২০১৭ ডোকলাম বিবাদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৭ সালের চীন-ভারত সীমান্ত বিরোধিতা
তারিখ১৬ জন ২০১৭- ২৮ আগোস্ট ২০১৭
অবস্থানডোকলাম
অবস্থা
  • উভয় পক্ষ ডোকলামে অবস্থান করে এবং তাদের সৈন্যদের ফিরিয়ে নেয়।
  • চীনা সড়ক নির্মাণ স্থগিত।
  • চীনের সৈন্যরা তাদের সীমান্তে ও ডোকলাম এলাকায় অবস্থান করছে। (চীনা দাবি)
যুধ্যমান পক্ষ
 ভারত
(  ভুটান-পক্ষে)
 চীন
হতাহত ও ক্ষয়ক্ষতি
আহত[১] আহত[১]

ডোকলাম বিবাদ বা ২০১৭ সালের চীন-ভারত সীমান্ত বিরোধিতা ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীচীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির মধ্যকর সীমান্ত বিরোধকে বোঝায়। এই বিরোধ ঘটে চীনের সেনাবাহিনী যখন ডোকলামে সড়ক নির্মান শুরু করে, চীনে ডোকলাম এলাকা ডিক্ল্যাং, বা ডনল্যাং কাওচং (ডনল্যাং চারণভূমি বা চারণভূমির ক্ষেত্র) নামে পরিচিত। ১৬ জুন ২০১৭ সালে চীনের সৈন্যরা নির্মাণাধীন যানবাহন ও রাস্তাঘাট নির্মাণের সরঞ্জাম দিয়ে দখল করে একটি বিদ্যমান সড়কে দক্ষিণমুখী ভাবে ডোকলাম এলাকাতে নির্মান শুরু করে এবং এই অঞ্চলটি নিজের বলে দাবি করে, যখন ভারতভুটান ভুটানের অঞ্চল হিসেবে বিবেচনা করে। [২][৩][৪][৫][৬] ১৮ ই জুন, ২০১৭ তারিখে চীনের সৈন্যদের রাস্তা নির্মাণের জন্য দোখালাতে অস্ত্র ও অস্ত্রসহ ২৭০ ভারতীয় সৈন্য প্রবেশ করেছে। [৩][৭] ফলে উভয় পক্ষ একটি স্থান উপর অধিকার দাবি করে।

পেক্ষাপট[সম্পাদনা]

চীন ও ভুটানের মধ্যে দ্বন্দ্ব ডোকলাম এলাকা নিয়ে, যা ভারত, চীন ও ভুটানের সীমান্তের সংযোগ স্থলের খুব কাছে অবস্থিত।[৮][৯] চীন ও ভুটানের বিপরীতে, ভারত ডোকলাম অঞ্চলটিকে নিজেদের বলে দাবি করেনি, কিন্তু ভুটানের দাবিকে সমর্থন করে।[১০][১১][১২]

চীন আর ভুটানের বিরোধ পূর্ন এলাকা

ডোকলামের বিরোধ নিয়ে চীনের দাবি ছিল যে চীন ও ব্রিটেনের মধ্যে ১৮৯০ সালের ক্যালকাটা কনভেনশনেরউপর ভিত্তি করে, যা ধারা ১-এ উল্লিখিত:

সিকিম ও তিব্বতের সীমাটি পর্বতমালার স্রোত হতে হবে যা নদীতে প্রবাহিত হবে।তিব্বতের অন্যান্য নদীতে তিব্বতে মোচু এবং উত্তরে উত্তরে সিক্কিম তিস্তা এবং তার সমৃদ্ধশালী তিব্বতের নদী। লাইনটি ভুটান সীমান্তের মাউন্ট গিম্মোপিতে শুরু হয় এবং উপরে বর্ণিত জল-বিভাজনের নির্দেশ দেয় যেখানে এটি নেপাল অঞ্চল পূরণ করে।

বিবাদ[সম্পাদনা]

