গাঁজা (ঔষধ)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
গাঁজা
Cannabis Plant.jpg
ফুলসহ গাঁজা গাছ
উদ্ভিদবিদ্যা সংক্রান্তগাঁজা
উৎস উদ্ভিদ(সমূহ)সাতিভা গাঁজা, সাতিভা গাঁজা গঠন ইন্ডিকা, ক্যানাবিজ রুডের্লোইস
উদ্ভিদের অংশফুল
ভৌগলিক মূলমধ্য এবং দক্ষিণ এশিয়া[১]
সক্রিয় উপাদানটেটরাহাইড্রোক্যানাবিনল, ক্যানাবিডিওল, ক্যানাবিনল, টেটরাহাইড্রোক্যানাবিভারিন
প্রধান উৎপাদনকারীআফগানিস্তান,[২]

কানাডা,[৩] চীন, কলম্বিয়া,[৪] ভারত,[২] জ্যামাইকা,[২] লেবালন,[৫] মেক্সিকো,[৬] মরক্কো,[২] নেদারল্যান্ড, পাকিস্তান, প্যারাগুয়ে,[৬] স্পেন,[২] থাইল্যান্ড, তুরস্ক,

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র[২]

গাঁজা, সাধারণত মারিজুয়ানা,[৭] গঞ্জিকা, গাঞ্জা,[৮] সিদ্ধি ইত্যাদি নামে পরিচিত;a[›] মূলত গাঁজা উদ্ভিদের এক ধরনের প্রস্তুতি যা সাইকোঅ্যাক্টিভ ড্রাগ এবং ঔষধ হিসেবে ব্যবহারের উদ্দেশ্যে প্রস্তুত করা হয়।[৯][১০][১১] ফার্মাকোলজিক্যালি, গাঁজার প্রধান সাইকোঅ্যাক্টিভ উপাদান হল টেট্রাহাইড্রোক্যানাবিনল (টিএইচসি); এটি উদ্ভিদের ৪৮৩টি পরিচিত যৌগের ১টি,[১২] এছাড়াও ৮৪টি অন্যান্য ক্যানাবিনোয়েড্‌স রয়েছে,[১৩] যেমন ক্যানাবিডিওল (সিবিডি), ক্যানাবিনল (সিবিএন), টেট্রাহাইড্রোক্যানাবিভারিন (টিএইচসিভি),[১৪][১৫] এবং ক্যানাবিগেরো (সিবিজি)। গাঁজা সাধারণত ধূমপান, বাষ্পীকরণ, খাবারের মধ্যে মিশ্রণ, এবং নির্যাস হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।[১৬]

গাঁজা প্রায়ই এর সাইকোঅ্যাক্টিভ এবং শারীরবৃত্তীয় প্রভাবের জন্য ব্যবহৃত হয়, যেমন একটি "উচ্চ" বা "ভেলকা" অনুভূতি হিসাবে, সাধারণ উপলব্ধি পরিবর্তন, রমরমা (উচ্চমানের মেজাজ), এবং এবং ক্ষুধা বৃদ্ধি করে।[১৬][১৭] ধূমপানের মাধ্যমে সেবনে অল্প সময়ের মধ্যেই প্রভাবগুলির সূচনা হয়, অন্যদিকে রান্না করে খাওয়া হলে প্রায় ৩০ থেকে ৬০ মিনিট এর প্রভাব উপলব্ধ করা যায়।[১৬][১৮] উভয় ক্ষেত্রেই এর প্রভাব পাঁচ-ছয় ঘণ্টা স্থায়ী হতে পারে।[১৮] সম্ভাব্য স্বল্পমেয়াদী পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে, স্বল্পমেয়াদী স্মৃতি হ্রাস, মুখগহ্বরে শুষ্কতা, অনভিজ্ঞের মতোন আচরণ করা, চোখ লাল হওয়া, এবং প্যারানয়া (মস্তিষ্কবিকৃতিবিশেষ) বা উদ্বেগ অনুভূতি হওয়া।[১৬][১৯][২০] সম্ভাব্য দীর্ঘমেয়াদী পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে, মানসিক ক্ষমতা হ্রাস- যারা তের থেকে ঊনিশ বছর বয়সে সেবন শুরু করেছে, এবং শিশুদের মধ্যে আচরণগত সমস্যা দেখা দেয় যাদের মা গর্ভাবস্থায় গাঁজা সেবন করেন।[১৬] গবেষণায় গাঁজা ব্যবহার এবং মানসিক রোগের ঝুঁকি বিষয়ে শক্তিশালী সম্পর্ক পাওয়া গেছে;,[২১] যদিও কর্যিকারণ এবং প্রভাব সম্পর্কে বিতর্ক রয়েছে।[২২]

