ডনার্সবার্গারস্ট্রিট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(ডনার্সবার্জারস্ট্রিট থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
উত্তর থেকে দক্ষিণে ডনার্সবার্জারস্ট্রিট

ডনার্সবার্জারস্ট্রিট হলো মিউনিখের জেলা নিউহসেনের একটি রাস্তা। উত্তর-দক্ষিণ দিক দিয়ে এটি রটক্রেউপ্লাটজ এর সাথে অর্নুলস্ট্রিটকে সংযুক্ত করেছে। এটি বাভারিয়ান মন্ত্রীসভার উপদেষ্টা জোয়াকিম ফ্রেইহার ভন ডনার্সবার্জ (১৫৬১-১৬৫০) এর নাম অনুসারে তৈরি, তিনি মিউনিখের ডনার্সবার্জার পরিবার থেকে এসেছেন।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

২০শতকের পরে বড় বড় দালান নির্মাণের কাজ শুরু হয়। অসংখ্য ব্যক্তিগত ঘরের পাশাপাশি, পশ্চিমে রেলওয়ে সমবায় তাদের বৃহৎ বাড়ির ইউনিট নির্মাণ করে। ১৯০৮সাল পর্যন্ত, ডনার্সবার্জারস্ট্রিট পাকা করা হয়নি। ঘরের মালিকরা শুকনো আবহাওয়ায় রাস্তায় পানি ছিটাতো।

প্রথম গণপরিবহন যেটি ডনার্সবার্জার দিয়ে যায় সেটি ছুল অমনি বাস নাম্বার ৩১। এটি মিউনিখ পাইকারী বাজার থেকে রটক্রেউজপ্লাটজ পর্যনৃত গিয়েছিল। এটি ১৯১৩সালের জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত মাত্র দুই মাস কার্যক্রমে ছিল। এটি অলাভজনক পরিস্থিতির জন্য পরে বনৃধ হয়ে যায়। ১৯২০সাল থেকে ১৯৭০সালে , ডনার্সবার্জারস্ট্রিট দিয়ে ২২ নম্বর ট্রাম লাইন গিয়েছে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে আকাশের আক্রমনের সময়, রাস্তাটির উত্তরভাগ বারবার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে, দক্ষিণভাগ এসময় বেঁচে যায়।[১]

বর্তমানের রাস্তা[সম্পাদনা]

জেলার পরিবর্তন[সম্পাদনা]

ডনার্সবার্জারস্ট্রিটে বসন্তের মনোভাব (উত্তরের দৃশ্য)

পার্কিং গ্যারেজ নির্মাণ এবং রাস্তার উপরিভাগ ঠিক করার মাধ্যমে ডনার্সবার্জারস্ট্রিটের পুনর্নির্মাণ শেষ হয়। তারপর থেকে, জেলাটি সকলের মূল আকর্ষণেে রয়েছে। কারণ এটি কেন্দ্রে অবস্থিত এবং খুবই শান্ত পরিবেশে অবস্থিত। পুরোনো ঐতিহাসিক দালানগুলোকে মেরামত করা হয়েছে, পাশাপাশি আরও অনেক নতুন দোকান, রেস্টুরেন্ট এবং বার এখানে খোলা হয়েছে। বার্ষিক স্ট্রিট উৎসব এখানকার খুব জনপ্রিয় একটি উৎসব।

গুরুত্বপূর্ণ বিষয়[সম্পাদনা]

ডনার্সবার্জাস্ট্রিট ৫০এ তে বিখ্যাত বাভারিয়ান অভিনেতা হেলমাট ফিশার বড় হয়েছেন। পার্কিং গ্যারেজ নির্মাণের সময়, আকস্মিকভাবে একটি দালান ভেঙ্গে যায়।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Donnersbergerstraße - Die Straße, in der wir arbeiten, Verkehrsgeschichten" (German ভাষায়)। S2LAB. Denkraum für Architektur। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৭ 
  2. "Editorial - Hieber Journal 2005/2" (German ভাষায়)। Hieber। ২৫ নভেম্বর ২০০৫। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৭