সুশীল ফার্নান্দো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Susil Fernando থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সুশীল ফার্নান্দো
සුසිල් ප්‍රනාන්දු
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামএলেকুতিগে রাফাস নেমেসিওন সুশীল ফার্নান্দো
জন্ম (1955-12-19) ১৯ ডিসেম্বর ১৯৫৫ (বয়স ৬৩)
কলম্বো, শ্রীলঙ্কা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৭)
৪ মার্চ ১৯৮৩ বনাম নিউজিল্যান্ড
শেষ টেস্ট১৬ মার্চ ১৯৮৪ বনাম নিউজিল্যান্ড
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৩০)
২ মার্চ ১৯৮৩ বনাম নিউজিল্যান্ড
শেষ ওডিআই৩০ এপ্রিল ১৯৮৩ বনাম অস্ট্রেলিয়া
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ২১
রানের সংখ্যা ১১২ ১০১ ৯৬৩ ১১১
ব্যাটিং গড় ১১.১৯ ২০.১৯ ৩০.০৯ ১৫.৮৫
১০০/৫০ -/- -/- ২/৫ -/-
সর্বোচ্চ রান ৪৬ ৩৬ ১১০ ৩৬
বল করেছে - - - -
উইকেট - - - -
বোলিং গড় - - - -
ইনিংসে ৫ উইকেট - - - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - - - -
সেরা বোলিং - - - -
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং -/- -/- ৮/- ১/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১৬ অক্টোবর ২০১৯

এলেকুতিগে রাফাস নেমেসিওন সুশীল ফার্নান্দো (তামিল: சுசில் பெர்னான்டோ; জন্ম: ১৯ ডিসেম্বর, ১৯৫৫) কলম্বোয় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ও সাবেক শ্রীলঙ্কান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার।[১] শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৮৩ থেকে ১৯৮৪ সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে শ্রীলঙ্কার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটে শ্রীলঙ্কান এয়ার ফোর্স স্পোর্টস ক্লাব দলের প্রতিনিধিত্ব করেন সুশীল ফার্নান্দো। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৮২-৮৩ মৌসুম থেকে ১৯৮৯-৯০ মৌসুম পর্যন্ত সুশীল ফার্নান্দো’র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে পাঁচটিমাত্র টেস্ট ও সাতটি ওডিআইয়ে অংশগ্রহণ করেছেন সুশীল ফার্নান্দো। ৪ মার্চ, ১৯৮৩ তারিখে ক্রাইস্টচার্চে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ১৬ মার্চ, ১৯৮৪ তারিখে কলম্বোয় একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ১৯৮৩ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপের তৃতীয় আসরে শ্রীলঙ্কার পক্ষে অংশ নেন। ঐ প্রতিযোগিতায় তার দল গ্রুপ পর্ব থেকে বিদেয় নেয়। তবে, ঐ প্রতিযোগিতায় কোন খেলায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাননি।

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর গ্রহণের পর অস্ট্রেলিয়ায় অভিবাসিত হন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]