সন্ত পৌল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

সাধু পৌল[সম্পাদনা]

সাধু পৌল ছিলেন একজন প্রচারক। তার পূর্বের নাম ছিল শৌল। সাধু পৌল প্রথম জীবনে ছিলেন একজন খ্রীষ্ট ধর্ম বিদ্ধেষী ও খ্রিস্টান দের প্রতি অত্যাচারি ছিলেন। সাধু পৌল একজন ইহুদি। কিলিকিয়ার তার্য শহরে তার জন্ম,এই শহরেই তিনি বড় হন। শিক্ষক গমলিয়েল এর কাছে তিনি ইহুদি ধর্ম সম্পর্কে শিক্ষা লাভ করেন। তিনি কঠোর ভাবে ইহুদি নিয়ম-কানুন পালন করতেন। যীশুর পথে যারা চলতেন তিনি তাদের অত্যাচার করে হত্যা করতেন। ইহুদি মহাপুরোহিত ও ধর্ম নেতাদের আদেশে খ্রিস্টানদের বন্দি করতে তিনি দম্মেশক শহর থেকে যিরুশালেম শহর যাচ্ছিলেন। তখন বেলা প্রায় দুপুর। দম্মেশকের কাছাকাছি আসলে পর হঠাৎ তার চারদিকে স্বর্গ থেকে উজ্জ্বল আলো পড়লো, আর তিনি মাটিতে পড়ে গেলেন। তিনি শুনতে পেলেন কেউ যেন তাকে বলছেন ‚‘শৌল শৌল, কেন তুমি আমাকে কষ্ট দিচ্ছ ? তিনি জিজ্ঞাসা করলেন প্রভু আপনি কে ? তিনি বললেন আমি নাসরতের যীশু যাকে তুমি কষ্ট দিচ্ছ। তখন শৌল বললেন প্রভু আমি কি করবো ? প্রভু বললেন ওঠ দম্মেশক এ যাও, তোমার জন্য যা ঠিক করে রাখা হয়েছে তা সেখানেই তোমাকে বলা হবে। তখন তার সঙ্গীরা তাকে দম্মেশকে নিয়ে গেল কেননা শৌল অন্ধ হয়ে গিয়েছিল। পরে সাধু অননিয় নামে একজন খ্রিস্ট ভক্ত তার কাছে আসলো। তিনি তার পাশে দাঁড়িয়ে বললেন ভাই শৌল তোমার দেখবার শক্তি ফিরে আসুক আর তখনি শৌল দৃষ্টি শক্তি ফিরে পেলেন। অননিয় আরও বললেন যীশু তোমাকে বেছে নিয়েছেন, তুমি তারই সাক্ষী হবে এবং যা দেখেছ ও শুনেছ সব মানুষের নিকট তা বলবে। তখন শৌল বাপ্তিস্মও গ্রহণ করলেন এবং পৌল নাম গ্রহণ করলেন। এরপর পৌল খ্রিস্ট ধর্ম প্রচারে আত্মনিয়োগ করেন। সাধু পৌল নতুন নিয়মের ১৩টি পুস্তকের লেখক। কিছু গবেষক এর মতে সাধু পৌল রোমে মৃত্যুবরণ করেন।