং মূত্রথলির সংক্রমণের ক্ষেত্রে জরুরিকালীন অবস্থার জন্য।[২৯] অবশ্য, এর ব্যবহারের সাথে সংশ্লিষ্ট বিপদের সম্ভাবনার কথা মাথায় রেখে এমন সুপারিশ রুটিনমাফিক ভাবে করে যাওয়া হয় না, বিশেষত এতে methemoglobinemia (রক্তে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি মাত্রায় methemoglobin থেকে যাওয়া) হবার ঝুঁকি বেড়ে যায়।[৩০] জ্বর হলে Acetaminophen (প্যারাসিটামল) ব্যবহার করা যেতে পারে।[৩১]

যেসব মহিলাদের বার বার সরল ধরনের মূত্রনালীর সংক্রমণ হয়, প্রাথমিক চিকিৎসা বিফল হল, তারা উপসর্গ দেখা দিলেই নিজেই নিজের চিকিৎসা করলেও উপকার পেতে পারেন কেবলমাত্র যদি চিকিৎসা পরবর্তী নির্দেশিকা মেনে চলা হয়। ফোন করে কোন ফার্মাসিস্টকে অ্যান্টিবায়োটিক দেবার সুপারিশ করা যেতে পারে।[১]

সরল ধরনের সংক্রমণ[সম্পাদনা]

সরল ধরনের সংক্রমণের ঘটনাগুলিতে কেবলমাত্র উপসর্গের উপর ভিত্তি করেই রোগনির্ণয় এবং চিকিৎসা করা যায়।[১] যদি সব কিছু সমানভাবে কার্যকর থাকে, গিলে খাবার মতো অ্যান্টিবায়োটিকসমূহ যেমন, trimethoprim/sulfamethoxazole (টিএমপি/এসএমএক্স),cephalosporinসমূহ, nitrofurantoin, বা কোন fluoroquinolone খেলে উল্লেখযোগ্য রকম সময়ে সেরে উঠতে পারে।[৩২] সাধারণত ট্রাইমিথোপ্রিম, টিএমপি/এসএমএক্স, বা কোন ফ্লোরোকুইনোলোন দিয়ে তিন দিন ঘরে চিকিৎসা করলে সেটাই যথেষ্ট হয়, অপর দিকে নাইট্রোফুরানটোইন দিলে 5–7 দিন লাগে।[১][৩৩] চিকিৎসা করালে, 36 ঘণ্টার মধ্যেই উপসর্গগুলি ভালো হতে থাকবে। [৩] চিকিৎসা না করালেও প্রায় 50% মানুষ অল্প কয়েক দিন বা সপ্তাহের মধ্যেই সেরে ওঠেন।[১] Infectious Diseases Society of America প্রথম চিকিৎসা করার ক্ষেত্রে ফ্লোরোকুইনোলোন দেবার সুপারিশ করেন না কারণ এই শ্রেণীর ওষুধের ক্ষেত্রে resistance গড়ে ওঠার বিপদ থাকে।[৩৩] এই সতর্কতা নেবার পরেও, এই সমস্ত ওষুধের ক্ষেত্রেই এদের ব্যাপক ব্যবহারের ফলে জীবাণুগুলির কিছুটা প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে উঠেছে।[১] কোন কোন দেশে একা Trimethoprim-কেই টিএমপি/এসএমএক্স বলে মনে করা হয়।[৩৩] সাধারণ মূত্রনালীর সংক্রমণের ক্ষেত্রে, বাচ্চারা প্রায়ই একবার তিন দিনের অ্যান্টিবায়োটিক কোর্স করলে চিকিৎসায় সাড়া পাওয়া যায়।[৩৪]

পাইলোনেফ্রাইটিস[সম্পাদনা]

