আইকনিক টাওয়ার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আইকনিক টাওয়ার
সাধারণ তথ্য
অবস্থাঅনুমোদিত
অবস্থানপূর্বাঞ্চল নতুন শহর
শহরঢাকা
দেশবাংলাদেশ
নির্মাণ শুরু হয়েছে২০১৬
আনুমানিক সম্পূর্ণকরণ২০২০
ব্যয়USD $ ৩ বিলিয়ন
উচ্চতা
স্থাপত্য৭৩৪ মিটার (২,৪০৮ ফু)
অগ্রভাগ৭৩৪ মিটার (২,৪০৮ ফু)
অ্যান্টেনা পেঁচ৭৩৪ মিটার (২,৪০৮ ফু)
কারিগরী বিবরণ
তলার সংখ্যা১৪২
নকশা এবং নির্মান
স্থাপত্য সংস্থাকেপিসি গ্রুপ
তথ্যসূত্র
[১]

আইকনিক টাওয়ার হচ্ছে একটি প্রস্তাবিত ৭৩৪ মিটার (২,৪০৮ ফু) ১৪২তলা বিশিষ্ট আকাশচুম্ভী ভবন যা নির্মিত হবে পূর্বাঞ্চল নতুন শহর, ১৯ নম্বর সেক্টর, বাংলাদেশে।[২] এর নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে $৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এটি এই অঞ্চলের ব্যাবসায় বাণিজ্যের উপর ব্যপক প্রভাব ফেলবে এবং একে ঘিরে আরো কয়েকটি বাণিজ্যিক ভবন নির্মিত হবে। এর নির্মাণের জন্য ২০১৬-এ একটি আন্তর্জাতিক দরপত্র আহব্বান করা হয়েছে।

ভৌগলিক অবস্থান[সম্পাদনা]

ভৌগলিক স্থানাঙ্কে আইকনিক টাওয়ারের অবস্থান ২৩°৫১′০০″ উত্তর ৯০°৩০′৪৬″ পূর্ব / ২৩.৮৪৯৯১৬৩° উত্তর ৯০.৫১২৮২২৬° পূর্ব / 23.8499163; 90.5128226

সার্বিক দিক[সম্পাদনা]

বিল্ডিংটি নির্মাণের প্রথম প্রস্তাবনা করে যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক আবাসন নির্মাণ কোম্পানি কেপিসি গ্রুপ,প্রতিষ্ঠাতা কালী পি. চৌধুরী।[৩][৪] কোম্পানীটি প্রথমে ১০০ একর জায়গার প্রস্তাবনা করে, পরে তা কমিয়ে ৬০ একরে আনা হয়। [৫] মে ২০১৬ তে জমিটি নিলামে উঠানোর প্রস্তাবনা করা হয়েছিল কিন্তু কোনো কোম্পানী দর হাকায় নি। [৬] সেপ্টেম্বর ২০১৬-এ গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী মোশার্রফ হোসেন বলেন পরবর্তী দুইমাসে দরপত আহ্বান শেষ হয়ে যাবে।[৭]

প্রকল্পটি তিন ভাগে বিভক্ত,প্রথম পর্বে আইকনিক টাওয়ার নির্মাণ শেষ হবে। দ্বিতীয় পর্বে ভবনটিকে ঘিরে আরো অনেক বাণিজ্যিক ভবন নির্মিত হবে। তৃতীয় পর্বে থাকবে কৃত্রিম লেক,মেগা শপিং মল, ৫ তারকা মানের আন্তজার্তিক হোটেল, ৭০ হাজার সিটের একটি ক্রীড়া কেন্দ্র থাকবে এটির নাম হবে পূর্বাঞ্চল ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট আরেনা। প্রকল্পটি ঢাকার একটি নতুন জেলা হবে এবং দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ ব্যাবসায় জেলা হবে। বুয়েটের গবেষনা বিভাগ,টেস্টিং,পরামর্শ বিভাগ এবং রাজউক হবে প্রকল্পটির প্রধান পরামর্শক।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Kollol, Asif Shawkat (২২ জুন ২০১৬)। "দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ ভবন নির্মাণের অনুমোদন দিলেন প্রধানমন্ত্রী"Dhaka Tribune। ২৬ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ নভেম্বর ২০১৬ 
  2. http://www.kalerkantho.com/print-edition/last-page/2018/02/06/598695
  3. Rahman, Md Mahfuzur (১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "পূর্বাঞ্চলে ১০০ তলা বিশিষ্ট কনভেনশন সেন্টার"RisingBD। সংগ্রহের তারিখ ১ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  4. "কালী চৌধুরী কেপিসি গ্রুপের চেয়ারম্যান"The KPC Group। ১৯ জুলাই ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০১৯ 
  5. Hasan, Mahamudul (১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬)। "আকাশচুম্ভী ভবন নির্মাণের অনুমোদন দিল রাজউক"New Age। Dhaka। সংগ্রহের তারিখ ২৫ নভেম্বর ২০১৬ 
  6. "পূর্বাঞ্চলে ১৩০ তলা ভবন নির্মাণে কোন কোম্পানি আগ্রহ দেখায়নি"New Age। Dhaka। ২৬ মে ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৫ নভেম্বর ২০১৬ 
  7. "২০১৮ এ পূর্বাঞ্চল শেষ করতে হবে রাজউককে"The Financial Express। Dhaka। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৫ নভেম্বর ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]