১৯৮৪ শিখ-বিরোধী দাঙ্গা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
১৯৮৪ শিখ-বিরোধী দাঙ্গা
স্থানপাঞ্জাব, দিল্লি
তারিখ৩১ অক্টোবর ১৯৮৩ (1983-10-31)-
৩ নভেম্বর ১৯৮৩ (1983-11-03)
লক্ষ্যশিখ
হামলার ধরন
সাম্প্রদায়িক হিংসা, গণহত্যা, অগ্নিসংযোগ, অপহরণ, ধর্ষণ, অ্যাসিড নিক্ষেপ
নিহতপ্রায় ৮০০০ - ১৭০০০ জন [১]

১৯৮৪ শিখ বিরোধী দাঙ্গা বা ১৯৮৪ শিখ গণহত্যা বলতে [২][৩][৪][৫][৬] শিখ দেহরক্ষীর দ্বারা হওয়া ইন্দিরা গান্ধীর হত্যার প্রতিশোধ পূরণে ভারতীয় শিখদের বিরুদ্ধে চালানো শিখ বিরোধী উন্মত্ত জনতা, মূলতঃ ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেছর সদস্যসকলে চালানো এক কার্যসূচীকে বোঝায়। সেই কান্ডত সমগ্র ভারতবর্ষে ২৮০০জন লোকের ম়ত্যু হয়েছিল ; কেবল দিল্লীতে মৃত্যু হয়েছিল ২১০০জনের।[১][৪] কেন্দ্রীয় অনুসন্ধান বুরো র মতে, এই হিংসাত্মক ঘটনা দিল্লী পুলিশ ও কেন্দ্রীয় সরকারের সমর্থনে সংঘটিত হয়েছিল ।[৭] ইন্দিরা গান্ধীর মৃত্যুর পর পুত্র রাজীব গান্ধীক প্রধান মন্ত্রীর স্থলাভিষিক্ত করা হয়েছিল এবং এই দাঙ্গার প্রসংগে পতাঁর মন্তব্য ছিল, “যখন একটি বড় গাছ ভেঙে পড়ে, তখন চারপাশের মাটি কাঁপবেই”[৮]

পটভূমি[সম্পাদনা]

১৯৭৩ সালে আনন্দপুর সাহিব প্রস্তাবের যোগে পাঞ্জাব ও শিখদের জন্য বিশেষ মর্যাদা চাওয়া হয়। ১৯৭০ দশকের শেষের দিকে এবং ১৯৮০ দশকের শুরুর দিকে প্রাদেশিক ও ধর্মীয় রাজনীতির জন্য পাঞ্জাবের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছিল ও ফলস্বরূপ ১৯৮৩তে প্রাদেশিক সরকারকে বর্খাস্ত করা হয়েছিল [৯][১০]

শিখদের একটা অংশ জার্ণাইল সিং ভিন্দ্রনবালের নেতৃত্বে উগ্রবাদী কার্যকলাপে লিপ্ত হয়েছিল ; কিছু শিখ উগ্রবাদী জোট একটি পৃথক দেশ “খালীস্তান” চেয়ে ভারত সরকারের বিরুদ্ধে উগ্রবাদী কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছিল। কিছু লোক আনন্দপুর সাহিব প্রস্তাবের আধারে ভারতের মধ্যে একটি স্বায়ত্বশাসিত প্রদেশ চেয়েছিল।বৃহৎ সংখ্যক শিখ জনতা কিন্তু উগ্রবাদী কার্যকলাপের বিরোধিতা[১১]