সাধারণ মূত্রথলির সংক্রমণের তুলনায় পাইলোনেফ্রাইটিসের চিকিৎসা বেশি জরুরিভিত্তিতে হয় গিলে খাবার মতো কোন অ্যান্টিবায়োটিকের অপেক্ষাকৃত দীর্ঘস্থায়ী কোর্স দিয়ে করা হয় বা intravenous অ্যান্টিবায়োটিকগুলি দেওয়া হয়।[৩৫] যেসব স্থানে জীবাণুদের ওষুধের প্রতি প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে ওঠার হার 10% এর কম সেখানে বিশেষ করে সাত দিনের ফ্লুয়োরোকুইনোলোন ciprofloxacin খাওয়ানো হয়। যদি স্থানীয় জীবাণুদের ওষুধের প্রতি প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে ওঠার হার 10% এর বেশি হয়, সেক্ষেত্রে প্রায়ই একবার শিরার মধ্য দিয়ে ceftriaxone দেবার সুপারিশ করা হয়। যাদের ক্ষেত্রে আরও তীব্র উপসর্গসমূহ দেখা দেয়, চলতি অ্যান্টিবায়োটিকের জন্য হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার দরকার হতে পারে।[৩৫] যদি দুই বা তিন দিন চিকিৎসা করার পরেও উপসর্গগুলির ক্ষেত্রে উন্নতির লক্ষণ দেখা না যায় তাহলে কোন kidney stone এর কারণে urinary obstruction এর মতো জটিলতা দেখা দেবার সম্ভাবনার কথা বিবেচনা করা যেতে পারে।[২][৩৫]

এপিডেমিয়োলজি (রোগ নিয়ন্ত্রণ)[সম্পাদনা]

মহিলাদের ক্ষেত্রে সবচেয়ে ঘনঘন ব্যাকটেরিয়া ঘটিত সংক্রমণ ঘটনা ঘটে মূত্রনালীর সংক্রমণের জন্যই।[৩] এগুলি সবচেয়ে ঘনঘন ঘটে 16 থেকে 35 বছর বয়সে, যার মধ্যে 10% মহিলারা প্রতি বছরেই আক্রান্ত হন এবং 60% মহিলারা জীবনের কোন না কোন সময় অন্তত একবার আক্রান্ত হন। [১][৪] ঘুরে ঘুরে সংক্রমণ হওয়াটা সাধারণ ঘটনা, যার মধ্যে প্রায় অর্ধেক সংখ্যক মানুষেরই এক বছরের মধ্যেই দ্বিতীয়বার আক্রান্ত হন। মহিলাদের ক্ষেত্রে পুরুষদের তুলনায় চার গুণ বেশি ঘনঘন মূত্রনালীর সংক্রমণের ঘটনা হয়।[৪] পাইলোনেফ্রাইটিস তুলনামূলক ভাবে 20–30 গুণ কম ঘনঘন হয়।[১] hospital acquired infections হবার এগুলি হল সবচেয়ে সাধারণ কারণ যা গণনা করলে প্রায় 40%–এ এসে দাঁড়ায়।[৩৬] উপসর্গ না দেখা যাবার ধরনের পেচ্ছাপে ব্যাকটেরিয়া থাকার মতো ঘটনার হার মহিলাদের বয়স বাড়ার সাথে সাথে সন্তান ধারণের মতো বয়সী মহিলাদের ক্ষেত্রে দুই থেকে সাত শতাংশ থেকে শুরু করে সেবা করার জন্য হোম-এ থাকা বয়স্ক মহিলাদের ক্ষেত্রে 50% পর্যন্ত হয়।[৯] উপসর্গ না দেখা যাবার ধরনের পেচ্ছাপে ব্যাকটেরিয়া থাকার মতো ঘটনার হার পুরুষদের ক্ষেত্রে যাদের বয়স 75 এর বেশী তাদের 7-10% হয়।[৭]

10% মানুষ ছোটো বেলায় মূত্রনালীর সংক্রমণ দ্বারা আক্রান্ত হতে পারেন।[৪] তিন মাসের কম বয়সী পুরুষ শিশুদের যাদের সুন্নত করানো হয়নি, তাদের মূত্রনালীর সংক্রমণ খুবই পরিচিত ঘটনা, যার পরেই আছে এক বছরের কম বয়সী মেয়েদের সংক্রমণ ঘটনা।[৬] অবশ্য আনুমানিক হিসাবে বাচ্চাদের মধ্যে বার বার সংক্রমণের প্রবণতার ব্যাপক মাত্রায় হেরফের হতে দেখা যায়। এক দল বাচ্চাদের যাদের জ্বর হয়েছিল, যাদের বয়স সদ্যোজাত থেকে দুই বছরের মধ্যে, তাদের দুই থেকে 20%-দের মধ্যে মূত্রনালীর সংক্রমণ হয়েছিল বলে রোগ নির্ণীত হয়েছে।[৬]

