বন খঞ্জন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বন খঞ্জন
বন খঞ্জন (Dendronanthus indicus), তাইওয়ান
সংরক্ষণ অবস্থা
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Animalia
পর্ব: Chordata
শ্রেণী: Aves
বর্গ: Passeriformes
পরিবার: Motacillidae
গণ: Dendronanthus
Blyth, 1844
প্রজাতি: D. indicus
দ্বিপদী নাম
Dendronanthus indicus
(Gmelin, 1789)
প্রতিশব্দ

Limonidromus indicus
Motacilla indica
Nemoricola indica

বন খঞ্জন (বৈজ্ঞানিক নাম: Dendronanthus indicus) Motacillidae (মোটাসিলিডি) গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত Dendronanthus (ডেন্ড্রোন্যান্থাস) গণের অন্তর্ভূক্ত একমাত্র প্রজাতি[২][৩] পাখিটি বাংলাদেশ, ভারত ছাড়াও দক্ষিণ, পূর্বদক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশে দেখা যায়। বন খঞ্জন বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ ভারতীয় গেছো তুলিকা (গ্রিক: dendron = গাছ, anthus = তুলিকা, indicus = ভারতের)।[৩] সারা পৃথিবীতে এক বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে এরা বিস্তৃত, প্রায় ৩৭ লক্ষ ১০ হাজার বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এদের আবাস।[৪] বিগত কয়েক দশক ধরে এদের সংখ্যা অপরিবর্তিত রয়েছে, আশঙ্কাজনক পর্যায়ে যেয়ে পৌঁছেনি। সেকারণে আই. ইউ. সি. এন. এই প্রজাতিটিকে ন্যূনতম বিপদগ্রস্ত বলে ঘোষণা করেছে।[১] বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এ প্রজাতিটিকে সংরক্ষিত ঘোষণা করা হয় নি।[৩] অন্যসব খঞ্জনের মত এদের লেজ ওপর-নিচে নাচে না বরং পাশাপাশি অনবরত নড়ে। এছাড়া খঞ্জন প্রজাতির পাখিদের মধ্যে এরাই একমাত্র প্রজাতি যারা গাছের ডালে বাসা বানায়। মূলত বনাঞ্চলে দেখা যায় বলে এদের নাম হয়েছে বন খঞ্জন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ "Dendronanthus indicus"The IUCN Red List of Threatened Species। সংগৃহীত 18 October, 2013 
  2. রেজা খান (২০০৮)। বাংলাদেশের পাখি। ঢাকা: বাংলা একাডেমী। পৃ: ১০৫। আইএসবিএন 9840746901 
  3. ৩.০ ৩.১ ৩.২ জিয়া উদ্দিন আহমেদ (সম্পা.) (২০০৯)। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ: পাখি, খণ্ড: ২৬। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। পৃ: ৫৩০–১। 
  4. "Dendronanthus indicus"BirdLife International। সংগৃহীত 2013-09-18 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]