১৯৮৩ থেকে পাঞ্জাবের পরিস্থিতি হিংসা-সন্ত্রাসে জর্জরিত হয়ে পড়েছিল। ‘৮৩র অক্টোবরে কয়েকজন শিখ উগ্রপন্থী একটি বাস থামিয়ে ৬জন হিন্দু যাত্রীকে গুলি করে হত্যা করে। একইদিনে উগ্রপন্থীরা রেলে ২জন কর্মচারীকে হত্যা করে।[১২]:১৭৪ কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার পাঞ্জাবের প্রাদেশিক সরকারকে বর্খাস্ত করে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করে অপারেশন ব্লুষ্টার আরম্ভ হওয়ার পাঁচমাস আগের সময়কালে, ১ জানুয়ারী ১৯৮৪র থেকে ৩ জুন ১৯৮৪ পর্যন্ত পাঞ্জাবের চারপাশে বিভিন্ন হিংসাত্মক ঘটনায় ২৯৮জন মানুষ হত্যার বলি হয়। অপারেশন আরম্ভ হওয়ার পাঁচদিন আগের সময়কালে ৪৮জনকে হত্যা করা হয়।[১২]:১৭৫ ’৮৪ সালের জুনের আগেভাগে প্রধান মন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী অমৃতসরের হরমন্দির সাহিবের (স্বর্ণমন্দির) চৌহদ্দি থেকে উগ্রপন্থী জার্ণাইল সিং ভিন্দ্রনবাল ও তাঁর সশস্ত্র অনুগামীদেরক অপসারণ করার উদ্দেশ্যে অপারেশন চালানোর জন্য ভারতীয় সেনাবাহিনীকে আদেশ দেন।[১৩][১৪] ভিন্দ্রনবাল ১৯৮০র এপ্রিল থেকে হরমন্দির সাহিবে বাস করছিলেন এবং এটাকে তিনি মুখ্য কার্যালয় রূপে ব্যবহার করছিলেন। বিশাল পরিসরে সশস্ত্র কার্যকলাপ চালানোর জন্য গুরুদ্বারার মধ্যে অস্ত্রভান্ডার গড়ে তোলার অপরাধে ভিন্দ্রনবালকে দোষী করা হয়েছিল ।[১৫]

হিংসার প্রকৃতি[সম্পাদনা]

৩১ অক্টোবর ১৯৮৪এ দুজন শিখ দেহরক্ষীর দ্বারা ইন্দিরা গান্ধীর হত্যা হওয়ার পরদিন থেকে দিল্লী ও ভারতের ৪০ টিরও বেশি শহরে শিখ বিরোধী দাঙ্গা আরম্ভ হয়।[৪] সুলতানপুরী, মঙ্গলপুরী, ত্রিলোকপুরী ও অন্য ট্রেঞ্চ যমুনা অঞ্চল সমূহ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। উন্মত্ত জনতা লোহার রড, ছুরি, লাঠি, জ্বলনশীল পদার্থ, যেমন কেরাসিন, পেট্রোল ইত্যাদি নিয়ে সংঘর্ষ ঘটায়।

