জিলোকা (নদী)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
স্থানাঙ্ক: ৪১°২০′২৭″ উত্তর ১°৩৯′২৭″ পশ্চিম / ৪১.৩৪০৯৬২° উত্তর ১.৬৫৭৪৫৯° পশ্চিম / 41.340962; -1.657459
জিলোকা
Giloca
River
ক্যালামোকাতে জিলোকা নদী, টেরুয়েল
দেশ স্পেন
অঞ্চল আরাগন
জেলা টেরুয়েল, যারাগোজা
নগর Pancrudo
Primary source ওজস দে মনরিয়াল
 - অবস্থান মনরিয়াল দেল ক্যামপো, টেরুয়েল, আরাগন
 - উচ্চতা ৯৫০ মিটার (৩,১১৭ ফিট)
 - স্থানাঙ্ক ৪০°৪৫′৩৭″ উত্তর ১°২১′০৭″ পশ্চিম / ৪০.৭৬০৪১° উত্তর ১.৩৫১৯৩৩° পশ্চিম / 40.76041; -1.351933
Secondary source ফুয়েন্ট দে চেল্লা
 - location চেল্লা, টেরুয়েল, আরাগন
 - উচ্চতা ১,০৩৬ মিটার (৩,৩৯৯ ফিট)
 - স্থানাঙ্ক ৪০°২৭′১৭″ উত্তর ১°১৭′১৩″ পশ্চিম / ৪০.৪৫৪৬০২° উত্তর ১.২৮৬৮৩১° পশ্চিম / 40.454602; -1.286831
মোহনা
 - অবস্থান ক্যালাটায়ুড, যারাগোজা, আরাগন
 - উচ্চতা ৫৩০ মিটার (১,৭৩৯ ফিট)
 - স্থানাঙ্ক ৪১°২০′২৭″ উত্তর ১°৩৯′২৭″ পশ্চিম / ৪১.৩৪০৯৬২° উত্তর ১.৬৫৭৪৫৯° পশ্চিম / 41.340962; -1.657459
দৈর্ঘ্য ১২৬ কিলোমিটার (৭৮ মাইল)
অববাহিকা ২,৯৫৭ বর্গকিলোমিটার (১,১৪২ বর্গমাইল)
প্রবাহ
 - গড় ২.১ /s (৭৪ ft³/s)
 - সর্বোচ্চ ৩.৪ /s (১২০ ft³/s)
 - সর্বোনিম্ন ১.৬ /s (৫৭ ft³/s)
River system Ebro
এব্রো খাদে জিলোকা নদীর ম্যাপ
এব্রো খাদে জিলোকা নদীর ম্যাপ

জিলোকা হলো স্পেন-এর আরাগনে অবস্থিত একটি নদী। নদীটি জ্যালন নদীর একটি শাখা এবং এবরো খাদ'র জলবিভাজিকা। নদীটির গতিপথ টের‍্যুয়েল এবং যারাগোজা প্রদেশের মধ্য দিয়ে গেছে। এর দৈর্ঘ্য ১২৬ কিলোমিটার এবং গড় জল প্রবাহ মাত্রা হলো প্রতি সেকেন্ডে ২.১ ঘনমিটার। বিভিন্ন মৌসুমে এর জল প্রবাহ মাত্রার পরিবর্তন হয়। নদীটির উৎস মনরিয়াল দেল ক্যামপো এর পাশ থেকে নদীটি উত্তর-পূর্ব দিকে চলে গেছে।

নদীবিধৌত ভূমিখন্ডটি আগে মেসেটা সেন্ট্রাল এবং মেডিটারেনিয়ান উপকূলের মধ্যে একটি ঐতিহাসিক রাস্তা ছিল। এখান থেকে পুয়েবলোতে অবস্থিত রোমান ব্রিজগুলো এবং ওয়াটারমিলস দেখা যায়। নদীর পানি ভালো মানের হওয়ায় বহু রকম বন্যপ্রাণি এখানে বসবাস করে। আঞ্চলিক সরকারের উক্ত জলবিভাজিকা অঞ্চল পরিষ্কারের উদ্যোগকে পরিবেশ সংস্থাগুলো সমালোচনা করে বলেছে- এর ফলে বাস্তুসংস্থান নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। জলবিভাজিকাটি ২,৯৫৭ বর্গ কিলোমিটার জুড়ে আছে।

গতিপথ[সম্পাদনা]

