খুমুস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

খুমুস একটি আরবি শব্দ যার অর্থ কোন বস্তুর ১/৫ ভাগ বা এক-পঞ্চমাংশ। খারাজের মত এটাও ইসলামী রাষ্ট্রের আয়ের উৎস। ইসলামী অর্থনীতির পরিভাষায় খুমুস অর্থ ঐ সকল সম্পদের মধ্যে এক পঞ্চমাংশ যা ইসলাম বাইতুলমালে জমা দিতে নির্দেশ জারী করেছে। আর এসব সম্পদের মধ্যে যুদ্ধলব্ধ গণিমতের সম্পদ, খনিজ সম্পদ, সামুদ্রিক সম্পদ সবিশেষ উল্লেখ যোগ্য।

১. গনিমতের সম্পদ: অমুসলিম সম্প্রদায়ের সাথে রণক্ষেত্রে বিজয়ী হবার পর যুদ্ধের ময়দানে পরিত্যক্ত সম্পদ মুসলিম সম্প্রদায়ের হস্তগত হলে তাকে গনিমত বলে । যুদ্ধাস্ত্র, খাদ্যসামগ্রী, যানবাহন, পোশাক-পরিচ্ছদ ইত্যাদী গনিমতের সম্পদের অন্তর্ভুক্ত। গনিমতের মালের ক্ষেত্রে খুমুসের বিধান হচ্ছে প্রাপ্ত সম্পদের ১/৫ ভাগ ইসলামী রাষ্ট্রের বাইতুল মালে জমা হবে।

২. খনিজ সম্পদ: খনিজ সম্পদকে আরবিতে রিকায বলে। ইসলামী অর্থনীতির বিধানুসারে খনিজ সম্পদের এক-পঞ্চমাংশ বাইতুলমাল জমা হবে।যেন প্রাকৃতিক সম্পদের উপর দেশের সর্বসাধারণের অধিকার স্বীকৃত হয। এখাতের আয় থেকে জনকল্যাণে ব্যয় করা হয়।

৩. সামুদ্রিক সম্পদ: খনিজ সম্পদের ন্যায় সামুদ্রিক সম্পদের এক পঞ্চমাংশ রাষ্ট্রীয় কোষাগার বাইতুলমালের জন্য নির্দিষ্ট। সামুদ্রিক মৎস্য, মণিমুক্তা, প্রবাল, মূল্যবান পাথর ও অন্যান্র সামগ্রীর উপরও এক পঞ্চমাংশের বিধান কার্যকরী হবে। এছাড়া বড় বড় নদী, হ্রদ, হাওড় ইত্যাদীতে মৎস্য চাষ হলে কিংবা প্রাকৃতিক মৎস্য ধৃত হলে খুমুস বা এক পঞ্চমাংশের বিধান কার্যকর হবে।