সেনতোর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সেনতোর
ডাকনাম: কেনতোর, কেনতোরাস, Κένταυρος
Centaure Malmaison crop.jpg
সেনতোরের ব্রোঞ্জ মূর্তি
পুরাণ গ্রিক
শ্রেণীকরণ কিংবদন্তী প্রনী
সাব-শ্রেণীকরণ সংকর
অঞ্চল গ্রিস
আবাস ভূমি
অনুরূপ প্রাণী মিনোতোর, সাতাইর, হারপে

সেনতোর (গ্রিক: Κένταυρος, Kéntauros) অথবা হাইপো সেনতোর[১][২][৩] হলো গ্রিক পুরানের একটি বিশেষ ধরনের প্রনী যার শরীরের উপরের অংশ মানুষের মত এবং নিচের অংশ ঘোরার মত। এদের মাথা, হাত ও গলা মানুষের মত কিন্তু দেহ ও পা ঘোরার মত।[৪]

নারী সেনতোর[সম্পাদনা]

নারী সেনতোর

নারী সেনতোরদের ‘কেনতোরিডাস’ বলা হয় যদিও প্রথমদিকের গ্রিক পুরান এবং শিল্পকলায় তাদের অস্তিত্ত ছিল না। মেসিডোনিয়ান মোজাইক হলো খ্রিস্টপূর্ব ৪র্থ শতকের[৫] একটি নারী সেনতোরের প্রকৃষ্ঠ উদাহরন। ওভিড[৬] হাইলোনোমি নামে এক নারী সেনতোর এর কথা বলে যান যিনি তার স্বামী সাইলারাস লফিথস যুদ্ধে মারা যাবার পর আত্মহত্যা করেন।

নেপলিস এর চিত্রকর্মের এক বর্ননায় পাওয়া যায় নারী সেনতোররা হলো পুরুষ সেনতোরদের স্ত্রী অথবা বোন যারা তাদের ছেলেমেয়েদের নিয়ে পেলিয়ন পর্বতে বসবাস করত।

"How beautiful the Centaurides are, even where they are horses; for some grow out of white mares, others are attached to chestnut mares, and the coats of others are dappled, but they glisten like those of horses that are well cared for. There is also a white female Centaur that grows out of a black mare, and the very opposition of the colours helps to produce the united beauty of the whole."[৭]

নিকট বর্তমান থেকে সাধারনত নারী সেনতোর এর মতবাদ জনপ্রিয় হওয়া শুরু করে। শেক্সপিয়ার এর কিং লিয়ারের একক্ট ৪, দৃশ্য ৬ এর ১২৪-১২৫ পৃষ্ঠায় দেওয়া আছে, “ডাউন ফ্রম দ্য ওয়াইস্ট দে আর সেনতোরস,/ দ্যো ওমেন অল এভাব”। ডিজনির নির্মিত অ্যানিমেটেড চলচ্চিত্র ‘ফ্যানটাসিয়াতে’ কিছু নারী সেনতোরকে দেখানো হয় যদিও ডিজনি তাদের ‘কেনতোরিডাস’ এর বদলে সেনতোরিতাস বলে অবহিত করে।

স্থির চিত্র[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. thefreedictionary.com
  2. dictionary.reference.com
  3. definitions.net
  4. "Definition of centaur"Oxford Dictionaries। Oxford University Press। 
  5. Pella Archaeological Museum.
  6. Ovid, Metamorphoses 12. 210 ff., the name Hylonome is Greek so Ovid may have drawn her story from an earlier Greek writer.
  7. Philostratus the Elder, Imagines 2. 3.

আরো পড়ুন[সম্পাদনা]

  • M. Grant and J. Hazel. Who's Who in Greek Mythology. David McKay & Co Inc, 1979.
  • Rose, Carol (2001)। Giants, Monsters, and Dragons: An Encyclopedia of Folklore, Legend, and Myth। New York, New York: W. W. Norton & Company, Inc.। পৃ: 72। আইএসবিএন 0-393-32211-4 
  • Harry Potter, books 1, 3, 4, 5, 6, and 7.
  • The Chronicles of Narnia, book 2.
  • The Lightning Thief, book 1.
  • Frédérick S. Parker. Finding the Kingdom of the Centaurs.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]