ভেড়ামারা উপজেলা অ্যাপস্

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন


ভেড়ামারা উপজেলা

বাংলাদেশে উপজেলা সদরের মধ্যে অন্যতম এবং গুরুত্বপূর্ণ উপজেলা হিসেবে ব্যাপক পরিচিতি ভেড়ামারার। কুষ্টিয়া জেলা সদর হতে ২৩ কিলোমিটার উত্তর পশ্চিমে অবস্থিত ভেড়ামারা উপজেলা সদর। ১৫৩.৭২ বর্গকিলোমিটার ভূখন্ডের ভেড়ামারা উপজেলায় বসবাস করে ১লক্ষ ৯৯ হাজার ৪৮০ জন মানুষ।

এ উপজেলার উত্তর পূর্বে পদ্মানদীর উপর দুই সমান-রাল যুগল সৌন্দর্য ‘হার্ডিঞ্জব্রীজ’ ও ‘লালনশাহ সেতু’। পূর্ব দক্ষিণে জেলার মিরপুর ও পশ্চিমে দৌলতপুর উপজেলা এবং পূর্বে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা। ১টি পৌরসভা ও ৬টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদ। এখানে রয়েছে ৮১টি গ্রাম এবং ৪৩টি মৌজা। ভেড়ামারা পূর্বে থানা হিসেবে পরিচিতি থাকলেও ১৯৮১ সালের ৭ নভেম্বর ভেড়ামারা উপজেলা হিসেবে স্বীকৃতি পায়। কুষ্টিয়ার পরেই দেশের এবং বিশ্বের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে ভেড়ামারার সুনাম। দেশের বৃহত্তম গঙ্গা কপোতাক্ষ সেচ প্রকল্প, ৬০ মেগওয়াট বিদ্যুত উৎপাদন কেন্দ্র, বিশ্বের ১১তম বৃহৎ এবং দেশের বৃহৎ রেলওয়ে সেতু ‘হার্ডিঞ্জ ব্রীজ’ এবং দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম সড়ক সেতু ‘লালনশাহ সেতু’। রয়েছে হযরত সোলাইমান শাহ্ চিশতির মাজার শরীফ এবং গায়েবী মসজিদ খ্যাত তিন গম্বুজ মসজিদ ।ভেড়ামারা উপজেলার নামকরণের কোন সুনির্দিষ্ট ইতিহাস জানা যায় না। তবে লোক মুখে এবং শহুরী-গ্রামাঞ্চলে নানা কথার প্রচলন রয়েছে। জনা যায়, ভেড়ামারা এলাকায় অতীতে প্রচুর ভেড়া পালন করা হতো। তৎকালীন ব্রিটিশ আমলে ট্রেন চলাকালীন অবস্থায় ভেড়ামারা ষ্টেশন সংলগ্ন এলাকায় একযোগে শতাধিক ভেড়া ট্রেনের নীচে পড়ে কাটা পড়ে মারা যায়। সেই সময় ‘ভেড়া মরা’ হতেই ভেড়ামারার নামকরণ করা হয়েছিল।

  • ভেড়ামারা উপজেলার ওয়েব সাইট ঠিকানাঃ Click Now

ভেড়ামারা উপজেলা অ্যাপস্[১]

প্রকৃতপক্ষে প্রযুক্তি হচ্ছে বিজ্ঞানের আবিষ্কারগুলোর ব্যাবহারিক প্রয়োগ। জ্ঞান-বিজ্ঞানের এই যুগে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য, অথবা দক্ষ ব্যাবস্থাপনার জন্য তথ্য আহরন, সংরক্ষণ, প্রক্রিয়াকরন ও তথ্য বিতরনের গুরুত্ব অনেক। আর এই তথ্য আহরন, সংরক্ষণ, প্রক্রিয়াকরন, তথ্য বিতরনের ও এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সামগ্রিক কার্যাবলী পরিচালনার বিজ্ঞানসম্মত প্রক্রিয়াকেই এক কথায় "তথ্য প্রযুক্তি" । তথ্য প্রযুক্তির সাথে বর্তমানে যোগাযোগ ব্যাবস্থার নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে- বলা যায়, এরা একে অন্যের পরিপূরক। তথ্য ও যোগাযোগ -এই দুটি ক্ষেত্রে বৈজ্ঞানিক প্রযুক্তির ব্যাবহারের ফলে খুব দ্রুত ও সহজে তথ্য আদান-প্রদান করা সম্ভব। তাই এখন ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে আপনাদের কে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির সংঙ্গে রাখার জন্য তৈরী হয়েছে ভেড়ামারা উপজেলা মোবাইল অ্যাপস্। এখান থেকে খুব সহজেই আপনারা বাংলাদেশের সকল তথ্য পেয়ে থাকবেন। বাংলাদেশের সকল তথ্যের ভান্ডার ভেড়ামারা উপজেলা অ্যাপস্।

ডেভোলপার সম্পর্কে[২]

বাংলা ভাষায়ঃ আমি আব্দুল্রাহ আল মামুন। আমি ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার জন্য দৃড় আগ্রহি। এটি আমার নিজের ওয়েব সাইট। এটি আমার পরিচয় বহন করে। আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার প্রমান বহন করে। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে  আপনারও একটি ওয়েব সাইট থাকা অত্যান্ত জরুরী। কারণ একটি ওয়েব সাইট হতে পারে আপনার সকল তথ্যের ভান্ডার। আপনারা চাইলে খুবই সল্প জ্ঞানে এমন একটি ওয়েবসাইট নিজের নামে তৈরী করতে পারেন। আসুন আমরা সকলেই ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে দৃড় প্রতিজ্ঞা বদ্ধ হয়।

English Languages: I abdulraha Al Mamun.I am interested in strengthened that feeling within to build a digital Bangladesh.This is my own web site. It carries my identity.My personal experience bears evidence. You also have a web site is too important to build a digital Bangladesh.Web sites can be a repository of all information.If you have a very low sense of self can create a website. All of us are determined to build a digital Bangladesh strengthened that feeling within us.

  • BHERAMARA (UPAZILA APP)। "BHERAMARA UPAZILA APP"। FS MAMUN। সংগ্রহের তারিখ 2016-09-08  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  • Mamun, Fs। "MD ABDULLAH AL MAMUN"MD ABDULLAH AL MAMUN (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৯-০৮