আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেস
প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা
মহাসচিব গোদে ম্যান্তাসি
প্রতিষ্ঠাতা জন দুবে, পিক্সলে কা ইস্কা সেমে, সোল প্লাতজে
ন্যাশনাল চেয়ারপার্সন বেলেকা এমবেতে
কোষাধ্যক্ষ-সাধারণ ম্যাথিউজ ফোসা
সংস্থাপিত জানুয়ারি ৮, ১৯১২ (1912-01-08)
সদর দপ্তর লুথুলী হাউজ, ৫৪ সয়ের স্ট্রীট, জোহানেসবার্গ, গাওতেং
যুব শাখা এএনসি ইয়ুথ লীগ
উইমেন'স উইং এএনসি উইমেন'স লীগ
আধা-সামরিক শাখা উমখোন্তো উই সিজুই
(সাবেক)
মতাদর্শ গণতান্ত্রিক সমাজতন্ত্র
সামাজিক গণতন্ত্র
লেফট্‌-উইং পপুলিজম
রাজনৈতিক অবস্থান সেন্টার-লেফট্‌ থেকে লেফট্‌-উইং
আন্তর্জাতিক অধিভুক্তি সোশিয়্যালিস্ট ইন্টারন্যাশনাল[১]
ন্যাশনাল এসেম্বলী'র আসন
২৬৪ / ৪০০
ন্যাশনাল কাউন্সিল অব প্রভিন্সেস (এনসিওপি) আসন
৬২ / ৯০
ন্যাশনাল কাউন্সিল অব প্রভিন্সেস (এনসিওপি) প্রতিনিধিত্ব
৮ / ৯
ওয়েবসাইট
www.anc.org.za

আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেস (ইংরেজি: African National Congress বা ANC) দক্ষিণ আফ্রিকার একটি বামপন্থী রাজনৈতিক দল। ১৯১২ সালে South African Native National Congress নামে ব্লুমফন্টেইন শহরে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯২৩ সালে এটি ANC-তে পরিণত হয়। ১৯৯৪ সাল থেকে এটি দক্ষিণ আফ্রিকার শাসক দল। ১৯৯৯ ও ২০০৪ সালের সাধারণ নির্বাচনে দলটি সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯১২ সালের ৮ই জানুয়ারি দক্ষিণ আফ্রিকার কৃষ্ণাঙ্গদের প্রথম জাতীয় পর্যায়ের রাজনৈতিক সংগঠন আফ্রিকান জাতীয় কংগ্রেস প্রতিষ্ঠিত হয়। এই সংগঠন আফ্রিকানদের সংহতি, যাবতীয় ধরনের বর্ণবৈষম্যবাদের বিরোধিতা করে এবং "বর্ণবৈষম্যমুক্ত, একীভূত ও গণতান্ত্রিক দক্ষিণ আফ্রিকা" প্রতিষ্ঠার পক্ষে ঘোষণা দেয়। ১৯২৯ সালে এই সংগঠন আফ্রিকান ট্রেড ইউনিয়ন এবং দক্ষিণ আফ্রিকার কমিউনিস্ট পার্টির সঙ্গে মিলে "আফ্রিকান জনগণের অধিকার" নামে একটি সংগঠন গঠিত হয় এবং "পাসপত্র আইন " আর "পার্মিশন" ব্যবস্থা বাতিল করার দাবি জানায়। ১৯৫২ সালে এই সংগঠন দক্ষিণ আফ্রিকার ভারতীয় কংগ্রেসের সংগে যৌথভাবে "অন্যায্য আইন উপেক্ষা করার আন্দোলন" চালাতে শুরু করে। ১৯৫৫ সালের জুন মাসে এই সংগঠন "স্বাধীন সনদ প্রণয়নে অংশগ্রহণ করে এবং সকল আফ্রিকান জনগণের সমান নাগরিক অধিকার দেয়ার দাবি জানায়।

১৯৬০ সালে এই সংগঠন " পাসপত্র সংক্রান্ত আইন-বিরোধী আন্দোলন" শুরু করে। পরে সংগঠনটিকে অবৈধ সংগঠন বলে ঘোষণা করা হয়। ১৯৬১ সালে এই সংগঠন " জাতীয় বল্লম" নামক সশস্ত্র সংগঠন প্রতিষ্ঠা করে এবং এর সঙ্গে সঙ্গে বিপুল প্রয়াসে রাজনৈতিক ও পররাষ্ট্র বিষয়ক নানা রকম সংগ্রাম পরিচালনা করে। দেশের ভেতরে নিজের তার প্রভাব ক্রমেই সম্প্রসারিত হতে থাকে। সংগঠনটি আফ্রিকান ঐক্য সংস্থার স্বীকৃতি ও সমর্থন অর্জন করে।

আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেসের অন্যতম নেতা নেলসন ম্যান্ডেলা বর্ণবাদ বিরোধী আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশ নেন। ১৯৬২ সালে তাঁকে দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদী সরকার গ্রেপ্তার করে ও অন্তর্ঘাতসহ নানা অপরাধের দায়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়।

১৯৮৯ সালে সংগঠনটি আবার বৈধ সংগঠনের মর্যাদা অর্জন করে।[২]

এএনসি'র পতাকা[সম্পাদনা]

আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেসের পতাকা

এএনসি'র পতাকা তিনটি রঙের সংমিশ্রণে তৈরী করা হয়েছে। রংগুলো হলো - কালো, সবুজ এবং সোনালী।[৩] এখানে কালো রং - দক্ষিণ আফ্রিকার আদি জনগোষ্ঠীর প্রতিচ্ছবি, সবুজ - আফ্রিকার ভূমি এবং সোনালী - খনি এবং প্রাকৃতিক সম্পদের প্রতিচ্ছবি। এছাড়াও, দলীয় ওমখন্তো উই সিজুই যুদ্ধ শাখায় পতাকাটি ব্যবহার করা হতো।

নির্বাচনী ফলাফল[সম্পাদনা]

২০০৯ সালের নির্বাচনে ওয়ার্ডভিত্তিক ভোট চিত্র
  ০–২০%
  ২০–৪০%
  ৪০–৬০%
  ৬০–৮০%
  ৮০–১০০%
নির্বাচন প্রাপ্ত ভোট % প্রাপ্ত আসন
দক্ষিণ আফ্রিকার সাধারণ নির্বাচন, ২০০৯ ১১,৬৫০,৭৪৮ ৬৫.৯০ ২৬৪
দক্ষিণ আফ্রিকার সাধারণ নির্বাচন, ২০০৪ ১০,৮৮০,৯১৫ ৬৯.৬৯ ২৭৯
দক্ষিণ আফ্রিকার সাধারণ নির্বাচন, ১৯৯৯ ১০,৬০১,৩৩০ ৬৬.৩৫ ২৬৬
দক্ষিণ আফ্রিকার সাধারণ নির্বাচন, ১৯৯৪ ১২,২৩৭,৬৫৫ ৬২.৬৫ ২৫২

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Mapekuka, Vulindlela (November 2007)। "The ANC and the Socialist International"Umrabulo (African National Congress) 30 
  2. বর্ণবৈষম্যমুক্ত, একীভূত ও গণতান্ত্রিক দক্ষিণ আফ্রিকা
  3. "The Flag of the African National Congress"। African National Congress। সংগৃহীত 2011-08-20 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]