সমাজ ও সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

ইউনাইটেড স্টেটস্‌-এ প্রতি বছরে মূত্রনালীর সংক্রমণের হিসাব হল প্রায় সত্তর লক্ষ বার ডাক্তারের অফিসে দেখা করা, দশ লক্ষ বা জরুরিকালীন পরিষেবা দানের বিভাগে দেখা করা, এবং এক লক্ষ বার হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার ঘটনা।[৪] এই সব সংক্রমণ নিরাময়ের খরচ, কাজে যেতে না পারার জন্য সময়ের অপব্যয় এবং ডাক্তারি পরিসেবা পাবার খরচের দিক থেকে বেশ উল্লেখযোগ্য। ইউনাইটেড স্টেটস্‌-এ চিকিৎসা করানোর প্রত্যক্ষ খরচ প্রতি বছরে 1.6 হাজার কোটি  মার্কিন ডলার বলে আনুমানিক হিসাব করা হয়।[৩৬]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

প্রাচীন কাল থেকেই মূত্রনালীর সংক্রমণের কথা বর্ণিত হয়েছে যার প্রথম লিপিবদ্ধ বর্ণনা 1550 খ্রিস্টপূর্বাব্দে লেখা Ebers Papyrus-এ পাওয়া যায়।[৩৭] একে মিশরীয়রা বর্ণনা করেছেন “মূত্রথলি থেকে চতুর্থ তাপ পাঠানো” বলে।[৩৮] এর কার্যকর চিকিৎসা 1930 এর দিকে অ্যান্টিবায়োটিকের বিকাশ ও প্রাপ্যতা সম্ভব হবার আগে দেখা যায়নি, যার আগে পর্যন্ত ভেষজ চিকিৎসা, bloodletting এবং বিশ্রাম নেবার পরামর্শ দেওয়া হত।[৩৭]

গর্ভাবস্থায়[সম্পাদনা]

