অ্যামেলি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অ্যামেলি
Amelie poster.jpg
ফরাসি পোস্টার
পরিচালক জাঁ-পিয়েরে জনেত
প্রযোজক জাঁ-মারক দেশাম্প
ক্লদিয়া ওসার্দ
রচয়িতা জাঁ-পিয়েরে জনেত (দৃশ্যপট)
গিইয়েরমো লরেঁত (সংলাপ)
বর্ণনাকারী অঁদ্রে দুসলিয়ে
অভিনেতা অঁদ্রে ততু
মাতিয়ো কাসোভিস
সুরকার Yann Tiersen
চিত্রগ্রাহক Bruno Delbonnel
সম্পাদক Hervé Schneid
স্টুডিও ফ্রান্স থ্রি সিনেমা
ক্যানাল+
বণ্টনকারী ইউজিসি (ফ্রান্স)
মিরাম্যাক্স ফিল্মস (ইউএস)[১]
মুক্তি
  • ২৫ এপ্রিল ২০০১ (২০০১-০৪-২৫) (ফ্রান্স)
  • ৫ অক্টোবর ২০০১ (২০০১-১০-০৫) (যুক্তরাজ্য)
  • ১৬ নভেম্বর ২০০১ (২০০১-১১-১৬) (United States)
  • ২১ ডিসেম্বর ২০০১ (২০০১-১২-২১) (অস্ট্রেলিয়া)
দৈর্ঘ্য ১২৩ মিনিট[২]
দেশ ফ্রান্স
জার্মানি
ভাষা ফ্রেঞ্চ
রাশিয়ান
নির্মাণব্যয় $১০ মিলিয়ন[৩]
আয় $১৭,৩৯,২১,৯৫৪[৩]

অ্যামেলি (প্রকৃত ফরাসি নাম: Le Fabuleux Destin d'Amélie Poulain (ফরাসি উচ্চরণ: ​[lə.fa.by.lø.dɛs.tɛ̃.da.me.li.pu'lɛ̃]); আমেলি পুল্যাঁর অবিস্মরণীয় যাত্রা) জাঁ-পিয়েরে জনেত কর্তৃক পরিচালিত ২০০১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত রোমান্টিক কমেডি চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রটি এর পরিচালক ও গিইয়েরমো লরেঁত, দু'জনের লিখিত। ছবিটির পটভূমি প্যারিসের সমসাময়িক জীবন চটুল ভঙ্গীমায় তুলে ধরা হয়েছে। ছবিটির কাহিনী আবর্তিত হয়েছে এক লাজুক স্বল্পভাষী ওয়েইট্রেস আমেলি পুল্যাঁকে (অঁদ্রে ততু) ঘিরে, যে সিদ্ধান্ত নেয় তার আশেপাশের সবার জীবন সে আনন্দে ভরিয়ে দেবে। এ কাজ করতে গিয়ে নাটকীয়ভাবে তার নিজের জীবনের মোড় একদম ঘুরে যায়। জার্মানি আর ফ্রান্সের যৌথ সহযোগিতায় চলচ্চিত্রটি নির্মিত হয়। শুরুর দিকে অল্প কয়েকটি হলে মুক্তি দেওয়া হলেও খুব কম সময়ে ছবিটি ৩৩ মিলিয়ন ডলারের বেশি আয় করে। ছবিটি এখনও যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তিপ্রাপ্ত ফরাসি সিনেমাগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ আয়কারী।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]