আধুনিককালে গাঁজা বিনোদনমূলক বা চিকিৎসার ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। প্রাথমিককালে ধর্মীয় বা আধ্যাত্মিক আচার-অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবেও খ্রিষ্টপূর্ব ৩ হাজার বছর পূর্বে এর ব্যবহার হত।[২৩] ২০১৩ সালের হিসেবে, ১২৮ এবং ২৩২ মিলিয়ন মানুষের মধ্যে গাঁজার ব্যবহার অনুমান করা যায় (বিশ্বব্যাপী জনসংখ্যার ১৫ এবং ৬৫ বছরের মধ্যে ২.৭% থেকে ৪.৯%)।[২৪] ২০১৫ সালের হিসেবে, ৪৬% মার্কিনী গ্যাঁজা ব্যবহার করে, যা ২০১৬ সালে ৫১% বৃদ্ধি পেয়েছে।[২৫] প্রায় ১২% বিগত বছরের মধ্যে এর ব্যবহার করেছেন, এবং ৭.৩% বিগত মাসে এর ব্যবহার করেন।[২৬] বিশ্বের এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উভয় ক্ষেত্রেই এটি সর্বাধিক ব্যবহৃত অবৈধ ড্রাগ।[১৬][২৪]

প্রাথমিভাবে ৩য় সহস্রাব্দের বিসি থেকে গাঁজার ব্যবহার সম্পর্কে জানা যায়।[২৩] বিংশ শতাব্দীর প্রথম দিকে থেকে, গাঁজা আইনি সীমাবদ্ধতার বিষয় হয়ে ওঠে। বিশ্বের বেশিরভাগ দেশেই গাঁজার মালিকানা, ব্যবহার, এবং বিক্রয় অবৈধ।[২৭][২৮] চিকিৎসাবিজ্ঞানে মারিজুয়ানা বা গাঁজা মূলত চিকিৎসক-প্রস্তাবিত ভেষজ থেরাপি হিসাবে গাঁজা উদ্ভিদের ব্যবহার বোঝায়, যা ইতোমধ্যে কানাডা, বেলজিয়াম, অস্ট্রেলিয়া, নেদারল্যান্ড, স্পেন, এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৩২টি রাজ্যে স্থান করে নিয়েছে।[২৯] ১৯৭০-এর দশকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গাঁজার ব্যবহার জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।[৩০] এরপর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আইনিকরণের জন্য সহায়তা বৃদ্ধি পেয়েছে এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি রাজ্যে বিনোদনমূলক বা চিকিৎসা সেবার জন্য গাঁজার বৈধকরণ করা হয়েছে।[৩১]

প্রভাব[সম্পাদনা]