পাদটীকা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি" (PDF)। ২৭ নভেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ এপ্রিল ২০১৮ 
  2. State pogroms glossed over. The Times of India. 31 December 2005.
  3. "Anti-Sikh riots a pogrom: Khushwant"। Rediff.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০০৯ 
  4. Bedi, Rahul (১ নভেম্বর ২০০৯)। "Indira Gandhi's death remembered"। BBC। ২ নভেম্বর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ নভেম্বর ২০০৯The 25th anniversary of Indira Gandhi's assassination revives stark memories of some 3,000 Sikhs killed brutally in the orderly pogrom that followed her killing 
  5. Nugus, Phillip (Spring ২০০৭)। "The Assassinations of Indira & Rajiv Gandhi"। BBC Active। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জুলাই ২০১০ 
  6. "California assembly describes 1984 riots as 'genocide'"Times of India। ২২ এপ্রিল ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৮ এপ্রিল ২০১৫ 
  7. "1984 anti-Sikh riots backed by Govt, police: CBI"IBN Live। ২৩ এপ্রিল ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২৭ এপ্রিল ২০১২ 
  8. "1984 anti-Sikh riots 'wrong', says Rahul Gandhi"Hindustan Times। ১৮ নভেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১২ 
  9. "Anandpur Sahib Resolution"। Shiromani Akali Dal। ২২ জানুয়ারি ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ আগস্ট ২০১২ 
  10. "Badal refuses to speak on Anandpur Sahib resolution"The Indian Express। ৩ ফেব্রুয়ারি ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ৩০ আগস্ট ২০১২ 
  11. J. C. Aggarwal; S. P. Agrawal (১৯৯২)। Modern History of Punjab। Concept Publishing Company। পৃষ্ঠা 117। আইএসবিএন 978-81-7022-431-0। সংগ্রহের তারিখ ১৯ অক্টোবর ২০১২ 
  12. Robert L. Hardgrave; Stanley A. Kochanek (২০০৮)। India: Government and Politics in a Developing Nation। Cengage Learning। আইএসবিএন 978-0-495-00749-4। সংগ্রহের তারিখ ২০ অক্টোবর ২০১২ 
  13. "Operation BlueStar, 20 Years On"। Rediff.com। ৬ জুন ১৯৮৪। সংগ্রহের তারিখ ৯ আগস্ট ২০০৯ 
  14. Allegations of UK involvement in the Indian operation at Sri Harmandir Sahib, Amritsar 1984 (PDF) (প্রতিবেদন)। Cabinet Office। ফেব্রুয়ারি ২০১৪। 
  15. "Operation Bluestar, 5 June 1984"। ২৩ আগস্ট ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ এপ্রিল ২০১৮ 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • Singh, Parvinder (মে ২০০৯)। 1984 Sikhs’ Kristallnacht (PDF)। Ensaaf। ২৬ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ নভেম্বর ২০১০ 
  • Rao, Amiya; Ghose, Aurobindo; Pancholi, N. D. (১৯৮৫)। Truth about Delhi violence: report to the nation। India: Citizens for Democracy। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জুলাই ২০১০ 
  • Kaur, Jaskaran; Crossette, Barbara (২০০৬)। Twenty years of impunity: the November 1984 pogroms of Sikhs in India (PDF) (2nd সংস্করণ)। Portland, OR: Ensaaf। আইএসবিএন 978-0-9787073-0-9। সংগ্রহের তারিখ ৪ নভেম্বর ২০১০ 
  • Cynthia Keppley Mahmood. Fighting for Faith and Nation: Dialogues With Sikh Militants. University of Pennsylvania Press, ISBN 978-0-8122-1592-2.
  • Cynthia Keppley Mahmood. A Sea Of Orange: Writings on the Sikhs and India. Xlibris Corporation, ISBN 978-1-4010-2857-2
  • Ram Narayan Kumar et al. Reduced to Ashes: The Insurgency and Human Rights in Punjab. South Asia Forum for Human Rights, 2003. Report
  • Joyce Pettigrew. The Sikhs of the Punjab: Unheard Voices of State and Guerrilla Violence. Zed Books Ltd., 1995.
  • Anurag Singh. Giani Kirpal Singh’s Eye-Witness Account of Operation Bluestar. 1999.
  • Patwant Singh. The Sikhs. New York: Knopf, 2000.
  • Harnik Deol. Religion and Nationalism in India: The Case of the Punjab. London: Routledge, 2000
  • Mark Tully. Amritsar: Mrs Gandhi's Last Battle. ISBN 978-0-224-02328-3.
  • Ranbir Singh Sandhu. Struggle for Justice: Speeches and Conversations of Sant Jarnail Singh Bhindranwale. Ohio: SERF, 1999.
  • Iqbal Singh. Punjab Under Siege: A Critical Analysis. New York: Allen, McMillan and Enderson, 1986.
  • Paul Brass. Language, Religion and Politics in North India. Cambridge: Cambridge University Press, 1974.
  • PUCL report "Who Are The Guilty. Link to report.
  • Manoj Mitta & H.S. Phoolka. When a Tree Shook Delhi (Roli Books, 2007), ISBN 978-81-7436-598-9.
  • Jarnail Singh, 'I Accuse...' (Penguin Books India, 2009), ISBN 978-0-670-08394-7
  • Jyoti Grewal, 'Betrayed by the state: the anti-Sikh pogrom of 1984' (Penguin Books India, 2007), ISBN 978-0-14-306303-2

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]