মূত্রনালীর সংক্রমণসমূহ pregnancy–র সময় আরও চিন্তার বিষয় হয়ে ওঠে কারণ তার ফলে কিডনিতে সংক্রমণের সম্ভাবনা দেখা যায়। গর্ভাবস্থা থাকাকালীন, উচ্চ মাত্রায় থাকার ফলে ইউরেটারগুলির এবং মূত্রথলির মাংসপেশির আস্তরণ কমে যাবার ঝুঁকি দেখা যায়, যার রিফ্লাক্স বা ভাঁটা হবার পরিণতির দিকে যেতে পারে, যেটা হলে পেচ্ছাপ পেছনের দিকে গিয়ে মূত্রনালী দিয়ে কিডনিগুলোর দিকে প্রবাহিত হয়। এক দিকে যেমন গর্ভবতী মহিলাদের উপসর্গবিহীন ব্যাকটেরিউরিয়া হবার কোন ক্রমবর্ধমান ঝুঁকি থাকে না, তেমনি যদি ব্যাকটেরিউরিয়া উপস্থিত থাকতে দেখা যায় তাহলে 25-40% ক্ষেত্রে তাদের কিডনিতে সংক্রমণ হবার ঝুঁকি থাকে।[৯] তাই, যদি পরীক্ষা করালে সংক্রমণের চিহ্ন দেখা যায়—এমনকি যদি উপসর্গ না দেখা গেলেও—চিকিৎসা শুরু করানোর সুপারিশ করা হয়।বিশেষত Cephalexin বা nitrofurantoin ব্যবহার করা হয় কারণ তারা সাধারণত গর্ভাবস্থায় নিরাপদ বলে মনে করা হয়।[৩৯] গর্ভাবস্থায় কোন কিডনির সংক্রমণ হলে তার ফলে premature birth বা pre-eclampsia (high blood pressure হবার অবস্থা এবং গর্ভাবস্থায় কিডনির গোলমালের পরিণতিতে seizures হতে পারে।)।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০০ ১.০১ ১.০২ ১.০৩ ১.০৪ ১.০৫ ১.০৬ ১.০৭ ১.০৮ ১.০৯ ১.১০ ১.১১ ১.১২ ১.১৩ ১.১৪ Nicolle LE (2008)। "Uncomplicated urinary tract infection in adults including uncomplicated pyelonephritis"। Urol Clin North Am 35 (1): 1–12, v। ডিওআই:10.1016/j.ucl.2007.09.004পিএমআইডি 18061019 
  2. ২.০ ২.১ ২.২ ২.৩ ২.৪ ২.৫ ২.৬ ২.৭ Lane, DR; Takhar, SS (2011 Aug)। "Diagnosis and management of urinary tract infection and pyelonephritis."। Emergency medicine clinics of North America 29 (3): 539–52। ডিওআই:10.1016/j.emc.2011.04.001পিএমআইডি 21782073  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  3. ৩.০ ৩.১ ৩.২ ৩.৩ ৩.৪ Colgan, R; Williams, M (2011-10-01)। "Diagnosis and treatment of acute uncomplicated cystitis."। American family physician 84 (7): 771–6। পিএমআইডি 22010614  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  4. ৪.০০ ৪.০১ ৪.০২ ৪.০৩ ৪.০৪ ৪.০৫ ৪.০৬ ৪.০৭ ৪.০৮ ৪.০৯ ৪.১০ ৪.১১ ৪.১২ ৪.১৩ Salvatore, S; Salvatore, S, Cattoni, E, Siesto, G, Serati, M, Sorice, P, Torella, M (2011 Jun)। "Urinary tract infections in women."। European journal of obstetrics, gynecology, and reproductive biology 156 (2): 131–6। ডিওআই:10.1016/j.ejogrb.2011.01.028পিএমআইডি 21349630  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  5. Arellano, Ronald S.। Non-vascular interventional radiology of the abdomen। New York: Springer। পৃ: 67। আইএসবিএন 978-1-4419-7731-1 
  6. ৬.০ ৬.১ ৬.২ ৬.৩ ৬.৪ ৬.৫ Bhat, RG; Katy, TA, Place, FC (2011 Aug)। "Pediatric urinary tract infections."। Emergency medicine clinics of North America 29 (3): 637–53। ডিওআই:10.1016/j.emc.2011.04.004পিএমআইডি 21782079  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  7. ৭.০ ৭.১ ৭.২ ৭.৩ Woodford, HJ; George, J (2011 Feb)। "Diagnosis and management of urinary infections in older people."। Clinical medicine (London, England) 11 (1): 80–3। পিএমআইডি 21404794  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  8. Amdekar, S; Singh, V, Singh, DD (2011 Nov)। "Probiotic therapy: immunomodulating approach toward urinary tract infection."। Current microbiology 63 (5): 484–90। ডিওআই:10.1007/s00284-011-0006-2পিএমআইডি 21901556  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  9. ৯.০ ৯.১ ৯.২ ৯.৩ ৯.৪ ৯.৫ ৯.৬ Dielubanza, EJ; Schaeffer, AJ (2011 Jan)। "Urinary tract infections in women."। The Medical clinics of North America 95 (1): 27–41। ডিওআই:10.1016/j.mcna.2010.08.023পিএমআইডি 21095409  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  10. Nicolle LE (2001)। "The chronic indwelling catheter and urinary infection in long-term-care facility residents"। Infect Control Hosp Epidemiol 22 (5): 316–21। ডিওআই:10.1086/501908পিএমআইডি 11428445 
