আজাদ হিন্দ ফৌজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Indian National Army থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আজাদ হিন্দ ফৌজ
Flag of the Indian Legion.svg
আজাদ হিন্দ ফৌজের পতাকা
সক্রিয়অগস্ট ১৯৪২ - সেপ্টেম্বর ১৯৪৫
দেশব্রিটিশ ভারত
আনুগত্যআজাদ হিন্দ
শাখাপদাতিক
ভূমিকাগেরিলা পদাতিক, বিশেষ বাহিনী
আকার৪৩,০০০ (আনুমানিক)
নীতিবাক্যইত্তেফাক, ইতমাদ আউর কুরবানি
(একতা, বিশ্বাস এবং আত্মত্যাগ) (হিন্দুস্তানি)
মার্চদ্রুত - কদম কদম বড়ায়ে জা
যুদ্ধসমূহপ্রথম আরাকান অভিযান সিনজেওয়ার যুদ্ধ , ইমফালের যুদ্ধ, কোহিমার যুদ্ধ, বার্মা অভিযান, পোকোকুর যুদ্ধ, মেইক্তিলা ও ম্যানডালের যুদ্ধ
কমান্ডার
আনুষ্ঠানিক প্রধানসুভাষচন্দ্র বসু
উল্লেখযোগ্য
কমান্ডার
মেজর জেনারেল মুহাম্মদ জামান কিয়ানি
মেজর জেনারেল শাহ নওয়াজ খান
কর্নেল প্রেম সেহ্‌‌গাল
কর্নেল শওকত মালিক
The radio transmitting set with all accessories that sent by Subhas Chandra Bose to India in a submarine, four members of INA were the carriers. The wireless post was set up in Calcutta with a view to establish radio communication network with Bose. The transmitter was seized from their possession in 1944.

আজাদ হিন্দ ফৌজ বা ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল আর্মি (আইএনএ) (হিন্দি: आज़ाद हिन्द फ़ौज, ইংরেজি:Indian National Army বা INA) ভারতীয় জাতীয়তাবাদীদের দ্বারা গঠিত একটি সশস্ত্র সেনাবাহিনী। ১৯৪২ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় এই বাহিনী গঠিত হয়। রাসবিহারী বসুর তৎপরতায় জাপানি কর্তৃপক্ষ ভারতের জাতীয়তাবাদীদের পাশে দাঁড়ায় এবং শেষ পর্যন্ত ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে সক্রিয় সমর্থন যোগায়। ১৯৪২ সালের ২৮-২৯ মার্চ টোকিওতে তাঁর ডাকে অনুষ্ঠিত একটি সম্মেলনে ইন্ডিয়ান ইন্ডিপেন্ডেন্স লিগ গঠনের সিদ্ধান্ত হয়। তখন ভারতের স্বাধীনতা অর্জনের লক্ষ্যে রাসবিহারী সেই সম্মেলনে একটি সেনাবাহিনী গঠনের প্রস্তাব দেন। ১৯৪২ সালের ২২ জুন ব্যাংককে তিনি লিগের দ্বিতীয় সম্মেলন আহ্বান করেন। সেই সম্মেলনে লিগে যোগদান ও রাসবিহারীর সভাপতিত্বে দায়িত্ব গ্রহণের আমন্ত্রণ জানানোর প্রস্তাব গৃহীত হয়। যেসব ভারতীয় সেনা মালয় ও বার্মা ফ্রন্টে জাপানিদের হাতে আটক হয়েছিল তাঁদের ইন্ডিয়ান ইন্ডিপেন্ডেন্স লিগ ও লিগের সশস্ত্র শাখা ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল আর্মিতে যোগদানে উৎসাহিত করা হয়।

এই সেনাবাহিনীর লক্ষ্য ছিল জাপানের সহায়তায় ভারত থেকে ব্রিটিশ রাজের উচ্ছেদ সাধন করে দেশকে ঔপনিবেশিক শাসনজাল থেকে মুক্ত করা। এই বাহিনী মূলত গঠিত হয় জাপানের হাতে ধরা পড়া ভারতীয় যুদ্ধবন্দীদের নিয়ে। এঁরা মালয় অভিযানসিঙ্গাপুরের যুদ্ধের সময় জাপানের হাতে ধরা পড়েছিলেন। এছাড়াও মালয়ব্রহ্মদেশের ভারতীয় প্রবাসীদের একটি বিরাট অংশ এই বাহিনীতে স্বেচ্ছাসেবকরূপে যোগ দেন।

