ক্লেইন যৌন অভিমুখীতা ছক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Klein Sexual Orientation Grid থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

ক্লেইন যৌন অভিমুখীতা ছক (ইংরেজি: Klein Sexual Orientation Grid; সংক্ষেপে: KSOG) একটি পদ্ধতি যার মধ্য দিয়ে মানুষের যৌন অভিমুখীতার বিশদ চারিত্র্য নিরূপণ করা যায়। ফ্রিৎজ ক্লেইন কর্তৃক উদ্ভাবিত এই পদ্ধতি অন্যান্য প্রচলিত পদ্ধতির তুলনায় ব্যাপকতর ভাবে মানুষের যৌন সত্তার অন্ধি-সন্ধি সম্পর্কে ধারণা দিতে সক্ষম।[১] ক্লেইন প্রথম তাঁর ১৯৭৮ সালের বই দ্য বাইসেক্সুয়াল অপশন-এ KSOG বর্ণনা করেন।[২][৩][৪][৫]

মানুষের যৌন অভিমুখীতা নিরূপণে বহুল প্রচলিত কিন্সে স্কেল কেবল দুটি মাত্রা ব্যবহার করে। সে তুলনায় ক্লেইন যৌন অভিমুখীতা ছক বহুমাত্রিক। এই ছকে প্রতিটি মানুষের যৌন অভিমুখিতার নিয়ামক হিসেবে সাতটি উপাদান চিহ্নিত করা হয়েছে যথা
(ক) যৌন আকর্ষণ
(খ) যৌন আচরণ
(গ) যৌন কল্পনা
(ঘ)আবেগের প্রাধান্য
(ঙ)সামাজিক প্রাধান্য,
(চ)জীবনশৈলী প্রাধান্য এবং
(ছ)আত্ম পরিচিতি।

উক্ত (ক) থেকে (ঙ) পর্যন্ত পাঁচটি উপাদানের জন্য সাত প্রকার চারিত্র্য চিহ্নিত করা হয়েছে। যথা
(১) কেবল বিপরীত লিঙ্গের মানুষ
(২) অধিকাংশ ক্ষেত্রে বিপরীত লিঙ্গের মানুষ
(৩) তুলনামূলকভাবে বেশী বিপরীত লিঙ্গের মানুষ
(৪) সমলিঙ্গ ও বিপরীত লিঙ্গ উভয় শ্রেণীর মানুষ
(৫)তুলনামূলকভাবে বেশী সমলিঙ্গের মানুষ
(৬) অধিকাংশ ক্ষেত্রে সমলিঙ্গের মানুষ এবং
(৭)কেবল সমলিঙ্গের মানুষ। (চ) এবং (ছ) এই দুটি নিয়ামকের ক্ষেত্রে অন্য সাতটি চারিত্র্য ব্যবহার করা হয়েছে। যথা
(১) কেবল বিষমকামী মানুষ
(২) অধিকাংশ ক্ষেত্রে বিষমকামী মানুষ
(৩) তুলনামূলকভাবে বেশী বিষমকামী মানুষ
(৪) বিষমকামী ও সমকামী উভয় রূপ মানুষ
(৫) তুলনামূলকভাবে বেশী সমকামী মানুষ
(৬) অধিকাংশ ক্ষেত্রে সমকামী মানুষ এবং
(৭) কেবল সমকামী মানুষ।
ক্লেইন যৌন অভিমুখীতা ছকের আরেকটি বৈশিষ্ট্য হলো এতে সময়ের সাথে মানুষের যৌন অভিমুখিতা পরিবর্তনের সম্ভাব্যতা বিবেচনা করা হয়েছে। এতে সাতটি উপাদানের প্রতিটির জন্য অতীত ও বর্তমান প্রবণতা চিহ্নিত করার সুযোগ রয়েছে। অধিকন্তু যৌনসঙ্গী নির্বাচনের ব্যাপারে ব্যক্তির অভীষ্ট ব্যক্তির বিষয়ও নিয়ামক হিসেবে বিবেচনায় গ্রহণ করা হয়েছে। ‘ক্লেইন যৌন অভিমুখীতা ছক’ ব্যবহার করে একজন মানুষ স্বীয় যৌন অভিমুখ সম্পর্কে সম্যক ধারণা লাভে সমর্থ হবে।[৬]

