২০১৮ সালের কেরালা বন্যা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৮ সালের কেরালা বন্যা
IN-KL.svg
তারিখজুলাই ২০১৮ (2018-07) – আগস্ট
অবস্থানকেরালা, ভারত
কারণনিম্ন চাপ
ভারি বৃষ্টি
বাঁধ থেকে অতিরিক্ত জলের নির্গমন
ভূমিধ্বস
মৃত্যু৪৮৩ জন নিহত, ১৪ জন নিখোঁজ [১]
ক্ষয়ক্ষতি২০,০০০ কোটি (US$৩ বিলিয়ন)[২]
ওয়েবসাইট[www.keralarescue.in www.keralarescue.in]

২০১৮ সালের আগস্টে ভারতের কেরালা রাজ্যে অস্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের ফলে বন্যার সৃষ্টি হয় এবং এর প্রভাবে রাজ্যটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। প্রায় গত এক শতাব্দীতে এটি ছিল কেরালার সবচেয়ে ভয়ঙ্কর বন্যা।[৩] এর ফলে ৪৮৩ জন মানুষের মৃত্যু ঘটে এবং ১৪ জন নিখোঁজ হয়। কমপক্ষে ৬,৬১,০০০ জন [৪] মানুষ বাকি বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিল এবং রাজ্যের ১৪ টি জেলায় বন্যা ঘটে। [৫][৬]

ইতিহাসে প্রথমবারের জন্য রাজ্যের ৪২ টি বাঁধের মধ্যে ৩৫ টি এবং ইদুক্কি বাঁধের পাঁচটি জলকপাট ২৬ বছর পর একই সময়ে খোলা হয়েছিল। [৭] ওয়ানাদে ভারী বৃষ্টিপাত পাহাড়ের জেলাগুলি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। [৮]

বন্যার কারণ[সম্পাদনা]

২০১৮ সালের ৮ ই আগস্টের সন্ধার সময়ে ভারতে কেরালা রাজ্যে ব্যাপক বৃষ্টিপাত ঘটে, যার ফলে নদী বাঁধগুলি জলে ভরে যায়। প্রথম ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই রাজ্যে ৩১০ মিমি বৃষ্টিপাত হয়। [৯] ভারী বৃষ্টিপাতের জন্য জলস্তর অনেকটা বৃদ্ধি পায়। এজন্য প্রায় সব বাঁধই খুলে দেওয়া হয়। ফলস্বরূপ, স্থানীয় নিম্নভূমিগুলিতে বন্যা ঘটে। [১০] রাজ্যের ইতিহাসে এই প্রথমবারের জন্য, রাজ্যের মোট ৪২ টি বাঁধের মধ্যে ৩৫ টি বাঁধের জলকপাট খোলা হয়েছিল। [১১]

প্রভাব[সম্পাদনা]

আকাশ থেকে বন্যার দৃশ্য
ভারত আবহাওয়া অধিদপ্তরের দ্বারা জারি লাল সতর্কতা (আগস্টে)

এক জন রাজ্য কর্মকর্তা জানায় যে ১৬৭ জন মানুষ মারা গেছেন, একই সময়ে ভারতের সংবাদ প্রত্রিকা ইকোনমিক টাইমস জানায় ১১৪ জন নিহত হয়েছেন বন্যার ফলে। [৫][১২][১৩] তীব্র বন্যার ফলে কেরালা রাজ্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ রাজ্যে লাল সতর্কতা জারি করেছে। [১৪] বেশ কিছু জল বিশুধ্দকরণ কেন্দ্র, জল বিশুদ্ধ করা বন্ধ করতে বাধ্য হয় দুর্গম যোগাযোগ ব্যবস্থার কারণে, বিশেষ করে রাজ্যের উত্তর অঞ্চলের জেলাগুলিতে। [১৫]

বন্যা প্রভাবিতদের জন্য বিভিন্ন স্থানে অন্তত ৩৫০ টি ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছিল। [১৬] একটি ২৪/৭ কন্ট্রোল রুম এলুভা'তে কাজ শুরু করেছে, কেরালা ওয়াটার অথরিটির কার্যক্রম শুরু করে। [১৭] বন্যা শত শত গ্রাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। আনুমানিক ১০,০০০ কিলোমিটার সড়ক ধ্বংস হয়েছিল এবং হাজার হাজার বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল বা ধ্বংস হয়েছিল। [১৪] ১২ আগস্ট, ৩০,০০০ জন ত্রাণ শিবিরে অবস্থান করছিল, তাদের মধ্যে ১৩ হাজার, ওয়ায়ানাদ জেলার ছিল। ওই জেলাটি সবচেয়ে ভয়ঙ্কর বন্যার কবলে পড়েছিল। [১৮]

