একাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
একাডেমি অফ মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সাইন্সেস
পূর্ণ নাম Academy of Motion Picture Arts and Sciences
প্রতিষ্ঠাকাল মে ১১, ১৯২৭
সদস্য ৬,০০০
দেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
নেতৃবৃন্দ্র সিড গ্রনিস, সভাপতি
দপ্তরের অবস্থান বেভারলি হিল্‌স, ক্যালিফোর্নিয়া, লস অ্যাঞ্জেল্‌স
ওয়েবসাইট www.oscars.org

একাডেমি অফ মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সাইন্সেস (Academy of Motion Picture Arts and Sciences, AMPAS) চলচ্চিত্র বিষয়ক বিজ্ঞান ও শিল্পকলার উন্নয়নের জন্য প্রতিষ্ঠিত একটি অনারারি মার্কিন প্রতিষ্ঠান। ১৯২৭ সালের ১১ মে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেল্‌স অঙ্গরাজ্যের ক্যালিফোর্নিয়া শহরে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এর সদস্যরা চলচ্চিত্র জগতের সাথে কোনো না কোনো ভাবে জড়িত রয়েছেন। একাডেমির সদস্য সংখ্যা ৬,০০০-এর উপর।[১] সদস্যের অধিকাংশই মার্কিন, তবে যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে অন্য কোন দেশের চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব নিজ পেশায় দক্ষতা প্রমাণ করতে পারলে এর সদস্যপদ রাভ করতে পারেন। ২০০৪ সালের তথ্যমতে এই প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বের ৩৬টি দেশের চলচ্চিত্র নির্মাতাদেরকে এর অন্তর্ভুক্ত করতে পেরেছে।

সমগ্র বিশ্বে এই একাডেমিটি একাডেমি পুরস্কার তথা অস্কার অ্যাওয়ার্ড প্রদানের জন্য বিশেষভাবে পরিচিত।[২] এছাড়াও একাডেমি প্রতি বছর স্নাতক ও এর থেকে নিম্ন পর্যায়ে অধ্যয়নরত চলচ্চিত্রের ছাত্রদেরকে শিক্ষার্থী একাডেমি পুরস্কার প্রদান করে থাকে। প্রতিষ্টানের পক্ষ থেকে চলচ্চিত্রের স্ক্রিন লেখার উপর সর্বোচ্চ পাঁচজনকে পর্যন্ত নিকোল ফেলোশিপ প্রদান করে আ হয়। ক্যালিফোর্নিয়ার বেভারলি হিল্‌স-এ অবস্থিত মার্গারেট হেরিক গ্রন্থাগার এবং একই শহরের হলিউডে অবস্থিত পিকফোর্ড চলচ্চিত্র অধ্যয়ন কেন্দ্র এই প্রতিষ্ঠানের অধীনে নিয়ন্ত্রিত ও পরিচালিত হয়। একাডেমির বর্তমান সভাপতির নাম সিড গেনিস

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

যেগুলোর সাথে গুলিয়ে ফেলা ঠিক নয়[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Unmasking Oscar: Academy voters are overwhelmingly white and male John Horn, Nicole Sperling and Doug Smith, The LA Times, Feb 19, 2012
  2. ^ Pond, Steve (February 19, 2013). "AMPAS Drops '85th Academy Awards' - Now It's Just 'The Oscars'". The Wrap. Retrieved February 22, 2013.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]