ডায়নামাইট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ডায়নামাইটের চিহ্নিত চিত্র
A. নাইট্রোগ্লিসারিনে ভেজানো কাঠের গুড়া (ব যেকোনো প্রকার শোষণকারী পদার্থ)।
B. বিস্ফোরক পদার্থটির সুরক্ষায় আবরক।
C. ব্লাস্টিং ঢাকনা.
D. ব্লাস্টিক ঢাকনা'র সাথে লাগানো বৈদ্যুতিক তার (ডিটোনেটিং-এর জন্য)।

ডায়নামাইট এক ধরনের বিস্ফোরক যা নাইট্রোগ্লিসারিন ব্যবহার করে তৈরি করা হয়। নোবেল পুরস্কারের প্রবর্তক আলফ্রেড নোবেল ডায়নামাইট আবিষ্কার করেন এবং ১৮৬৭ খ্রীস্টাব্দে এর প্যাটেন্ট নিবন্ধন করেন। বিভিন্ন শোষক পদার্থ দিয়ে নাইট্রোগ্লিসারিন কে শোষণ করিয়ে নিয়ে ডায়নামাইট তৈরি করা হয়। এসব শোষক দ্রব্যের মধ্যে রয়েছে কিসেলগুড় (kieselgur: যুক্তরাষ্ট্রের বানান; kieselguhr: যুক্তরাজ্যের বানান) নামক মাটি, করাত গুঁড়ো ইত্যাদি।

এটি সাধারণত ২০ সেন্টিমিটার লম্বা এবং ২.৫ সেন্টিমিটার ব্যাসার্ধের কাঠি আকারে কিনতে পাওয়া যায়। এটিকে উচ্চমাত্রার বিষ্ফোরক হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এটি টি.এন.টি এর চেয়ে ৬০ ভাগ বেশি শক্তিশালী।

আর এক ধরনের ডায়নামাইট নাইট্রোগ্লিসারিনে নাইট্রোসেলুলোজ এবং সামান্য পরিমাণে কিটোন মিশিয়ে তৈরি করা হয়। যা তরল নাইট্রোগ্লিসারিনের চেয়ে অনেক বেশি নিরাপদ।

ব্যবহার[সম্পাদনা]

ডগলাস বাঁধ তৈরির সময় ডায়নামাইট বসানো হচ্ছে, ১৯৪২.

ডায়নামাইট খনিতে,পাথর উত্তোলনের সময় এবং নির্মান কারখানায় ব্যবহৃত হয়। এক সময় যুদ্ধক্ষত্রেও এটি প্রচুর ব্যবহৃত হত, তবে নাইট্রোগ্লিসারিনের অস্থিতিশীলতার কারণে এবং বিশেষ করে ঠান্ডায় জমে যাওয়ার কারণে এটির সামরিক ব্যবহার নেই।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ডায়নামাইট আবিষ্কার করেছিলেন আলফ্রেদ নোবেল। এটি ছিল সে সময় ব্যবহৃত বারুদের চেয়ে উচ্চ মাত্রার বিষ্ফোরক।আলফ্রেদ ১৮৬৭ সালের ৭ মে ইংল্যান্ডে, ১৮৬৭ সালের ১৯ অক্টোবর সুইডেনে ডায়নামাইটের প্যাটেন্ট করান। তিনি ডায়নামাইট বিক্রয় করতেন "নোবেলের বিষ্ফোরক গুড়ো" ( Nobel's Blasting Powder) নামে।আবিষ্কারের অল্প কিছু দিনের মধ্যেই এর চাহিদা বাড়তে থাকে। এটি ছিল বারুদ এবং নাইট্রোগ্লিসারিনের চেয়ে অধিক নিরাপদ। নোবেল তাঁর প্যাটেন্ট কঠোর ভাবে নিয়ন্ত্রণ করতেন। কেউ অবৈধ ভাবে ডায়নামাইট উৎপাদন করলে দ্রুত তা বন্ধ করার ব্যবস্থা করতেন। এরপরেও যুক্তরাষ্ট্রে কিছু ব্যবসায়ী কিছুটা ভিন্ন উপায়ে ডায়নামাইট উৎপাদন করে তার প্যাটেন্ট নিয়েছিল।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]