দৈব পরীক্ষা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

দৈব পরীক্ষা সম্ভাবনা তত্ত্বে, একই ধরনের শর্তের সাপেক্ষে কোনো পরীক্ষা যদি বার বার পুনরাবৃত্ত করা হয়, সেই পরীক্ষার ফলাফলকে দৈব পরীক্ষা বলা হয়। তবে শর্ত হচ্ছে পরীক্ষা সম্পাদনের আগে নিশ্চিতভাবে ফলাফল সন্মন্ধে ভবিষ্যদ্বাণী করা যাবে না। তবে, কি কি সম্ভাব্য ফলাফল হতে পারে, তার একটি তালিকা বা নমুনাক্ষেত্র থাকলে, ফলাফল সেই তালিকার কোনো একটিতে অবশ্যই পড়বে।

উদাহরণ দেয়া যেতে পারে একটি মুদ্রাকে দিয়ে: মুদ্রা উপরদিকে নিক্ষেপ করলে মাটিতে পড়ে মুদ্রার মাথা (head) বা মুদ্রার উল্টা দিক (tail) দৃশ্যমান হতে পারে। এখানে পরীক্ষণের সম্ভাব্য ফলাফল হলো 'মুদ্রার মাথা' (H) বা 'মুদ্রার উল্টা দিক' (T)। একটি নিটাল মুদ্রা দ্বারা পরীক্ষা সম্পাদনের আগে নিশ্চিতভাবে বলা সম্ভব না 'মুদ্রার মাথা' আসবে না 'মুদ্রার উল্টা দিক' আসবে। সেক্ষেত্রে এই পরীক্ষাকে একটি দৈব পরীক্ষা বলা যাবে।

দৈব পরীক্ষার তিনটি শর্ত হলো:

  • দৈব পরীক্ষা যে কোনো সংখ্যক বার পুনরাবৃত্ত করা যাবে।
  • কমপক্ষে দুটি সম্ভাব্য ফলাফল থাকতে হবে।
  • পরীক্ষা সম্পাদনের হবার আগে ফলাফল সন্মন্ধে নিশ্চিতভাবে ভবিষ্যদ্বাণী করা যাবে না।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]