জাতিস্মর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

জাতিস্মরদের পূর্বজন্ম মনে রাখার অলৌকিক ক্ষমতা থাকে। প্রায় ২০ শতাংশ [১] মার্কিনী পুনর্জন্মে বিশ্বাস করে। জাতিস্মরদের অস্তিত্ব মেনে নেওয়া মানে পূর্বজন্ম এবং পুনর্জন্মে বিশ্বাস করা। যাঁরা জাতিস্মরদের সন্দেহের চোখে দেখেন তাঁরা বলেন যে এই পূর্বজন্ম মনে রাখা স্বপ্ন ছাড়া আর কিছুই নয়। আবার অনেক বৈজ্ঞানিক বলেন[২] যে পুনর্জন্মকে বিজ্ঞানসম্মতভাবে প্রমাণ করা সম্ভব। পৃথিবীর বহু স্থানে ছোট শিশুরা নিজেদের জাতিস্মর হিসাবে ঘোষণা করে। এদের বয়স সাধারণত দুই থেকে পাঁচ বছর হয়। অনেক সময় এরা, এদের ব্যবহারে, একরকম ভীতি প্রদর্শন করে। দেখা যায় যে ওই শিশুদের পূর্বজন্ম সংক্রান্ত বক্তব্যে ভীতির কারণ পাওয়া যায় [৩]। বহু ক্ষেত্রে জাতিস্মরের পূর্বজন্মের পরিবারের সঙ্গে বর্তমান জন্মের পরিবারের কোন সম্পর্ক অথবা পরিচয় থাকে না। সাধারণত সাত বছর বয়স অবধি জাতিস্মরেরা পূর্ব জীবন মনে রাখতে পারে। ক্যারল ব্যোমানের [৪] বইয়ে [৫] জাতিস্মরদের বিবরণ আছে। ক্যারল মনে করেন জাতিস্মরদের পূর্বজন্মের বিবরণ কল্পনা প্রসূত নয়। ওনার মতে কল্পনা মনের ব্যাপার। জাতিস্মরদের কাছে পূর্বজীবন হল সত্যি ঘটনার পূণাঙ্গ মানসিক চিত্র। একমাত্র একজন সূক্ষ অনুভূতিসম্পন্ন মানুষের পক্ষেই এর তফাৎ করা সম্ভব।

ক্যারল ব্যোমানের মতে জাতিস্মর বোঝার চার রকম [৬] উপায় আছেঃ

(ক) স্বাভাবিক স্বচ্ছন্দ ভঙ্গিতে পূর্বজন্ম বিষয়ে তথ্য দেওয়া।

(খ) কয়েক দিন/সপ্তাহ/মাস/বছর ধরে পূর্বজন্ম বিষয়ক একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি।

(গ) অভিজ্ঞতার বাইরে জ্ঞান।

(ঘ) সেইমত ব্যবহারিক এবং শারীরিক বৈশিষ্টের প্রকাশ।

জাতিস্মরদের নিয়ে গবেষনায় অন্যতম উল্লেখযোগ্য নাম ইয়ান স্টেভেনসন [৭]। তিনি জাতিস্মরদের নিয়ে গবেষনা পঞ্চাশের দশক থেকে শুরু করেন। তাঁর প্রকাশনার [৮] সংখ্যা অনেক এবং অনেকেই তাঁর লেখার মধ্যেও বৈজ্ঞানিক সত্য খুঁজে পান। কিন্তু সবাই এঁদের লেখার সমর্থক নন। জাতিস্মর গবেষকদের কাজের নিষ্ঠা মেনে নিলেও নানারকম প্রশ্ন [৯] থেকে যায়। যেমনঃ

(ক) জাতিস্মর সেই সব সমাজেই আবিষ্কার হয়, যেখানে পূর্বজন্ম এবং পুনর্জন্মের মতবাদের উপর প্রবল বিশ্বাস। যেমন যেখানে জাতিস্মরদের লিঙ্গ পরিবর্তনের উপর বিশ্বাস নেই, সেখানে জাতিস্মরদের বর্তমান এবং পূর্বজন্মের মধ্যে লিঙ্গ পরিবর্তনের নজির পাওয়া যায় না। আবার যে সমাজ বিশ্বাস করে যে মৃত্যর পরে তৎক্ষণাৎ পুনর্জন্ম সম্ভব , সেই সমাজে সেইরকমই দেখা যায়।

(খ) অধিকাংশ ক্ষেত্রে জাতিস্মরের পূর্বজীবন সেই সমাজ অথবা পরিবারের মধ্যে সীমাবদ্ধ। যদি পিতৃশাসিত সমাজ হয়, তাহলে জাতিস্মরের পূর্বজীবন পিতার পরিবারের সঙ্গে যুক্ত থাকে। যদি মাতৃশাসিত সমাজ হয় তাহলে এর উল্টো হয়।

(গ) জাতিস্মরের পূর্বজন্মের ঘটনার বিশ্লেষণগুলি প্রধানত সামাজিক বিশ্বাস এবং রীতির উপর নির্ভরশীল। কিছু বিশ্লেষণ চক্রাকার। অর্থাৎ শুরু এবং শেষ নেই। [১০]

(ঘ) জাতিস্মরদের বর্ণিত ঘটনাগুলির অন্যরকম বাস্তবসম্মত ব্যাখ্যাও সম্ভব।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. The Harris Poll® #90, December 14, 2005. The Religious and Other Beliefs of Americans 2005
  2. Reincarnation is Now a Scientifically Acceptable Phenomenon by Dr. Granville Dharmawardena, University of Colombo (Based on a Scientific paper presented at the 52nd Annual Sessions of the Sri Lanka Association for the Advancement of Science, November 1996)
  3. Children Who Claim to Remember Previous Lives। University of Virginia Healthsystem
  4. About Carol Bowman
  5. Children's Past Lives: How Past Life Memories Affect Your Child
  6. Chapter 10: The Four Signs
  7. http://www.healthsystem.virginia.edu/internet/psychiatric/stevenson.cfm
  8. http://www.healthsystem.virginia.edu/internet/psychiatric/stevensonres.cfm
  9. http://www.skepticreport.com/psychics/stevenson-belief.htm
  10. http://www.skepticreport.com/psychics/stevenson-book.htm