যৌন অভিমুখিতা নির্ণয়ের ছক[সম্পাদনা]

ক্লেইনের বই দ্য বাইসেক্সুয়াল অপশন-এ সূচিত হওয়া KSOG একজন ব্যক্তির জীবনের তিনটি ভিন্ন পয়েন্টে যৌনতার সাতটি ভিন্ন মাত্রার মূল্যায়ন করতে পারে: অতীত (প্রারম্ভিক বয়ঃসন্ধির থেকে এক বছর আগে), বর্তমান (গত ১২ মাসের মধ্যে), এবং আদর্শ (যদি এটি স্বেচ্ছাসেবী হয় তবে নির্বাচিত করা হবে)। [৭]

ক্লেইন যৌন অভিমুখীতা ছক
নিয়ামক মূলকপ্রশ্ন ব্যাখ্যা অতীত অবস্থা বর্তমান অবস্থা অভীষ্ট সঙ্গী/সঙ্গিনী
A যৌন আকর্ষণ আপনি কাদের প্রতি যৌনভাবে আকৃষ্ট হন? 1–7 1–7 1–7
B যৌন আচরণ আপনি কাদের সঙ্গে যৌনকর্মে লিপ্ত হয়েছেন? 1–7 1–7 1–7
C যৌন কল্পনা আপনার কাদের প্রতি যৌন কল্পনা রয়েছে? 1–7 1–7 1–7
D আবেগের প্রাধান্য আপনি আবেগগতভাবে কাদের নিকটস্থ হতে অনুভব করেন? 1–7 1–7 1–7
E সামাজিক প্রাধান্য আপনি কোন্ লিঙ্গের সঙ্গে সামাজিকীকৃত? 1–7 1–7 1–7
F জীবনশৈলী প্রাধান্য আপনি কোন্ সম্প্রদায়ের সঙ্গে আপনার সময় কাটাতে চান? কাদের মধ্যে আপনি সর্বাধিক স্বাচ্ছন্দ্য অনুভব করেন? 1–7 1–7 1–7
G আত্ম পরিচিতি আপনি কিভাবে নিজেকে চিহ্নিত করেন? 1–7 1–7 1–7
KSOG-এর ধ্রুবকসমূহ পরিমাপের স্কেল  A ,  B ,  C ,  D , এবং  E 
1 2 3 4 5 6 7
শুধুমাত্র অপর লিঙ্গ বেশিরভাগ ক্ষেত্রে অপর লিঙ্গ অপর লিঙ্গ
ছাড়াও আরোকিছু
উভয় লিঙ্গ সমানভাবে উভয় লিঙ্গ
ছাড়াও আরোকিছু
বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সম লিঙ্গ শুধুমাত্র সম লিঙ্গ
KSOG-এর ধ্রুবকসমূহ পরিমাপের স্কেল  F  G 
1 2 3 4 5 6 7
শুধুমাত্র বিষমকামী বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বিষমকামী বিষমকামী
ছাড়াও আরোকিছু
সমানভাবে সমকামী ও বিষমকামী সমকামী
ছাড়াও আরোকিছু
বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সমকামী শুধুমাত্র সমকামী

তুলনা[সম্পাদনা]

কিন্সে স্কেল শুধুমাত্র যৌন অভিমুখিতার দুটি মাত্রা পরিমাপ করার সমালোচনার জবাবে, ক্লেইন যৌন অভিমুখিতা বর্ণনা করার জন্য একটি বহুমাত্রিক গ্রিড তৈরি করেছিলেন। কিন্সে স্কেলের মতন, ক্লেইন গ্রিডটি যৌন অভিমুখিতার তদন্ত করে অতীতে, বর্তমানে এবং আদর্শগত ভবিষ্যতে সাতটি বিষয়ের প্রতিটির সাথে, মোট একুশটি ফলাফলের জন্য। KSOG কিন্সে মাপকাঠির ০–৬ স্কেলের পরিবর্তে ১–৭ এর মান ব্যবহার করে, শুধুমাত্র বিপরীত লিঙ্গের থেকে শুধুমাত্র সম-লিঙ্গের আকর্ষণকে বর্ণনা করার জন্য।[৮]