সাড়ে ২ হাজারেরও বেশি মানুষ , এর্নাকুলাম জেলার, পারাক্কাডাভু পিও'তে পুভাথাসেরীতে অবস্থিত সেন্ট জোসেফ গির্জা'য় আটকে পড়ে, ৩-৪ দিন ধরে সেখানে জলের স্তর বাড়তে থাকে। গির্জাতে আশ্রয় নেওয়া মানুষের কাছে পানীও জল এবং কোন খাবার ছিল না। [১৯]

আগস্ট ১৫, আন্তর্জাতিক যাত্রীপরিবহনের ক্ষেত্রে ভারত এর চতুর্থ ব্যস্ততম এবং রাজ্যে সর্বাধিক ব্যস্ত কোচিন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বন্যার কারণে ২৬ আগস্ট পর্যন্ত সব কার্যক্রম বন্ধ করে। [৫] সারা রাজ্য জুড়ে অনেক স্কুল বন্ধ হয়ে পড়ে এবং নিরাপত্তা জনিত উদ্বেগগুলির কারণে পর্যটকদের কিছু জেলায় নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। [১২] ১৬ আগস্ট কোচি মেট্রো বন্ধ হয়ে যায়, এবং বন্যার ফলে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য করার জন্য ফ্রি সার্ভিস প্রদান শুরু হয়েছে। [১১] ভারী বৃষ্টির কারণে ও জলের স্তরের বৃদ্ধির কারণে দক্ষিণাঞ্চলীয় রেলওয়ের তিরুবনন্তপুরম-কোতোয়াম-এর্নাকুলাম এবং এর্নাকুলাম-শোরানুর-পাল্ককাদ বিভাগগুলিতে রেল পরিষেবা বাতিল করা হয়েছিল। [২০]

রাজ্যের ৮০% বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করা হয়েছিল। [২১]

কাছাকাছি পম্বা নদীতে বন্যার কারণে হিন্দু তীর্থ কেন্দ্র সব্রিমালা ট্রেকিং বন্ধ করা হয়। [২২] সরকার ওনাম উদযাপন বাতিল করেছ, যার বরাদ্দকৃত তহবিলে ত্রাণ তৎপরতা পুনর্বহাল করা হয়েছিল। [২৩]

উদ্ধারকার্য[সম্পাদনা]

দক্ষিণ নৌ কমান্ড কেরালায় "মদত" নামে একটি উদ্ধারকার্য শুরু করে।
কোচির পদিভাত্তমে একটি ত্রাণ শিবির।

ভারতীয় সেনাবাহিনী এবং ভারতীয় নৌবাহিনীর ৫২ টি উদ্ধারকারী দল কেরালা বন্যায় উদ্ধারকার্যে অংশ নিয়েছে, যারা উদ্ধার কর্ম ও পুনর্গঠনে বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা করে। [৫] জাতীয় দুর্যোগ প্রতিক্রিয়া বাহিনীর ১০ টি দলের পাশাপাশি এর্নাকুলম জেলার প্রশাসনকে সহায়তার জন্য চারটি অতিরিক্ত দল গুন্টুর ও আরাকোনাম থেকে পাঠনো হয়। কেন্দ্রীয় সরকার কেরালায় পৌঁছেছে, পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়েছে। স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী রাজনাথ সিং প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আইডুক্কি ও এর্নাকুলাম জেলায় আকাশপথে বন্যা জরিপ পরিচালনা করেছিলেন। [২৪][২৫]

পাহাড়তলী অঞ্চলে ভূমিধ্বসের সংখ্যা নিচে উল্লেখ করে ইদুক্কি জেলা সতর্কতা অবলম্বন করে। ওয়াকনাড ও মালাপ্পুরম জেলার বিভিন্ন এলাকায় ভূমিধসের ঘটনা ঘটে। জেলা পর্যায়ের পর্যটক ও ভারী যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ হয়। পাহাড়ী ওয়ানাদ জেলার ম্যানথাকডী এবং ভিথিরী পুরোপুরি ভূমিধ্বসে হারিয়ে যায়, রাস্তাগুলি ধ্বসে হয়। [২৬]

আধিকারিকদের মতে, ১৪ জেলার মধ্যে ১,৫০০ টি ত্রাণ শিবিরে ২ লাখেরও বেশি বন্যা প্রভাবিত মানুষকে রাখা হয়েছিল। [২৪][২৭]