২৭ শে জুন ২০১৭ খ্রিষ্টাব্দে ভুটান বিতর্কিত অঞ্চলে একটি রাস্তা নির্মাণের কারণে চীনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানায়। [১৩] ভুটান সরকারের মতে, চীন জুফেরি পাহাড়ের কাছে জর্নপেল্লিতে ভুটানের সেনা ক্যাম্পের সামনে ডোকালামে রাস্তা সম্প্রসারণের চেষ্টা করে; যে পাহাড় চীন দ্বারা সীমানা হিসাবে বিবেচনা করা হয়। কিন্তু ভুটান এবং ভারত উভয় দ্বারা তা অস্বীকার করা হয়। ভারতের অত্যন্ত কৌশলগত শিলিগুড়ি করিডোর দিকে সড়কটি প্রসারিত ছিল। ভুটানের সীমান্তে উচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছিল এবং ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা সৃষ্টির কারণে সীমান্ত নিরাপত্তা কঠোর করা হয়েছিল।[১৪]

একই দিনে, চীন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় চীনের অংশ হিসাবে ডোকলামকে একটি মানচিত্র প্রকাশ করে।মানচিত্র দৃষ্টান্ত হিসেবে ব্যবহার করে চীনের স্পোকসর লু কং ১৮৯০ সালের কলকাতার সম্মেলন অধ্যায়-১ এ বলেছিলেন এবং এটি প্রমাণ করেছে যে, ডগলল্যান্ড (ডক্লিম) এলাকাটি, গুপমোচির একটি উত্তর-পূর্বাঞ্চল, যা চীনের মানচিত্রে প্রদর্শিত হয়।[১৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. https://www.reuters.com/article/us-india-china-idUSKCN1AV29F
  2. "Press Release – Ministry of Foreign Affairs"www.mfa.gov.bt (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৬-৩০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-২০ 
  3. Barry, Steven Lee Myers, Ellen; Fisher, Max (২০১৭-০৭-২৬)। "How India and China Have Come to the Brink Over a Remote Mountain Pass"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-১৬ 
  4. "China says India violates 1890 agreement in border stand-off"Reuters। ৩ জুলাই ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-১৬ 
  5. Safi, Michael (৫ জুলাই ২০১৭)। "Chinese and Indian troops face off in Bhutan border dispute"। সংগ্রহের তারিখ ১০ আগস্ট ২০১৭ – The Guardian-এর মাধ্যমে। 
  6. "Doklam standoff: China sends a warning to India over border dispute"Los Angeles Times। Associated Press। ২৪ জুলাই ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১১ আগস্ট ২০১৭ 
  7. "China warns Indian troops to get out of contested region"। সংগ্রহের তারিখ ১০ আগস্ট ২০১৭ 
  8. "Doklam Standoff: Beyond Border Dispute - Mainstream Weekly"www.mainstreamweekly.net। সংগ্রহের তারিখ ১০ আগস্ট ২০১৭ 
  9. Mitra, Devirupa (৫ জুলাই ২০১৭)। "Expert Gyan: On India, China Stand-Off At Border Tri-Junction With Bhutan"The Wire। সংগ্রহের তারিখ ১১ আগস্ট ২০১৭ 
  10. Barry, Steven Lee Myers, Ellen; Fisher, Max (২৬ জুলাই ২০১৭)। "How India and China Have Come to the Brink Over a Remote Mountain Pass"The New York Times। সংগ্রহের তারিখ ১১ আগস্ট ২০১৭ – NYTimes.com-এর মাধ্যমে। 
  11. "Sikkim standoff: Beijing should realise Bhutan is as important to India as North Korea is to China"Firstpost। ৩০ জুন ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১১ আগস্ট ২০১৭ 
  12. Staff (২৮ জুন ২০১৭)। "Indian bunker in Sikkim removed by China: Sources"The Times of India। ২৩ আগস্ট ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ আগস্ট ২০১৭ 
  13. "Bhutan protests against China's road construction"The Straits Times। ৩০ জুন ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১১ আগস্ট ২০১৭ 
  14. "Bhutan issues scathing statement against China, claims Beijing violated border agreements of 1988, 1998"Firstpost। ৩০ জুন ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৬-৩০ 
  15. "EXCLUSIVE: China releases new map showing territorial claims at stand-off site"। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুলাই ২০১৭