লখনাগার মাইন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

স্থানাঙ্ক: ৫০°০০′৫৬″ উত্তর ২°৪১′৫০″ পূর্ব / ৫০.০১৫৫৬° উত্তর ২.৬৯৭২২° পূর্ব / 50.01556; 2.69722

লখনাগার মাইন, সম, ফ্রান্স; এটি যুদ্ধজনিত বিস্ফোরণে সৃষ্ট পৃথিবীর বৃহত্তম খাদ

লখনাগার মাইন (ইংরেজি: Lochnagar mine) ছিল একটি বিস্ফোরক-পূর্ণ মাইন বা সুড়ঙ্গ যা ফ্রান্সের সম দেপার্ত্যমঁ-র লা বোয়াজেল গ্রামের দক্ষিণে খোঁড়া হয়েছিল। সমের যুদ্ধের প্রথম দিনে, ১৯১৬ সালের ১লা জুলাই সকাল ৭টা ২৮ মিনিটে, এটিতে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। লখনাগার মাইন এবং গ্রামের উত্তরে খোঁড়া ই সাপ মাইন দুইটিতে একত্রে ২৪ টন বিস্ফোরক ভরা হয়েছিল। সে সময় এই দুইটিই ছিল সবচেয়ে বড় মাইন।

ব্রিটিশ বিমানবাহিনী ৩ নং স্কোয়াড্রনের ২য় লেফটেন্যান্ট সেসিল লিউইস মাইনটির বিস্ফোরণ আকাশ থেকে পর্যবেক্ষণ করেন। তাঁর বিবরণ নিচে ইংরেজিতে দেওয়া হল।

The whole earth heaved and flashed, a tremendous and magnificent column rose up in the sky. There was an ear-splitting roar drowning all the guns, flinging the machine sideways in the repercussing air. The earth column rose higher and higher to almost 4,000 feet. There it hung, or seemed to hang, for a moment in the air, like the silhouette of some great cypress tree, then fell away in a widening cone of dust and debris.

বিস্ফোরণের ফলে ভূ-পৃষ্ঠের এক বিরাট অংশ কলাম আকারে প্রায় ৪ হাজার ফুট উপরে উঠে যায়। সুড়ঙ্গের উপরেই জার্মান সেনারা অবস্থান করছিল। এই বিস্ফোরণে অগণিত জার্মান সেনা নিহত হয়। আজও লখনাগার মাইনের বিস্ফোরণে সৃষ্ট বিশাল এক খাদ ফ্রান্সের সম-এ রয়ে গেছে। এটি প্রায় ৩০০ ফুট চওড়া ও ৯০ ফুট গভীর। আজও এটি পৃথিবীর বুকে যুদ্ধের ফলে সৃষ্ট সবচেয়ে বড় ক্ষত।

স্মরণ[সম্পাদনা]

লখনাগার খাদটি ভরাট করার প্রচেষ্টায় বাধা দেওয়া হয়। পরবর্তীকালে একজন ইংরেজ রিচার্ড ডানিং ১৯৭৮ সালে খাদটি কিনে নেন এবং এটি সংরক্ষণের ব্যবস্থা করেন। বর্তমানে এখানে একটি স্মৃতিসৌধ ও কাঠের তৈরি একটি ক্রুশ রয়েছে।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]