KSOG প্রায়ই গবেষণার একটি সরঞ্জাম হিসাবে ব্যবহৃত হয়।[৯][১০] KSOG ব্যবহারমূলক গবেষণা KSOG-এর একুশটি প্যারামিটারের মধ্যে নক্সাসমূহ সন্ধান করতে ক্লাস্টার বিশ্লেষণ ব্যবহার করেছে, একটি ক্ষেত্রে পাঁচটি লেবেলের (বিষমকামিতা, উভ-বিষমকামিতা, উভ-উভকামিতা, উভ-সমকামিতা, সমকামিতা) অভিমুখিতার মডেলের পরামর্শ দিয়ে।[১১][১২] KSOG কে রূপান্তর থেরাপির গবেষণায়ও ব্যবহার করা হয়েছে।[১৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. The Klein Sexual Orientation Grid
  2. Coleman, Edmond J (১৯৮৭-০৯-১০)। Integrated Identity for Gay Men and Lesbians: Psychotherapeutic Approaches for Emotional Well-Being। Psychology Press। পৃষ্ঠা 13–। আইএসবিএন 9780866566384। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০১২ 
  3. The Bad Subjects Production Team (১৯৯৭-১১-০১)। Bad Subjects: Political Education for Everyday Life। NYU Press। পৃষ্ঠা 108–। আইএসবিএন 9780814757932। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০১২ 
  4. Bancroft, John (২০০৯)। Human Sexuality And It Problems। Elsevier Health Sciences। পৃষ্ঠা 262–। আইএসবিএন 9780443051616। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০১২ 
  5. Klein, Fritz; Barry Sepekoff; Timothy J. Wolf (১৯৮৫)। "Sexual Orientation:"। Journal of Homosexuality11 (1–2): 35–49। doi:10.1300/J082v11n01_04আইএসএসএন 0091-8369 
  6. American Institute of Bisexuality
  7. Klein, Fritz (১৯৯৩)। The Bisexual Option। The Haworth Press। পৃষ্ঠা 19। আইএসবিএন 1-56024-380-5 
  8. Coleman, Eli (১৯৮৭)। "Assessment of Sexual Orientation"। Journal of Homosexuality14 (1–2): 9–24। doi:10.1300/J082v14n01_02আইএসএসএন 0091-8369 
  9. Hammack, Phillip L.; Cohler, Bertram J. (২০০৯-০৩-০৬)। The Story of Sexual Identity: Narrative Perspectives on the Gay and Lesbian Life Course। Oxford University Press। পৃষ্ঠা 114–। আইএসবিএন 9780195326789। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০১২ 
  10. Bohan, Janis; Russell, Glenda (১৯৯৯-০৮-০১)। Conversations about Psychology and Sexual Orientation। NYU Press। পৃষ্ঠা 197–। আইএসবিএন 9780814709139। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০১২ 
  11. Roberts, B. C. (১৯৯৭)। "The Many Faces of Bisexuality"। International Journal of Sexuality and Gender Studies2 (1): 65–76। doi:10.1023/A:1026341216421আইএসএসএন 1566-1768 
  12. Weinrich, James D.; Fritz Klein (২০০২)। "Bi-Gay, Bi-Straight, and Bi-Bi"। Journal of Bisexuality2 (4): 109–139। doi:10.1300/J159v02n04_07আইএসএসএন 1529-9716 
  13. Jones, Stanton L.; Yarhouse, Mark A. (২০০৭-০৮-২৪)। Ex-Gays?: A Longitudinal Study of Religiously Mediated Change in Sexual Orientation। InterVarsity Press। পৃষ্ঠা 8–। আইএসবিএন 9780830828463। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০১২ 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]