১৯৪২ সালে মোহন সিংহের নেতৃত্বে সিঙ্গাপুরের পতনের অব্যবহিত পরেই প্রথম আইএনএ গঠিত হয়। প্রথম আইএনএ-র পতন হয় সেই বছর ডিসেম্বরেই। এরপর ১৯৪৩ সালে সুভাষচন্দ্র বসুর নেতৃত্বে পুনর্গঠিত হয়ে এই বাহিনী সুভাষচন্দ্রের আর্জি হুকুমত-এ-আজাদ হিন্দ (স্বাধীন ভারতের অস্থায়ী সরকার)-এর সেনাবাহিনী ঘোষিত হয়। ব্রহ্মদেশ, ইম্ফলকোহিমায় সাম্রাজ্যবাদী জাপানি সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় এই দ্বিতীয় আইএনএ ব্রিটিশ ও কমনওয়েলথ বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধাভিযান চালায়। পরে ব্রিটিশ মিত্রবাহিনীর বিরুদ্ধে ব্রহ্মদেশ অভিযান চালিয়ে তাঁরা ব্যর্থ হন। যুদ্ধের শেষে বাহিনীর একটি বৃহত্তর অংশকে ভারতে ফিরিয়ে আনা হয়। রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে তাঁদের কারোর কারোর বিচারও হয়। এই ঘটনা ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের ইতিহাসে এক চাঞ্চল্যকর ঘটনা।

স্বাধীনতা লাভের পর কয়েকটি ব্যতিক্রম বাদে আইএনএ-র প্রাক্তন সদস্যরা ভারতীয় সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে অস্বীকার করেন। যদিও বিশিষ্ট সদস্যদের একটি বিরাট অংশ ভারত ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় সাধারণ জীবনই অতিবাহিত করেন।

ব্রহ্মদেশ, ইন্দোনেশিয়া এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অন্যান্য অংশে জাপানের দখলদারি, নাৎসি জার্মানিফ্যাসিবাদী ইতালির সঙ্গে জাপানের মিত্রতা এবং আইএনএ-র বিরুদ্ধে আনীত যুদ্ধাপরাধের অভিযোগের কারণে সাম্রাজ্যবাদী জাপানের সঙ্গে কারণে আজাদ হিন্দ ফৌজের সংযোগ একটি বিতর্কিত বিষয়। এছাড়াও সামরিক পরিভাষায় বাহিনীর আপেক্ষিক গুরুত্বহীনতা, জাপান কর্তৃক বাহিনীর অপব্যবহার, এবং তার সঙ্গে ব্রিটিশ গোয়েন্দাবাহিনীর ছড়ানো আজাদ হিন্দ ফৌজের কাপুরুষতা ও মিত্রপক্ষের যুদ্ধবন্দীদের প্রতি দুর্ব্যবহারের গল্পও এই বিতর্ককে অনেকটা উস্কে দেয়। যদিও যুদ্ধের পর বন্দী আইএনএ আধিকারিকদের বিচার ব্রিটিশ রাজের বিরুদ্ধে জনমত গঠনে সহায়ক হয়। এর ফলে ব্রিটিশ ভারতীয় বাহিনীতে সংগঠিত হয় বোম্বাই বিদ্রোহের মতো ঘটনা। ব্রিটিশ রাজের সায়াহ্নকালে এই সকল ঘটনা ভারতের ব্রিটিশ শাসনের দ্রুত অবসানের সহায়ক হয়।[১][২][৩][৪]

পটভূমি[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. Chaudhuri 1953, পৃ. 349
  2. Sarkar 1983, পৃ. 411
  3. Sarkar 1983, পৃ. 420
  4. Fay 1993, পৃ. 496,498,499

