জুলিয়ান মার্লে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জুলিয়ান মার্লে
Julian Marley (Cascais 2010) 1.jpg
পর্তুগালে গানের মঞ্চে
প্রাথমিক তথ্যাদি
জন্ম নাম জুলিয়ান রিকারডো মার্লে
আরও যে নামে পরিচিত জু জু রয়্যাল
জন্ম (১৯৭৫-০৬-০৪) জুন ৪, ১৯৭৫ (বয়স ৩৮)
ইংল্যান্ড লন্ডন, ইংল্যান্ড
ধরন রেগে
লেবেল টাফ গং, ঘেটো ইয়্যুথস ক্রু
সহযোগী শিল্পী বব মার্লে
শ্যারন, সেডেলা, জিগি, স্টিফেন, রোহান, কাই-ম্যানি ও ড্যামিয়েন মার্লে।

জুলিয়ান মার্লে (জন্ম: ৪ জুন, ১৯৭৫) ব্রিটিশ-জ্যামাইকান রেগে সংগীতশিল্পী। বব মার্লের নবম সন্তান তিনি। মা লুসি পাউন্ডার ছিলেন বারবাডোজের। জুলিয়ান মার্লে রাসটাফারি আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত আছেন।[১][২]

জন্ম[সম্পাদনা]

১৯৭৫ সালের ৪ জুন, লন্ডনে জন্ম নেন জুলিয়ান। জুলিয়ানের জন্মের আগ থেকেই যুক্তরাজ্যে থাকতে শুরু করেছিলেন বাবা মার্লে। তাই জুলিয়ানের বেড়ে ওঠা সেখানেই। গ্রীষ্মের ছুটি পেলেই ছুটে যেতেন পিতৃভূমি জ্যামাইকায়।[১]

অ্যালবাম[সম্পাদনা]

এ পর্যন্ত তিনটি অ্যালবাম মুক্তি পেয়েছে জুলিয়ানের—

  • লায়ন ইন দ্য মর্নিং (১৯৯৬),
  • আ টাইম অ্যান্ড প্লেস (২০০৩) ও
  • অ্যাওয়েক (২০০৯)

এর মধ্যে অ্যাওয়েক পেয়েছিল গ্র্যামি মনোনয়ন।

বিশ্বাস ও দর্শন[সম্পাদনা]

বাবা বব মার্লে রেগে সংগীতের গায়ক ছিলেন। বব মার্লে তাঁর পুরো ক্যারিয়ারেই যুক্ত ছিলেন রাসটাফারি আন্দোলনের সঙ্গে। গানের সুরে বলতেন ভ্রাতৃত্ব, অসাম্প্রদায়িকতার কথা। বিশ্বাস করতেন, মানুষের মনে ভালোবাসা ও গান প্রবেশ করাতে পারলেই মুক্তি পাওয়া যাবে ঘৃণা থেকে। জুলিয়ান মার্লেও তাই রাসটাফারি আন্দোলনের একজন। এই বিশ্বাস ও দর্শনই তাঁকে প্রতিদিন প্রেরণা জোগায় সাধারণ মানুষকে নিয়ে গান বাঁধতে।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ ১.২ জুলিয়ানের ভালোবাসার গান এবং বাবা বব মার্লে, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ০৪-০১-২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।
  2. কাল বাবার গান করবেন জুলিয়ান মার্লে,মাহফুজ রহমান, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ০৩-০১-২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]