  11. Phipps S, Lim YN, McClinton S, Barry C, Rane A, N'Dow J (2006)। Short term urinary catheter policies following urogenital surgery in adults। in Phipps, Simon। "Cochrane Database of Systematic Reviews"। Cochrane Database Syst Rev (2): CD004374। ডিওআই:10.1002/14651858.CD004374.pub2পিএমআইডি 16625600 
  12. Gould CV, Umscheid CA, Agarwal RK, Kuntz G, Pegues DA (2010)। "Guideline for prevention of catheter-associated urinary tract infections 2009"। Infect Control Hosp Epidemiol 31 (4): 319–26। ডিওআই:10.1086/651091পিএমআইডি 20156062 
  13. Infectious Disease, Chapter Seven, Urinary Tract Infections from Infectious Disease Section of Microbiology and Immunology On-line. By Charles Bryan MD. University of South Carolina. This page last changed on Wednesday, April 27, 2011
  14. ১৪.০ ১৪.১ Eves, FJ; Rivera, N (2010 Apr)। "Prevention of urinary tract infections in persons with spinal cord injury in home health care."। Home healthcare nurse 28 (4): 230–41। ডিওআই:10.1097/NHH.0b013e3181dc1bcbপিএমআইডি 20520263  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  15. Opperman, EA (2010 Jun)। "Cranberry is not effective for the prevention or treatment of urinary tract infections in individuals with spinal cord injury."। Spinal cord 48 (6): 451–6। ডিওআই:10.1038/sc.2009.159পিএমআইডি 19935757 
  16. ১৬.০ ১৬.১ Jepson RG, Craig JC (2008)। Cranberries for preventing urinary tract infections। in Jepson, Ruth G। "Cochrane Database of Systematic Reviews"। Cochrane Database Syst Rev (1): CD001321। ডিওআই:10.1002/14651858.CD001321.pub4পিএমআইডি 18253990 
  17. Wang CH, Fang CC, Chen NC et al (2012)। "Cranberry-containing products for prevention of urinary tract infections in susceptible populations"। Arch Intern Med 172 (13): 988–96। ডিওআই:10.1001/archinternmed.2012.3004 
  18. Rossi, R; Porta, S, Canovi, B (2010 Sep)। "Overview on cranberry and urinary tract infections in females."। Journal of Clinical Gastroenterology। 44 Suppl 1: S61–2। ডিওআই:10.1097/MCG.0b013e3181d2dc8eপিএমআইডি 20495471  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  19. Wang, CH; Fang, CC; Chen, NC; Liu, SS; Yu, PH; Wu, TY; Chen, WT; Lee, CC; Chen, SC (2012 July 9)। "Cranberry-containing products for prevention of urinary tract infections in susceptible populations: a systematic review and meta-analysis of randomized controlled trials."। Archives of Internal Medicine 172 (13): 988–96। পিএমআইডি 22777630  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  20. Engleberg, N C; DiRita, V; Dermody, T S (2007)। "63"। Schaechter's Mechanism of Microbial Disease (4 সংস্করণ)। Baltimore: Lippincott Williams & Wilkins। 618। আইএসবিএন 978-0-7817-5342-5 
  21. Cubeddu, Richard Finkel, Michelle A. Clark, Luigi X. (2009)। Pharmacology (4th ed. সংস্করণ)। Philadelphia: Lippincott Williams & Wilkins। পৃ: 397। আইএসবিএন 9780781771559 
  22. Perrotta, C; Aznar, M, Mejia, R, Albert, X, Ng, CW (2008-04-16)। "Oestrogens for preventing recurrent urinary tract infection in postmenopausal women."। Cochrane database of systematic reviews (Online) (2): CD005131। ডিওআই:10.1002/14651858.CD005131.pub2পিএমআইডি 18425910  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  23. Dai, B; Liu, Y; Jia, J; Mei, C (2010)। "Long-term antibiotics for the prevention of recurrent urinary tract infection in children: a systematic review and meta-analysis"। Archives of Disease in Childhood 95 (7): 499–508। ডিওআই:10.1136/adc.2009.173112পিএমআইডি 20457696 