গাঁজার প্রধান স্বল্পমেয়াদী শারীরিক প্রভাব

গাঁজার সেবনের সাইকোঅ্যাক্টিভ এবং শারীরবৃত্তীয় নানান প্রভাব রয়েছে।[৩২] গাঁজার তাৎক্ষণিক গ্রাসকারী প্রভাবের মধ্যে শিথিলায়ন এবং হালকা রমরমা মেজাজ অন্তর্ভুক্ত ("উচ্চ" বা "স্টোন্ড" অনুভূতি), কিছু তাৎক্ষণিক অবাঞ্ছিত পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে স্বল্পমেয়াদী স্মৃতি হ্রাস, মুখগহ্বর শুষ্কতা, অনভিজ্ঞ করে তোলা, চোখ লাল হওয়া প্রভৃতি।[৩৩] পাশাপাশি বোধ এবং মেজাজ বা মানসিক অবস্থার বিষয়ী পরিবর্তন, সর্বাধিক সাধারণ স্বল্পমেয়াদী শারীরিক ও স্নায়বিক প্রভাবের মধ্যে হৃদস্পন্দন বৃদ্ধি, ক্ষুধা বৃদ্ধি ও অতিরিক্ত খাদ্য গ্রহণ, নিম্ম রক্তচাপ, স্বল্পমেয়াদী এবং কর্ম স্তৃতির অবনতি,[৩৪][৩৫] মানসিক সমন্বয় এবং একাগ্রতা অর্ন্তভূক্ত।

প্রস্তুতি[সম্পাদনা]

মারিজুয়ানা[সম্পাদনা]

মারিজুয়ানা বলতে শুকনো ফুল এবং স্ত্রী গাঁজা উদ্ভিদের কচি পাতা ও ডালপালাকে বুঝায়।[৩৬][৩৭] এটি গাঁজার সর্বাধিক প্রচলিত ধরন যার মাঝে টিএইচসি এর পরিমাণ থাকে ৩%-২০%[৩৮] এছাড়াও সর্বোচ্চ ৩৩% টিএইচসি ও অনেক ধরনের মাঝে পাওয়া যায়।[৩৯] এছাড়াও, বিভিন জাতের মিশ্রণ ঘটিয়ে গাঁজার শিল্প উৎপাদন করা হয় যেখানে টিএইচসি এর পরিমাণ থাকে ১% এবং এ কারণে এটি বিনোদনমূলক ব্যবহারের অনুপযোগী।[৪০]

কিফ[সম্পাদনা]

কিফ ট্রাইকোম সমৃদ্ধ একধরনের গুঁড়া,[৪১] যা গাঁজা গাছের ফুল ও পাতা থেকে সংগ্রহ করা যায় এবং একে গুঁড়া অবস্থায় সেবন বা হ্যাশিশ কেক উৎপাদনের জন্য প্রক্রিয়াজাত করা হয়।[৪২] "কিফ" শব্দটি চলিত আরবি كيف kēf/kīf থেকে এসেছে, যার অর্থ পরিতোষ বা সন্তুষ্টি বোঝায়।[৪৩]

হাশিশ[সম্পাদনা]

হাশিশ (এছাড়াও হাশীশ, হাশিশা, বা কেবল হ্যাশ নামে পরিচিত) একধরনের ঘনীভূত রজন কেক বা বল বিশেষ যা, গাঁজার ফুল এবং পাতা থেকে নিঃসৃত ট্রিকহোম এবং উত্তম উপাদানসমন্বিত কিফ থেকে চিপে উৎপাদন করা হয়।[৪৪] এটি খাওয়া কিংবা ধোঁয়া হিসেবে পান করা হয়।

টিঙ্কচার[সম্পাদনা]

হ্যাশ তেল[সম্পাদনা]

হ্যাশ তেল গাঁজা উদ্ভিদ থেকে দ্রাবক নিষ্কাশনের মাধ্যমে পাওয়া যায়।

আধান[সম্পাদনা]

অনুদ্বায়ী দ্রাবক ব্যবহৃত গাঁজার আধান আরোপের বিভিন্ন ধরন রয়েছে।

বিমিশ্র গাঁজা[সম্পাদনা]

দূষণকারী মূলত "সাবান বার" ধরনের উৎস থেকে প্রাপ্ত হাশিশ থেকে পাওয়া যেতে পারে।[৪৫]

