পোপোল ভুহ্‌

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোর নিউবেরি লাইব্রেরিতে অবস্থিত পোপোল ভুহের একটি পাণ্ডুলিপির প্রথম পৃষ্ঠা

পোপোল ভুহ্‌ (ইংরেজি: Popol Vuh) ধ্রুপদী কুইশে ভাষায় লিখিত একটি প্রাচীন পুস্তক যাতে পৌরাণিক বর্ণনা এবং প্রাচীন গুয়েতামালা উচ্চভূমিতে বসবাসকারী কিশে মায়া সভ্যতার শাসকদের একটি ক্রমতালিকা রয়েছে। মূল কিশে ভাষা থেকে বইয়ের নামটি গৃহীত হয়েছে যার অর্থ সম্প্রদায়ের পুস্তক বা কাউন্সিল বুক। বইটিতে সংযোজিত রয়েছে পৌরাণিক কাহিনীর উপর ভিত্তি করে রচিত একটি সৃষ্টি পুরাণ যার মূল অংশের মধ্যে রয়েছে মায়া বীর যমজদের পৌরাণিক কাহিনী। এই দুই যমজ ভাইয়ের নাম Hun-Ahpu এবং Xbalanque। বইয়ের দ্বিতীয় অংশে মূল কিশে সাম্রাজ্যের ইতিহাস এবং উৎপত্তি বিষয়ে আলচিত হয়েছে। বইয়ের কথামতে প্রাচীন রাজারা স্বর্গীয় আদেশ মোতাবেক আইন রচনা করেছেন এবং তাদের রাজকীয় পরিবার সে আইন রক্ষায় সর্বদাই সচেষ্ট ছিল। বইটি মূলত ল্যাটিন বর্ণমালায় লেখা হলেও এর প্রাচীন পাণ্ডুলিপিতে মৌলিক মায়া পুঁথিসমূহে ব্যবহৃত মায়ান হায়ারোগ্লিফিক লিপি ব্যবহার করা হয়েছিল বলে ধারণা করা হয়। মূল পাণ্ডুলিপি যা ১৫৫০ সালের দিকে রচিত হয়েছিল তা হারিয়ে গেছে। অবশ্য ফ্রানসিস্কো জিমেন্‌জ অষ্টাদশ শতাব্দীতে হাতে লিখে মূল পাণ্ডুলিপির একটি নকল কপি তৈরি করেছিলেন। যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোতে অবস্থিত নিউবেরি লাইব্রেরিতে এই হস্তলিখিত কপিটি এখনও রয়েছে।

এখানে পোপোল ভুহ্‌ গ্রন্থের একটি অংশের বাংলা অনুবাদ উল্লেখিত হল:

প্রথম সৃষ্ট এবং অবয়বপ্রাপ্ত মানবদেরকে সম্বোধন করা হতো ভয়ংকর হাসির জাদুকর, রাত্রির জাদুকর, অবিন্যস্ত, এবং কৃষ্ণ জাদুকর রুপে...। তারা বুদ্ধিবৃত্তির অধিকারী ছিল, পৃথিবীতে যা কিছু ছিল তারা তার সবকিছু জানতে সক্ষম হয়েছিল। যখন তারা তাকাত তখন তারা তাৎক্ষণিকভাবে তাদের চারপাশের সবকিছুই দেখতে পারত, এর ফলে তারা গভীরভাবে চিন্তা করত স্বর্গের খিলান এবং মর্তের গোলীয় পৃষ্ঠ নিয়ে...। [তখন সৃষ্টিকর্তা বললেন]: তারা সবকিছুই জানে... আমরা এখন তাদেরকে নিয়ে কী... করবো? এমন কিছু করতে হবে যেন তাদের দৃষ্টি কেবল নিকটের বস্তুগুলোই দেখতে পায়; যেন তারা পৃথিবীর পৃষ্ঠের ছোট একটি অংশই দেখতে পায়! ...তারা স্বাভাবিকভাবেই আমাদের সৃষ্টির সাধারণ ফলাফল নয়? তাদেরকে কি দেবতাও হতে হবে?[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. কসমস: রচনা: কার্ল সাগান, বাংলা অনুবাদ: আসাদ ইকবাল মামুন; ঐতিহ্য; পৃষ্ঠা. ১৯ - মহাজাগতিক সমুদ্রের বেলাভূমি

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

Wikisource-logo.svg
এই নিবন্ধ সম্পর্কে ইংরেজি উইকিউৎসে মৌলিক রচনা রয়েছে::