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • Lebra, Joyce C. (১৯৭৭), Japanese trained armies in South-East Asia, New York, Columbia University Press, আইএসবিএন 0231039956 .
  • Childs, David. (২০০০), Britain Since 1945: A Political History., Routledge., আইএসবিএন 0415248043 .
  • Friedman, Irving S. (১৯৪০), Pacific Affairs, Vol. 13, No. 1., Pacific Affairs, University of British Columbia., আইএসএসএন 0030-851X .
  • Bose, Sugata. (২০০৬), A Hundred Horizons: Indian Ocean in the age of Global Empire., Harvard University Press., আইএসবিএন 0674021576 .
  • Dignan, Don. (১৯৮৩), The Indian revolutionary problem in British Diplomacy,1914-1919., New Delhi, Allied Publishers. .
  • Kaushik, Karuna (১৯৮৪), Russian Revolution (1917) and Indian nationalism: Studies of Lajpat Rai, Subhash Chandra Bose and Ram Manohar Lohia, Delhi, Chanakya Publications. .
  • Brown, Emily (১৯৮৬), (in Book Reviews; South Asia). The Journal of Asian Studies, Vol. 45, No. 2., Pacific Affairs, University of British Columbia., আইএসএসএন 0030-851X .
  • Hauner, Milan (১৯৮১), India in Axis Strategy. Germany, Japan and Indian Nationalists in the Second World War, Stuttgart, Klett-Cotta., আইএসবিএন 3129153403 .
  • Lundari, Giuseppe (১৯৮৯), I paracadutisti italiani 1937/45, Milan, E.M.I. .
  • Cohen, Stephen C. (১৯৮৩), (in Book Reviews) Pacific Affairs, Vol. 56, No. 2. pp. 350-352, New York, Columbia University Press, আইএসবিএন 0231039956 .
  • Slim, W. (১৯৬১), Defeat Into Victory., New York, David McKay., আইএসবিএন 1568490771 .
  • Ghosh, K.K. (১৯৬৯), The Indian National Army: Second Front of the Indian Independence Movement., Meerut, Meenakshi Prakashan .
  • Chaudhuri, Niradh C. (১৯৫৩), Subhas Chandra Bose-His Legacy and Legend, Pacific Affairs, Vol. 26, No. 4. (Dec., 1953), pp. 349-357 .
  • Thompson, Peter (২০০৫), The Battle For Singapore - The True Story of the Greatest Catastrophe of World War II., Portraits Books., আইএসবিএন 0749950854. |আইএসবিএন= এর মান পরীক্ষা করুন: invalid character (সাহায্য) .
  • Chand, Hukam (২০০৫), History of modern India: (1885 A.D.-1947 A.D.), Anmol publications, New Delhi., আইএসবিএন 8126122838. |আইএসবিএন= এর মান পরীক্ষা করুন: invalid character (সাহায্য) .
  • Sarkar, Sumit (১৯৮৩), Modern India, 1885-1947, Delhi:Macmillan, আইএসবিএন 9780333904251 .
  • Lundari, Giuseppe (১৯৮৯), I paracadutisti italiani 1937/45, Milan, E.M.I. .
  • McMillan, R (২০০৬), The British Occupation of Indonesia: 1945-1946 Britain, The Netherlands and the Indonesian Revolution., Routledge., আইএসবিএন 0415355516 .
  • Tojo, Hideki (Premier) . (১৯৪৩), Axis War Makes Easier Task of Indians. Chandra Bose's Berlin Speech. Syonan Simbun, Domei .
  • Littlejohn, Davis (১৯৮৭), Foreign Legions of the Third Reich, Vol 4: Poland, the Ukraine, Bulgaria, Romania, Free India, Estonia, Latvia, Lithuania, Finland and Russia, San Jose, Bender Publishing., আইএসবিএন 091213836X .
  • Kurowski, Franz (১৯৯৭), The Brandenburgers Global Mission., Fedorowicz (J.J.),Canada., আইএসবিএন 092199138X .
  • Munoz, Antonio J. (২০০২), The East Came West: Muslim, Hindu & Buddhist Volunteers in the German Armed Forces, 1941-1945., Axis Europa Books., আইএসবিএন 1891227394 .
  • Fay, Peter W. (১৯৯৩), The Forgotten Army: India's Armed Struggle for Independence, 1942-1945., Ann Arbor, University of Michigan Press., আইএসবিএন 0472083422 .
  • Moreman, T.R. (২০০৫), The Jungle, the Japanese and the British Commonwealth Armies at War 1941–1945: Fighting Methods, Doctrine and Training for Jungle Warfare., London and New York: Frank Cass., আইএসবিএন 0714649708 .
  • Allen, L. (১৯৭১), (in Reviews) Modern Asian Studies, Vol. 5, No. 1. (1971)pp. 89-92., Cambridge University Press. .
  • Green, L.C. (১৯৪৮), The Indian National Army Trials. The Modern Law Review, Vol. 11, No. 1. (Jan., 1948), pp. 47-69., London, Blackwell. .
  • Hyam, Ronald (২০০৭), Britain's Declining Empire: The Road to Decolonisation 1918-1968., Cambridge University Press., আইএসবিএন 0521866499. |আইএসবিএন= এর মান পরীক্ষা করুন: invalid character (সাহায্য) .

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • The Springing Tiger:A study of a Revolutionary by Hugh Toye
  • Jungle alliance, Japan and the Indian National Army / Joyce C. Lebra, Singapore, Donald Moore for Asia Pacific Press,1971
  • Burma: The Forgotten War, Jon Latimer, London: John Murray, 2004. আইএসবিএন ৯৭৮-০-৭১৯৫-৬৫৭৬-২
  • Japan's Greater East Asia Co-prosperity Sphere in World War II: selected readings and documents / edited and introduced by Joyce C. Lebra, Kuala Lumpur; New York: Oxford University Press, 1975
  • Brothers Against the Raj --- A biography of Indian Nationalists Sarat and Subhas Chandra Bose / Leonard A. Gordon, Princeton University Press, 1990
  • A Concise History of India / Barbara D. Metcalf and Thomas R. Metcalf
  • A History of India / Hermann Kulke and Dietmar Rothermund
  • The Glass Palace / Amitav Ghosh, London: HarperCollins, 2001

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]