ব্যবহার[সম্পাদনা]

রোলিংয়ের পূর্বে একটি জয়েন্ট, বামে: কাগজ এবং হস্তনির্মিত ফিল্টার

ব্যবহার পদ্ধতি[সম্পাদনা]

গাঁজা বিভিন্ন উপায়ে ব্যবহার করা হয়:[৪৬]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

^ a: গাঁজা,[৪৭] পট,[৪৮] গ্রাস,[৪৯] এবং ঔষধি[৫০] ওষুধ হিসেবে গাঁজা বা ভাংয়ের অন্যান্য ডাকনাম।[৫১][৫২]
^ b: চিকিৎসাবিজ্ঞানে গাঁজা নিবন্ধে এই বিভাগের জন্য আরও তথ্য এবং উৎস পাওয়া যাবে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Mahmoud A. ElSohly (২০০৭)। Marijuana and the Cannabinoids। Springer। পৃষ্ঠা 8। আইএসবিএন 978-1-59259-947-9। ২ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  2. United Nations। "World Drug Report 2013" (PDF)। The united Nations। ২৬ জানুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  3. "Medical Use of Marijuana"Health Canada। ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৫ 
  4. "New Colombia Resources Inc Subsidiary, Sannabis, Produces First Batch of Medical Marijuana Based Products in Colombia to Fill Back Orders."prnewswire.com। PR Newswire। ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৫ 
  5. Rana Moussaoui (নভে ২৫, ২০১৩)। "Lebanon cannabis trade thrives in shadow of Syrian war"। AFP। মার্চ ৩১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৭ 
  6. Sanie Lopez Garelli (২৫ নভেম্বর ২০০৮)। "Mexico, Paraguay top pot producers, U.N. report says"CNN International। ২৫ ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  7. See article on Marijuana as a word.
  8. "Ganja – Definition"। Merriam-Webster Dictionary। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-১৭ 
  9. Vij (২০১২)। Textbook Of Forensic Medicine And Toxicology: Principles And Practice। Elsevier India। পৃষ্ঠা 672। আইএসবিএন 978-81-312-1129-8। ১১ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ নিবন্ধ দেখুন মারিজুয়ানা একটি শব্দ হিসেবে
  10. টেমপ্লেট:ShorterOxfordEnglishDictionary
  11. Editors of the American Heritage Dictionaries (২০০৭)। Spanish Word Histories and Mysteries: English Words That Come From Spanish। Houghton Mifflin Harcourt। পৃষ্ঠা 142। আইএসবিএন 978-0-547-35021-9। ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  12. Ethan B Russo (২০১৩)। Cannabis and Cannabinoids: Pharmacology, Toxicology, and Therapeutic Potential। Routledge। পৃষ্ঠা 28। আইএসবিএন 978-1-136-61493-4। ৭ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  13. Newton, David E. (২০১৩)। Marijuana : a reference handbook। Santa Barbara, Calif.: ABC-CLIO। পৃষ্ঠা 7। আইএসবিএন 9781610691499 
  14. El-Alfy, Abir T; ও অন্যান্য (জুন ২০১০)। "Antidepressant-like effect of delta-9-tetrahydrocannabinol and other cannabinoids isolated from Cannabis sativa L"Pharmacology Biochemistry and Behavior95 (4): 434–42। ডিওআই:10.1016/j.pbb.2010.03.004পিএমআইডি 20332000পিএমসি 2866040অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  15. Fusar-Poli P, Crippa JA, Bhattacharyya S; ও অন্যান্য (জানুয়ারি ২০০৯)। "Distinct effects of delta-9-tetrahydrocannabinol and Cannabidiol on Neural Activation during Emotional Processing"Archives of General Psychiatry66 (1): 95–105। ডিওআই:10.1001/archgenpsychiatry.2008.519পিএমআইডি 19124693 
  16. "DrugFacts: Marijuana"National Institute on Drug Abuse। মার্চ ২০১৬। ১৭ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ এপ্রিল ২০১৬ 
  17. "Marijuana: Factsheets: Appetite"। Adai.uw.edu। ২০১৬-০৩-০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৭-১২ 
