জিল্যান্ডিয়া (মহাদেশ)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Zealandia (continent) থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

স্থানাঙ্ক: ৪০° দক্ষিণ ১৭০° পূর্ব / ৪০° দক্ষিণ ১৭০° পূর্ব / -40; 170

জিল্যান্ডিয়ার ভৌগোলিক বিবরণ। অস্ট্রেলিয়া (উপরে বামে), ফিজি বা ভানুয়াতুর (উপরে মাঝে) মত নিউজিল্যান্ডের উত্তর-উত্তরপূর্ব ও দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে বর্ধিত রৈখিক ঢালগুলোকে জিল্যান্ডিয়া মহাদেশীয় ভূখন্ডের অংশ বলে বিবেচনা করা হয় না। [১]

জিল্যান্ডিয়া (ইংরেজি: Zealandia, জ়ীল্যান্ডিয়া) একটি প্রায় নিমজ্জিত মহাদেশীয় ভূখন্ডাংশ (ইংরেজি: continental fragment) যা নিউজিল্যান্ড মহাদেশ বা তাসমান্টিস[২] (ইংরেজি: Tasmantis) নামেও পরিচিত। ৬-৮.৫ কোটি বছর আগে এটি অস্ট্রেলিয়া মহাদেশ থেকে বিচ্ছিন্ন হবার পর ক্রমশ নিমজ্জিত হয়, ইতোপূর্বে ৮.৫-১৩ কোটি বছর আগে জিল্যান্ডিয়া ও অস্ট্রেলিয়া মহাদেশ অ্যান্টার্কটিকা থেকে বিচ্ছিন্ন হয়।[৩] ২.৩ কোটি বছর আগে সম্ভবত মহাদেশটি সম্পূর্ণ নিমজ্জিত ছিল,[৪][৫] এবং বর্তমানে মহাদেশটির সিংহভাগই (৯৩%) প্রশান্ত মহাসাগরের মাঝে নিমজ্জিত।[৬] জিল্যান্ডিয়ার সাথে বোলোন্‌স্ ডুবো আগ্নেয়গিরি (চ্যাথাম দ্বীপপুঞ্জের দক্ষিণে) কতটা ভালভাবে সংযুক্ত তা এখনও অজ্ঞাত। বর্তমান সংজ্ঞানুযায়ী এটি পৃথিবীর বৃহত্তম মহাদেশীয় ভূখন্ডাংশ বা অণুমহাদেশ (ইংরেজি: microcontinent), যার আয়তন প্রায় ৪৯,২০,০০০ কি.মি.। যা দ্বিতীয় বৃহত্তম অণুমহাদেশের আয়তনের তুলনায় দ্বিগুণের বেশী এবং যা অস্ট্রেলিয়া মহাদেশের অর্ধেকের বেশী। এই সব কারণ ছাড়াও অন্যান্য ভূতাত্ত্বিক কারণে, যেমন: ভূপৃষ্ঠের পুরুত্ব ও ঘনত্ব বিচার করে, জিল্যান্ডিয়াকে অনেক সময় একটি পূর্ণ মহাদেশ হিসেবেও গণ্য করা হয়।[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Figure 8.1: New Zealand in relation to the Indo-Australian and Pacific Plates"The State of New Zealand’s Environment 1997। ১৯৯৭। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৪-২০ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. Danver, Steven L. (২০১০-১২-২২)। Popular Controversies in World History: Investigating History's Intriguing Questions। ABC-CLIO। পৃষ্ঠা 187। আইএসবিএন 978-1-598-84078-0Zealandia or Tasmantis, with its 3.5 million square km territory being larger than Greenland,... 
  3. Keith Lewis; Scott D. Nodder; Lionel Carter (২০০৭-০১-১১)। "Zealandia: the New Zealand continent"Te Ara: The Encyclopedia of New Zealand। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০২-২২ 
  4. "Searching for the lost continent of Zealandia"The Dominion Post। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১০-০৯We cannot categorically say that there has always been land here. The geological evidence at present is too weak, so we are logically forced to consider the possibility that the whole of Zealandia may have sunk. 
  5. Campbell, Hamish; Gerard Hutching (২০০৭)। In Search of Ancient New Zealand। North Shore, New Zealand: Penguin Books। পৃষ্ঠা 166–167। আইএসবিএন 978-0-14-302088-2 
  6. Wood, Ray; Stagpoole, Vaughan; Wright, Ian; Davy, Bryan; Barnes, Phil (২০০৩)। New Zealand's Continental Shelf and UNCLOS Article 76 (PDF)। Institute of Geological and Nuclear Sciences series 56; NIWA technical report 123। Wellington, New Zealand: Institute of Geological and Nuclear Sciences Limited; National Institute of Water and Atmospheric Research। পৃষ্ঠা 16। ২০০৭-০২-২১ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০২-২২The continuous rifted basement structure, thickness of the crust, and lack of seafloor spreading anomalies are evidence of prolongation of the New Zealand land mass to Gilbert Seamount. 
  7. Mortimer, Nick; Hamish Campbell (2014). Zealandia: Our continent revealed. North Shore, New Zealand: Penguin Books. pp. 72ff. আইএসবিএন ৯৭৮-০-১৪-৩৫৭১৫৬-৮