প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমনের পর কেরালার গভর্নর, বিচারপতি (অবসরপ্রাপ্ত) পি. সতাসীবম এবং কেরালার মুখ্যমন্ত্রী শ্রী পিনারাই বিজয়ন , বন্যাগ্রস্ত এলাকায় জরিপের জন্য কোচিতে পৌঁছান। ১৮ আগস্ট ২০১৮

১১ আগস্টের একটি সংবাদ সম্মেলনে প্রধান সচিব টম জোসে বলেন, "সবকিছু ভালভাবে নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। সরকার পরিস্থিতি উপরে রয়েছে। "[২৮]

ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির পরিকল্পিত আকাশ থেকে বন্যা জরিপটি ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে বন্ধ করা হয়েছিল। [২৯] তিনি কেরলকে যুক্তরাষ্ট্রীয় সমর্থন প্রদান করেন এবং কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন কেরালার ইতিহাসে আগে কখনও ঘটেনি এমন কিছু হিসাবে বন্যাটির বর্ণনা করেন এবং প্রতিবেশী তামিলনাড়ুর মুল্লাপাড়িয়ার বাঁধ থেকে অতিরিক্ত জল মুক্তি দেওয়ার জন্য কিছু দোষারোপ করেন। পরিস্থিতি খারাপ হতে থাকে। [১২]

আন্তর্জাতিক[সম্পাদনা]

যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় এড়িয়ে চলার জন্য তার নাগরিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল। [৩০] ভারতের সংযুক্ত আরব আমিরাত-এর দূতাবাস বন্যার বিষয়ে সাবধানও করে। দূতাবাস জানায়, ভারতের আবহাওয়া সংস্থাগুলি দক্ষিণের প্রদেশে কেরালায় ভারী বৃষ্টিপাতের বিষয়ে সতর্কবার্তা দিয়েছে। [৩১]

বৃষ্টিপাতের তথ্য[সম্পাদনা]

বৃষ্টিপাত প্রস্থান[সম্পাদনা]

সপ্তাহে থেকে সপ্তাহে স্বাভাবিক (%) বৃষ্টিপাত (তারিখটি সপ্তাহের শেষে নির্দেশ করে)[৩২]

৫০
১০০
১৫০
২০০
২৫০
৩০০
৬/৬
৬/১৩
৬/২০
৬/২৭
৭/৪
৭/১১
৭/১৮
৭/২৫
৮/১
৮/৮
৮/১৫

জেলাগুলিতে অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত[সম্পাদনা]

ভারতের রাজ্য সরকারগুলির কেরল বন্যায় দুর্গতদের ত্রাণে অবদান
জেলাগুলিতে বৃষ্টিপাত
(১ জুন ২০১৮ - ১৭ আগস্ট ২০১৮)[৩৩][৩৪]
জেলা বৃষ্টিপাত
(মিমি)
সাধারণ
(মিমি)
%
আলাপুজা ১৬৪৮.১ ১৩০৯.৫ ২৯%
এর্নাকুলাম ২৩০৫.৯ ১৬০৬.০ ৪৮%
আইডুক্কি ৩২১১.১ ১৭৪৯.১ ৮৯%
কানূর ২৪৫০.৯ ২২৩৪.৯ ১০%
কাসরাগড ২৫৪৯.৯৪ ২৪৮৯.১ ১২%
কোলাম ১৪২৭.৩ ৯৮৫.৪ ৫১%
কোতোয়াম ২১৩৭.৬ ১৪৫২.৬ ৫০%
কোজিকোড ২৭৯৬.৪ ২১৫৬.৫ ৩০%
মালাপ্পুরাম ২৫২৯.৮ ১৬৮৭.৩ ৫২%
পালক্কাদ ২১৩৫.০ ১২৫৪.২ ৭৫%
পনন্তমথিত ১৭৬২.৭ ১২৮৭.৫ ৪৪%
তিরুবনন্তপুরম ৯২০.৮ ৬৪৩.০ ৪৫%
ত্রিসূর ১৮৯৪.৫ ১৭৩৮.২ ১৬%
ওয়ায়ানাদ ২৬৬৭.৮ ২১৬৭.২ ২৬%
কেরালা ২২২৬.৪ ১৬২০.০ ৪১%