  18. Riviello, Ralph J. (২০১০)। Manual of forensic emergency medicine : a guide for clinicians। Sudbury, Mass.: Jones and Bartlett Publishers। পৃষ্ঠা 41। আইএসবিএন 9780763744625। ১৮ মার্চ ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  19. "Marijuana intoxication: MedlinePlus Medical Encyclopedia"। Nlm.nih.gov। ২০১৩-০৭-০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৭-১২ 
  20. Crippa, JA; Zuardi, AW; Martín-Santos, R; Bhattacharyya, S; Atakan, Z; McGuire, P; Fusar-Poli, P (অক্টোবর ২০০৯)। "Cannabis and anxiety: a critical review of the evidence."। Human psychopharmacology24 (7): 515–23। ডিওআই:10.1002/hup.1048পিএমআইডি 19693792 
  21. Leweke FM, Mueller JK, Lange B, Rohleder C (২০১৬)। "Therapeutic Potential of Cannabinoids in Psychosis"Biol. Psychiatry79 (7): 604–12। ডিওআই:10.1016/j.biopsych.2015.11.018পিএমআইডি 26852073 
  22. Ksir, C; Hart, CL (ফেব্রুয়ারি ২০১৬)। "Cannabis and Psychosis: a Critical Overview of the Relationship."। Current Psychiatry Reports18 (2): 12। ডিওআই:10.1007/s11920-015-0657-yপিএমআইডি 26781550 
  23. Martin Booth (২০০৩)। Cannabis: A History। Transworld। পৃষ্ঠা 36। আইএসবিএন 978-1-4090-8489-1। ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  24. "Status and Trend Analysis of Illict [sic] Drug Markets"। World Drug Report 2015 (PDF)। পৃষ্ঠা 23। ২৭ জুন ২০১৫ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুন ২০১৫ 
  25. "Marijuana use and support for legal marijuana continue to climb"। ১৩ অক্টোবর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  26. Motel, Seth (১৪ এপ্রিল ২০১৫)। "6 facts about marijuana"Pew Research Center। ২৭ জুন ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুন ২০১৫ 
  27. "Cannabis: Legal Status"। Erowid.org। ২০১৯-১২-১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১০-৩০ 
  28. UNODC। World Drug Report 2010। United Nations Publication। পৃষ্ঠা 198। ২০১০-০৭-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৭-১৯ 
  29. "23 Legal Medical Marijuana States and DC Laws, Fees, and Possession Limits"ProCon। ৭ মে ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ মে ২০১৫ 
  30. Gallup, Inc.। "More Than Four in 10 Americans Say They Have Tried Marijuana"Gallup.com। ১৪ জুন ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  31. Linshi, Jack (২০১৪-০৬-২৬)। "Americans Are Smoking More Pot"Time। ২০১৭-১০-২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৯-০৯ 
  32. Emmanuel S Onaivi; Takayuki Sugiura; Vincenzo Di Marzo (২০০৫)। Endocannabinoids: The Brain and Body's Marijuana and Beyond। Taylor & Francis। পৃষ্ঠা 58। আইএসবিএন 978-0-415-30008-7। ৭ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ এপ্রিল ২০১৫ 
  33. Wayne Hall; Rosalie Liccardo Pacula (২০০৩)। Cannabis Use and Dependence: Public Health and Public Policy। Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 38। আইএসবিএন 978-0-521-80024-2। ৭ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ এপ্রিল ২০১৫ 
  34. Mary Lynn Mathre (১৯৯৭)। Cannabis in Medical Practice: A Legal, Historical, and Pharmacological Overview of the Therapeutic Use of Marijuana। University of Virginia Medical Center। পৃষ্ঠা 144–। আইএসবিএন 978-0-7864-8390-7। ৭ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ এপ্রিল ২০১৫  অজানা প্যারামিটার |coauthors= উপেক্ষা করা হয়েছে (|author= ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে) (সাহায্য)