নদীর উৎসটি বিতর্কিত, ঐতিহ্যগতভাবে ভাবা হয় আর্তেজিয়ান ঝরনা থেকে এই নদীর উৎপত্তি যা টেরুয়েল প্রদেশের সিয়েরা আলবারাসিন অঞ্চলের ফুয়েনতি দে চেল্লাতে অবস্থিত। ইতালিয়ান প্রকৌশলী ডমিঙ্গো ফেরারি ঝরনাটিকে উপবৃত্তাকার প্রাচীর দিয়ে ঘেরাও করে ফেলেছেন।[১] বর্তমানে চিন্তা করা হয় চেল্লা এবং মনরিয়াল দেল ক্যামপো'র মধ্যবর্তী নদীটি ১৮ শতকের একটি খাল থেকে উৎপন্ন হয়েছে যে খালটি একটি নালার দিক করে কাটা হয়েছে।[২] বর্তমানে গ্রহণযোগ্য একটি মতামত হলো জিলোকা নদীটি শহরের ২ কিলোমিটার দূরে মনরিয়ালের ওজস(চোখ) থেকে জন্ম নিয়েছে। এগুলো মূলত খাল দ্বারা একত্রিত পুকুরের সিরিজ। মনরিয়াল থেকে নদীটি উত্তরের লুকো দে জলিকার কাছাকাছি প্রবাহিত হয়েচ গেছে, জিলোকা এর একমাত্র শাখা নদী দ্য পানক্রুডো দ্বারা সংযুক্ত যা সিয়েরা দে লা কোস্টেরা থেকে ৪৬ কিলোমিটার দূর থেকে উৎপন্ন হয়। সেখান থেকে একটি সেচনালা পানিগুলোকে ডারোকা উপত্যকার কাছে নিয়ে যায়।[৩][৪]

নদীটি ডারোকা থেকে উত্তর-পূর্ব দিকে ম্যাঞ্চোনস, মুরেরো, মনটন, মরাটা দে জিলোকা, মারুয়েন্ডা এবং পারাচুয়েলাস দে জিলোকা'র মধ্য দিয়ে কারামোলিনা এবং কালাটায়ুড এর মধ্যবর্তী জ্যালনে নিয়ে যায়।[৫][৬]

মরাটা দে জলিকা, পারাচুয়েলাস দে জিলোকা, ফুয়েন্তেস দে জিলোকা, টরেমোছা দে জিলোকা, ভেলিল্লা দে জিলোকা এবং ভিল্লানুয়েভা দে জিলোকা- এই নদীগুলো থেকে শহরের নামকরণ করা হয়।

জলবিভাগ[সম্পাদনা]

জিলোকা নদীর জলের গড় প্রবাহ মান হলো প্রতি সেকেন্ডে ২.১ ঘনমিটার, যদিও বিভিন্ন মৌসুমে বিশেষত শুষ্ক, আর্দ্র, বসন্ত এবং শরৎ কালে মেসেটা সেন্ট্রালে এর পরিবর্তন ঘটে।[৭] বার্ষিক বৃষ্টির সময় জলবিভাজিকার পানি ৪০০ মিলিমিটার (১৬ইঞ্চি) থেকে পরিবর্তিত হয়ে ৯৫০ মিলিমিটার (৩৭) ইঞ্চি উচ্চ হয়ে যায়। বিশেষত মে-জুন মাসে অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতের কারণে পানির উচ্চতা বেশি হয়।[৮] জলবিভাজিকার ক্ষেত্রফল ২,৯৫৭ বর্গ কিলোমিটার।[৯]

প্রাকৃতিক ইতিহাস[সম্পাদনা]

ওজস দে মনরিয়াল- উৎস থেকে প্রবাহিত জিলোকা নদী

ওজস দে মনরিয়াল হলো আর্তেজিয়ান ঝরনার পানির একটি নালার মাধ্যমে একত্রিত পুকুর। এই অঞ্চলটি জলকুক্কুট, ডুবরি পাখি, ক্ষুদ্র ডানাযুক্ত গায়ক পাখি, মাছরাঙ্গা, পেঁচা, হলদে পাখি এবং কাঠঠোঁকরা পাখিসহ অন্যান্য বন্যপ্রাণিতে পরিপূর্ণ। ২৩ কি.মি. দূরে অবস্থিত লেগুনা দে গ্যালক্যান্টা থেকে ঘন ঘন জলকুক্কুট দেখা যায়। পোপলার, উইলো এবং ওয়ালনাট গাছগুলো বন্যপ্রাণীদের আশ্রয়স্থল হিসেবে কাজ করে। (প্ল্যান হাইড্রোলজকো দে লা কুয়েঞ্চা দেল এব্রো) -অনুসারে নদীর পানিকে খুব উপযুক্ত বলে মনে করা হয়।[১][১০]

ম্যনখোন্‌স এবং মোরের মাঝের নদীর স্রোত উপত্যকায় ছোট ডানাযুক্ত বাজপাখি, ঈগল, হলদে পাখি, দোয়েল পাখি, ফিঙ্গে পাখি, ঝুঁটিওয়ালা পাখি, চিল সহ অনেক রকমের পাখি দেখা যায়। সিরিয়া সান্তা ক্রুজে তথা নদীর কিনারায় হরিণ, বন বিড়াল পাওয়া যায়। এছাড়াও নদীর তীরে বেজি এবং কাঁটাচয়া পাওয়া যায়। এখানে পপলার, বেদারুজাতীয় বৃক্ষ এবং এ্যাশ গাছ সহ নানারকমের উদ্ভিদ পাওয়া যায়।[১১]

