ব্রাঞ্জেলিনা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ফেব্রুয়ারি ২০০৯-এ ৮১তম অ্যাকাডেমি পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে ব্র্যাড পিট ও অ্যাঞ্জেলিনা জোলি।

ব্রাঞ্জেলিনা (ইংরেজি: Brangelina) বলতে সুপারকাপল ব্র্যাড পিটঅ্যাঞ্জেলিনা জোলি নামের দুজন মার্কিন অভিনয়শিল্পীকে বোঝানো হয়। ব্র্যাড পিট হচ্ছেন ফাইট ক্লাব, সেভেন, টুয়েলভ মাঙ্কিস, এবং দ্য কিউরিয়াস কেইস অফ বেঞ্জামিন বাটন খ্যাত একজন মার্কিন অভিনেতা, এবং অ্যাঞ্জেলিনা জোলি হচ্ছেন হ্যাকারস, গার্ল, ইন্টারাপ্টেড, লারা ক্রফ্‌ট: টুম্ব রেইডার, এবং চেঞ্জলিং খ্যাত একজন একাডেমি পুরস্কার বিজয়ী মার্কিন অভিনেত্রী।

সারসংক্ষেপ[সম্পাদনা]

ব্র্যাড পিট[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: ব্র্যাড পিট

১৯৮০ ও ১৯৯০-এর দশক জুড়ে পিট রবিন গিভেনস,[১] জিল শোয়েলেন,[১] এবং জুলিয়েট লুইসের সাথে প্রেম করেছেন।[২] এছাড়া সেভেন চলচ্চিত্রে তাঁর সহঅভিনেত্রী গিনেথ প্যালট্রোর সাথেও ১৯৯৫ থেকে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত তিনি প্রেম করেছেন।[১]

১৯৯৮ সালে পিটের সাথে পরিচয় হয় ফ্রেন্ডস খ্যাত অভিনেত্রী জেনিফার অ্যানিস্টনের সাথে, এবং এই জুটি ২৯ জুলাই, ২০০০ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার মালিবুতে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।[৩] হলিউডের বিবাহ টিকে থাকার স্বল্পহারকে হার মানিয়েও শেষ পর্যন্ত এ জুটির জানুয়ারি ২০০৫-এ বিচ্ছেদ ঘটে। তাঁরা যৌথভাবে ঘোষণা করেন যে, সাত বছর একসাথে থাকার পর তাঁরা এখন আলাদা হয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।[৪] ডিভোর্সের জন্য আবেদন করার দুমাস পর অ্যানিস্টন তাঁদের সম্পর্কের মধ্যে বিদ্যমান পার্থক্যের ব্যাপারে মুখ খোলেন।[৫]

অ্যাঞ্জেলিনা জোলি[সম্পাদনা]

মার্চ ২৮, ১৯৯৬ সালে জোলি ব্রিটিশ অভিনেতা জনি লি মিলারকে বিয়ে করেন। তিনি ছিলেন হ্যাকারস চলচ্চিত্রে জোলি সহঅভিনেতা।[৬] জোলি ও মিলার পরবর্তী বছরেই আলাদা হয়ে যান, এবং ৩ ফেব্রুয়ারি, ১৯৯৯ সালে তাঁদের ডিভোর্স হয়। ৫ মে, ২০০০-এ তিনি বিয়ে করেন পুশিং টিন চলচ্চিত্রে তাঁর মার্কিন সহঅভিনেতা বিলি বব থর্নটনকে, এবং তাঁদের ডিভোর্স হয় ২৭ মে, ২০০৩-এ। হঠাৎ সংঘটিত হওয়া এই ডিভোর্সের ব্যাপারে জোলি বক্তব্য ছিলো, “এটা আশ্চর্যজনক ছিলো আমার কাছেও, কারণ রাতের শেষে আমরা দুজনই পুরোপুরি পরিবর্তিত হয়ে গিয়েছিলাম। আমার মনে হয় আমাদের মধ্যে মিলে যাবার মতো একরকম কিছুই কোনোদিন ছিলো না। ব্যাপারটা ভয় লাগানোর মতো, কিন্তু... আমার ধারণা এটা আপনি তখনি বুঝবেন যখন এটা আপনার জীবনে ঘটবে, এবং আদৌ আপনি নিজের সম্মন্ধে ভালোভাবে জানবেন না।”[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ ১.২ Gliatto, Tom (জুন ৩০, ১৯৯৭)। "Love Lost"People। সংগৃহীত ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০০৯ 
  2. "Brad Pitt"People। সংগৃহীত মার্চ ১২, ২০০৮ 
  3. "Brad Pitt Biography"People। পৃ: ২। সংগৃহীত মে ১৬, ২০০৮ 
  4. "Pitt and Aniston announce split"BBC News (BBC)। জানুয়ারি ৮, ২০০৫। সংগৃহীত মার্চ ১৯, ২০০৯ 
  5. "Judge signs Aniston-Pitt divorce papers"USA Today (Associated Press)। আগস্ট ২২, ২০০৫। সংগৃহীত নভেম্বর ১৪, ২০০৮ 
  6. * Bandon, Alexandra. Following, Ambivalently, in Mom or Dad's Footsteps. The New York Times. August 25, 1996. Accessed February 25, 2009.
  7. Van Meter, Jonathan. Learning To Fly. Vogue. March 2004. Accessed September 8, 2008.