একচুয়ারিয়াল সাইন্স

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
২০০৩ সালে জীবন বীমা কোম্পানির ঝুঁকি ব্যবস্থাপনায় ব্যবহৃত একটি মৃত্যহারের টেবিল।

একচুয়ারিয়াল সাইন্স হল বিজ্ঞানের একটি শাখা যেখানে গণিতপরিসংখ্যানের পদ্ধতিসমূহ ব্যবহার করে বীমা, অর্থায়ন ও এ সংক্রান্ত শিল্পের ঝুঁকি নির্নয় করা হয়ে থাকে। একচুয়ারিগন হলেন এই ঝুঁকি নির্নয় সংক্রান্ত পেশাজীবী যারা একচুয়ারিয়াল সাইন্সের উপর দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা অর্জন করে বিভিন্ন শিল্পে ঝুঁকি নির্নয় ও ঝুঁকি ব্যবস্থাপনার কাজ করে থাকেন। পৃথিবীর অধিকাংশ দেশে একচুয়ারিদের দক্ষ করে তোলার জন্য তাদের কঠোর প্রশিক্ষণ ও পেশাগত পরীক্ষা পদ্ধতির মধ্য দিয়ে যেতে হয়।

একচুয়ারিয়াল সাইন্স বিজ্ঞানের বেশ কয়েকটি শাখার বিষয়বস্তু যেমন সম্ভাব্যতা, গণিত, পরিসংখ্যান, ফাইন্যান্স, অর্থনীতিকম্পিউটার বিজ্ঞানের সমন্বয়ে সাজানো হয়। এই শাখার শুরু থেকেই ঝুঁকি নির্নয়ের জন্য নিয়ন্ত্রণকারী মডেল, টেবিল, চার্ট এবং প্রিমিয়াম মডেলের ব্যবহার হয়ে আসছে। গত ৩০ বছরে শক্তিশালী কম্পিউটিং এবং গণনাকারী সফটওয়্যারের আবির্ভাবের ফলে বিজ্ঞানের এই শাখায় অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। অতীতে শুধুমাত্র রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ন ও সংবেদনশীল প্রকল্পের ঝুঁকি নির্নয়ে এই বিজ্ঞান ব্যবহৃ হলেও বর্তমানে প্রতিযোগীতাপূর্ন বাজারে সকল আর্থিক প্রতিষ্ঠানই আর্থিক ঝুঁকি নির্নয় ও ঝুঁকি ব্যবস্থাপনার কাজে এই বিজ্ঞানকে ব্যবহার করছে।

পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অনেক বিশ্ববিদ্যালয়েই একচুয়ারিয়াল সাইন্সে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি প্রদান করা হয়। ক্যারিয়ার কাস্ট নামক যুক্তরাষ্ট্রের একটি জব সার্চ ওয়েবসাইট অনুযায়ী ২০১০ সালে একচুয়ারি পেশাটি এক নম্বর স্থানে, ২০১২ সালে দুই নম্বর এবং ২০১৩ সালে আবারো এক নম্বর স্থানে ছিল। কর্মক্ষেত্রের পরিবেশ, আয়, চাকরির সুযোগ, চাহিদা এবং কাজের চাপ এই পাঁচটি বিষয়ের উপর ভিত্তি করে এই র‍্যাংকিং করা হয়েছিল।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]