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "483 Dead, 14 Missing In Kerala Floods: Pinarayi Vijayan"। এনডিটিভি। ১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  2. "Flood-Hit Kerala Suffers Rs 8,000 Cr Losses; Rajnath Gives Rs 100 Crore Aid, Says Situation 'Very Serious'"নিউজ১৮ (ব্রিটিশ ইংরেজি ভাষায়)। কোচি। ২০১৮-০৮-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৭ 
  3. Baynes, Chris (১৫ আগস্ট ২০১৮)। "Worst floods in nearly a century kill 44 in India's Kerala state amid torrential monsoon rains"The Independent। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  4. Babu, Gireesh (১৭ আগস্ট ২০১৮)। "Monsoon havoc in Kerala: 324 lives lost since May 29, says CM Vijayan"Business Standard India। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০১৮ 
  5. "Kerala floods live updates: Death toll rises to 79; Kochi airport to remain closed till August 26"Times of India। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  6. "Death toll soars in India monsoon floods"BBC News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-০৮-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৭ 
  7. "All 5 Idukki Dam gates opened for 1st time in history as Kerala battles unending rains"India Today 
  8. "Landslides hit several places in Malabar; Munnar, Wayanad isolated"Mathrubhumi। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৫ 
  9. Fawkes, Chris (১০ আগস্ট ২০১৮)। "Active monsoon brings more flooding"BBC News। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  10. Gupta, Swati (১৬ আগস্ট ২০১৮)। "Kerala floods: Red alert issued as death toll rises in Indian state"CNN। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  11. "Kerala floods LIVE updates: Death toll touches 75, Cochin airport to remain closed till August 26 afternoon"The Indian Express। ১৬ আগস্ট ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  12. Padanna, Ashraf (১৬ আগস্ট ২০১৮)। "India monsoon floods kill 73 in Kerala"BBC News। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  13. "Kerala Floods LIVE: Death toll rises to 114, rescue operations underway"The Economic Times। ২০১৮-০৮-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৭ 
  14. "India: Death toll in devastating Kerala floods rises to 77"Al Jazeera। ১৬ আগস্ট ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  15. Surya, Jisha (১৬ আগস্ট ২০১৮)। "Kerala floods: Drinking water supply hit in major places"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  16. "Kerala floods kill dozens with 36,000 evacuated"The Guardian। ১২ আগস্ট ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  17. "Control room opened at Aluva"The Hindu। ১০ আগস্ট ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  18. Philip, Shaju (১৬ আগস্ট ২০১৮)। "67 dead in Kerala rain: In Wayanad, villagers say got no dam water warning"The Indian Express। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  19. "Need Urgent Help: Karthi shared the location of 2500 people who stranded in the floods"NTV Telugu। ১৮ আগস্ট ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০১৮ 
  20. "Kerala floods live updates: Death toll rises to 79; Kochi airport to remain closed till August 26 – The Times of India"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৬ 
  21. "Kerala Floods LIVE Updates: Century's Worst Deluge Kills 167, Snaps Power in 80% of the State"News18। ২০১৮-০৮-১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৭ 
  22. "Kerala floods: No darshan at Sabarimala as Pampa river overflows – Times of India ►"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৫ 
  23. "Kerala floods: Govt puts off Onam celebrations"Times of India। ১৪ আগস্ট ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  24. "Kerala rains LIVE Updates: Centre announces relief of additional Rs 100 crores, toll stands at 37"The Indian Express (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-০৮-১২। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১২ 
  25. "Kerala Floods LIVE: Army Evacuates Tourists Stranded in Munnar, Red Alert Issued in 11 Districts"news18.com। ১০ আগস্ট ২০১৮। 
  26. Livemint (২০১৮-০৮-১২)। "Kerala floods: Rains return to Idukki, other affected areas, hamper relief work"livemint.com/। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১২ 
  27. Sanyal, Anindita। "324 Dead In Kerala Floods, Many Displaced, Says Chief Minister: 10 Facts"NDTV.com। সংগ্রহের তারিখ ১৭ আগস্ট ২০১৮ 
  28. "Heavy flooding puts Kerala in crisis"The Hindu। ১১ আগস্ট ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  29. "Kerala floods live updates: PM Modi conducts aerial survey of flooded areas – The Times of India"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৮ 
  30. "Flood toll in India's tourist hotspot Kerala jumps to 67"Channel NewsAsia। ১৬ আগস্ট ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  31. Report, Web। "Kerala floods: UAE embassy in India issues warning"www.khaleejtimes.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৬ 
  32. "SUBDIVISION – WEEK BY WEEK DEPARTURES – Period: 01-06-2018 To 15-08-2018" (PDF)। India Meteorological Department. Hydromet Division। 
  33. "Customized Rainfall Information System (CRIS)"hydro.imd.gov.in। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৭ 
  34. "Customized Rainfall Information System (CRIS)" (PDF)। Hydromet Division, India Meteorological Department, Ministry Of Earth Sciences। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]