  24. Salo, J; Ikäheimo, R, Tapiainen, T, Uhari, M (2011 Nov)। "Childhood urinary tract infections as a cause of chronic kidney disease."। Pediatrics 128 (5): 840–7। ডিওআই:10.1542/peds.2010-3520পিএমআইডি 21987701  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  25. Raynor, MC; Carson CC, 3rd (2011 Jan)। "Urinary infections in men."। The Medical clinics of North America 95 (1): 43–54। ডিওআই:10.1016/j.mcna.2010.08.015পিএমআইডি 21095410  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  26. Leung, David Hui ; edited by Alexander; Padwal, Raj। Approach to internal medicine : a resource book for clinical practice (3rd ed. সংস্করণ)। New York: Springer। পৃ: 244। আইএসবিএন 978-1-4419-6504-2  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  27. Kursh, edited by Elroy D.; Ulchaker, James C. (2000)। Office urology। Totowa, N.J.: Humana Press। পৃ: 131। আইএসবিএন 978-0-89603-789-2  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  28. Walls, authors, Nathan W. Mick, Jessica Radin Peters, Daniel Egan ; editor, Eric S. Nadel ; advisor, Ron (2006)। Blueprints emergency medicine (2nd ed. সংস্করণ)। Baltimore, Md.: Lippincott Williams & Wilkins। পৃ: 152। আইএসবিএন 978-1-4051-0461-6 
  29. Gaines, KK (2004 Jun)। "Phenazopyridine hydrochloride: the use and abuse of an old standby for UTI."। Urologic nursing 24 (3): 207–9। পিএমআইডি 15311491 
  30. Aronson, edited by Jeffrey K. (2008)। Meyler's side effects of analgesics and anti-inflammatory drugs। Amsterdam: Elsevier Science। পৃ: 219। আইএসবিএন 978-0-444-53273-2 
  31. Glass, [edited by] Jill C. Cash, Cheryl A. (2010)। Family practice guidelines (2nd ed. সংস্করণ)। New York: Springer। পৃ: 271। আইএসবিএন 978-0-8261-1812-7 
  32. Zalmanovici Trestioreanu A, Green H, Paul M, Yaphe J, Leibovici L (2010)। Antimicrobial agents for treating uncomplicated urinary tract infection in women। in Zalmanovici Trestioreanu, Anca। "Cochrane Database of Systematic Reviews"। Cochrane Database Syst Rev 10 (10): CD007182। ডিওআই:10.1002/14651858.CD007182.pub2পিএমআইডি 20927755 
  33. ৩৩.০ ৩৩.১ ৩৩.২ Gupta, K; Hooton, TM, Naber, KG, Wullt, B, Colgan, R, Miller, LG, Moran, GJ, Nicolle, LE, Raz, R, Schaeffer, AJ, Soper, DE, Infectious Diseases Society of, America, European Society for Microbiology and Infectious, Diseases (2011-03-01)। "International clinical practice guidelines for the treatment of acute uncomplicated cystitis and pyelonephritis in women: A 2010 update by the Infectious Diseases Society of America and the European Society for Microbiology and Infectious Diseases."। Clinical infectious diseases : an official publication of the Infectious Diseases Society of America 52 (5): e103–20। ডিওআই:10.1093/cid/ciq257পিএমআইডি 21292654  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  34. "BestBets: Is a short course of antibiotics better than a long course in the treatment of UTI in children" 
  35. ৩৫.০ ৩৫.১ ৩৫.২ Colgan, R; Williams, M, Johnson, JR (2011-09-01)। "Diagnosis and treatment of acute pyelonephritis in women."। American family physician 84 (5): 519–26। পিএমআইডি 21888302  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  36. ৩৬.০ ৩৬.১ Brunner & Suddarth's textbook of medical-surgical nursing. (12th ed. সংস্করণ)। Philadelphia: Wolters Kluwer Health/Lippincott Williams & Wilkins। 2010। পৃ: 1359। আইএসবিএন 978-0-7817-8589-1 
  37. ৩৭.০ ৩৭.১ Al-Achi, Antoine (2008)। An introduction to botanical medicines : history, science, uses, and dangers। Westport, Conn.: Praeger Publishers। পৃ: 126। আইএসবিএন 978-0-313-35009-2 
  38. Wilson...], [general ed.: Graham (1990)। Topley and Wilson's Principles of bacteriology, virology and immunity : in 4 volumes (8. ed. সংস্করণ)। London: Arnold। পৃ: 198। আইএসবিএন 0-7131-4591-9 
  39. Guinto VT, De Guia B, Festin MR, Dowswell T (2010)। Different antibiotic regimens for treating asymptomatic bacteriuria in pregnancy। in Guinto, Valerie T। "Cochrane Database of Systematic Reviews"। Cochrane Database Syst Rev (9): CD007855। ডিওআই:10.1002/14651858.CD007855.pub2পিএমআইডি 20824868