  35. Riedel, G.; Davies, S.N. (২০০৫)। "Cannabinoid function in learning, memory and plasticity"Handb Exp Pharmacol। Handbook of Experimental Pharmacology। 168 (168): 446। আইএসবিএন 3-540-22565-Xডিওআই:10.1007/3-540-26573-2_15পিএমআইডি 16596784 
  36. Wayne Hall; Rosalie Liccardo Pacula (২০০৩)। Cannabis Use and Dependence: Public Health and Public Policy। Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 13। আইএসবিএন 978-0-521-80024-2। ৭ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ এপ্রিল ২০১৫ 
  37. United Nations Office on Drugs and Crime (২০০৯)। Recommended Methods for the Identification and Analysis of Cannabis and Cannabis Products। United Nations Publications। পৃষ্ঠা 15। আইএসবিএন 978-92-1-148242-3। ৭ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ এপ্রিল ২০১৫ 
  38. Patricia A. Adler; Peter Adler; Patrick K. O'Brien (ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১২)। Drugs and the American Dream: An Anthology। John Wiley & Sons। পৃষ্ঠা 330–। আইএসবিএন 978-0-470-67027-9। এপ্রিল ৭, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৯, ২০১৫ 
  39. Clayton J. Mosher; Scott M. Akins (আগস্ট ২০, ২০১৩)। Drugs and Drug Policy: The Control of Consciousness Alteration। SAGE Publications। পৃষ্ঠা 17। আইএসবিএন 978-1-4833-2188-2। এপ্রিল ৭, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৯, ২০১৫ 
  40. "Hemp Facts"। Naihc.org। ২০১২-১১-২৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০১-০৯ 
  41. Ed Rosenthal (২০০২)। Ask Ed : Marijuana Gold: Trash to Stash। QUICK AMER Publishing Company। পৃষ্ঠা 116। আইএসবিএন 978-0-932551-52-8। ৭ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ এপ্রিল ২০১৫ 
  42. "Kief"। Cannabisculture.com। ২০০৫-০৩-০৯। ২০০৯-০৬-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০১-০২ 
  43. David Bukszpan (২০১২)। Is That a Word?: From AA to ZZZ, the Weird and Wonderful Language of SCRABBLE। Chronicle Books। পৃষ্ঠা 94। আইএসবিএন 978-1-4521-0824-7। ৭ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ এপ্রিল ২০১৫ 
  44. "Hashish"। dictionary.reference.com। ৩ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ এপ্রিল ২০১৫ 
  45. Leslie L. Iversen Professor of Pharmacology University of Oxford (২০০৭)। The Science of Marijuana। Oxford University Press। পৃষ্ঠা 194। আইএসবিএন 978-0-19-979598-7। ৭ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ এপ্রিল ২০১৫ 
  46. Andrew Golub (২০১২)। The Cultural/Subcultural Contexts of Marijuana Use at the Turn of the Twenty-First Century। Routledge। পৃষ্ঠা 82। আইএসবিএন 978-1-136-44627-6। ৭ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ এপ্রিল ২০১৫ 
  47. "Weed – Definition"। Merriam-Webster Dictionary। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-১০-০৯ 
  48. "Pot – Definition"। Merriam-Webster Dictionary। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-১০-০৯ 
  49. "Grass – Definition"। Merriam-Webster Dictionary। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-১০-০৯ 
  50. "Herb – Definition"। Merriam-Webster Dictionary। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-১০-০৯ 
  51. Pedro Ruiz, M.D.; Eric C. Strain (২০১১)। Substance Abuse: A Comprehensive Textbook। Lippincott Williams & Wilkins। পৃষ্ঠা 214। আইএসবিএন 978-1-60547-277-5। ৭ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  52. "Marijuana Dictionary"। ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]