২০০০ সালে 'এসোসিয়েশন ন্যাচারালিস দে আরাগন' আঞ্চলিক সংস্থা দ্বারা পরিষ্কারের কাজকে ভীষণভাবে নিন্দিত করেছে এবং বলেছে এর কারণে তীরবর্তী গাছপালা ধ্বংস হচ্ছে, মাছের সমস্যা হচ্ছে এবং নদীর বাস্তুসংস্থান ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। ২০০৯ সালের নভেম্বর মাসে জিলোকা অববাহিকায় একটি ভূমিক্ষয় তদন্ত ঘোষণা করেছে, সুরক্ষিত ভবিষ্যতের জন্য ভূমি'র কৌশলগত ব্যবহার প্রয়োজন।[১২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

অতীতে অনেক জল-কারখানা নদীর পানি দিয়ে চালিত হতো, কিন্তু বর্তমানে নদী ধ্বংসের দিকে যাচ্ছে। জিলোকা নদীর উপত্যকা মেসেটা সেন্ট্রাল, এব্রো এবং কোস্ট অব লিভান্ত'র মধ্যবর্তী একটি প্রাচীন যোগাযোগ মাধ্যম ছিল। উপত্যকার পুয়েবলোতে অনেক রোমান ব্রীজ গড়ে উঠেছিল।[৩][১৩]

শাখা-নদী[সম্পাদনা]

জিলোকা নদীর একটি শাখা নদী আছে যার নাম প্যানক্রুবো, এটি প্যানক্রুবো'র পুয়েবলো থেকে ৩ কিলোমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয় এবং এটি সাধারণত উত্তর-পশ্চিমে 'টররে লস নেগরোস', 'নাভারাটে ডেল রিও', লিচাগো এর আগে পর্যন্ত প্রবাহিত হয়। জিলোকা নদী লুকা দে জিলোকাতে পৌঁছাতে ৪৬ কি.মি পথ পাড়ি দেয়।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Río Jiloca, Ojos de Monreal" (Spanish ভাষায়)। Gobierno de Aragón। ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ২৩ নভেম্বর ২০০৯ 
  2. "Rio Pancrudo, afluente de Giloca" (PDF) (Spanish ভাষায়)। Centro de Estudios del Jiloca। সংগ্রহের তারিখ ২৪ নভেম্বর ২০০৯ 
  3. "Río Jiloca" (Spanish ভাষায়)। Centro de Cálculo de la Universidad de Zaragoza। সংগ্রহের তারিখ ২৩ নভেম্বর ২০০৯ 
  4. "Campo de Daroca"Localidades (Spanish ভাষায়)। CAI Turismo Aragón। সংগ্রহের তারিখ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১০ 
  5. "Río Jiloca en Calatayud, Ríos y Canales"Turismo de Zaragoza (Spanish ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২ এপ্রিল ২০১০ 
  6. "Río Jiloca"Google Maps। সংগ্রহের তারিখ ২ এপ্রিল ২০১০ 
  7. "Los aprovechamientos en la cuenca del Ebro: Afección en el régimen hidrológico fluvial" (Spanish ভাষায়)। Confederación Hidrografáfica del Ebro। ডিসেম্বর ২০০০। পৃষ্ঠা 56–57। সংগ্রহের তারিখ ২০ মার্চ ২০১০ 
  8. del Valle Melendo, Javier। "El regimen pluviometrico medio de la cuenca de rio Jiloca"Geographicalia (Spanish ভাষায়)। Zaragoza: Departamento de Geografía y Ordenación del Territorio, Universidad Zaragoza। 30: 145–154। সংগ্রহের তারিখ ২৩ নভেম্বর ২০০৯ 
  9. "Descripcion Villarquemado" (PDF) (Spanish ভাষায়)। Comunidad de Teruel। সংগ্রহের তারিখ ২৪ নভেম্বর ২০০৯ 
  10. "Ojos de Monreal del Campo" (Spanish ভাষায়)। Centro de Estudios del Jiloca। সংগ্রহের তারিখ ২৪ নভেম্বর ২০০৯ 
  11. "Río Jiloca. Manchones - Murero" (Spanish ভাষায়)। Gobierno de Aragón। সংগ্রহের তারিখ ২৪ নভেম্বর ২০০৯ 
  12. "Investigación sobre la erosión en toda la cuenca del Jiloca"La Crónica de la Comunidad de Calatayud (Spanish ভাষায়)। El Periódico। ৩ নভেম্বর ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২৩ নভেম্বর ২০০৯ 
  13. "Río Pancrudo"ADRI de las Tierras del Jiloca y Gallocanta (Spanish ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১০