হোর্হে সাম্পাওলি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হোর্হে সাম্পাওলি
Jorge Sampaoli (cropped).jpg
২০১৩ সালে চিলির কোচ সাম্পাওলি
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম হোর্হে লুইস সাম্পাওলি মোয়া
জন্ম (1960-03-13) ১৩ মার্চ ১৯৬০ (বয়স ৫৯)
জন্ম স্থান কাসিলদা, আর্জেন্টিনা
উচ্চতা ১.৬৭ মিটার (৫ ফুট   ইঞ্চি)
মাঠে অবস্থান ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব আর্জেন্টিনা (কোচ)
যুব পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন
বছর দল
১৯৭৭-৭৯ নিউওয়েলস ওল্ড বয়েজ
দলসমূহ পরিচালিত
বছর দল
২০০২ জুয়ান অরিচ
২০০৩ স্পোর্ট বয়েজ
২০০৪-২০০৬ কোরোনেল বোলোগ্নেসি
২০০৭ স্পোর্টিং ক্রিস্টাল
২০০৮-২০০৯ ওহিগিন্স
২০১০ এমলেক
২০১০-২০১২ ইউনিভারসিতাত দ্যা চিলি
২০১২-২০১৬ চিলি
২০১৬-২০১৭ সেভিয়া
২০১৭–২০১৮ আর্জেন্টিনা

হোর্হে লুইস সাম্পাওলি মোয়া (স্পেনীয় উচ্চারণ: [ˈxoɾxe sampaˈoli]; জন্ম ১৩ মার্চ ১৯৬০) একজন আর্জেন্টাইন ফুটবল কোচ। তিনি বর্তমানে আর্জেন্টিনার জাতীয় দলের কোচের দায়িত্ব পালন করছেন। সাম্পাওলি ২০০৪ সালে কোরোনেল বোলোগ্নেসি'র হয়ে কাজ করে তার কোচিং পেশা শুরু করেন। সাম্পাওলি চিলিয়ান ক্লাব ইউনিভারসিদাদ দ্যা চিলির হয়ে ৩ টি লীগ শিরোপা এবং কোপা সুদামেরিকা জিতে সকলের নজরে আসেন। ২০১৫ সালে চিলি জাতীয় দলের হয়ে নিজ দেশ আর্জেন্টিনাকে কোপা আমেরিকার ফাইনালে হারিয়ে শিরোপা জেতে। ২০১৬ সালের ২৮ জুন সাম্পাওলি ২ বছরের চুক্তিতে সেভিয়ায় যোগ দেয়। ১ বছর পর আর্জেন্টিনার জাতীয় দলের কোচ হওয়ার জন্য সেভিয়ার কোচ হতে পদত্যাগ করেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

তিনি আর্জেন্টিনার ক্যাসিলদায় জন্মগ্রহণ করেন। কিশোর বয়সে তিনি ফুটবল বিষয় উৎসাহী ছিলেন। স্থানীয় লীগে একটি দলের হয়ে খেলা শুরু করেন পরবর্তিতে নিউওয়েলস ওল্ড বয়েজের যুবদলে যোগ দেন। জঙ্ঘাস্থি ও ফিবুলার সমস্যার কারনে মাত্র ১৯ বছর বয়সে ফুটবল থেকে অবসর নেন।

কোচিং ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

পেরু'তে কোচিং[সম্পাদনা]

২০০২ সালের জানুয়ারিতে সাম্পাওলি পেরুর ক্লাব জুয়ান অরিচে কোচ হিসেবে যোগ দেন। তার পেশাদার জীবনের প্রথম ম্যাচ ছিলো ইউনিভারসিতারিওর বিপক্ষে , যেখানে ২-১ গোলে পরাজিত হন। এর কয়েক মাস পর জুনে স্পোর্ট বয়েজে যোগ দেন, ১ম ম্যাচে কোরোনেল বোলোগ্নেসিকে ২-০ গোলে হারায় তার দল। ২০০৪ সালে কোরোনেল বোলোগ্নেসি'তে যোগ দেন। ২০০৫ সালে আপারটুরা লিগে তার দল ৫ম স্থান অধিকার করেন। ২০০৭ সালে তিনি স্পোর্টিং ক্রিস্টালে যোগ দেন। যাইহোক তার সময় ক্রিস্টাল ১৭ ম্যাচে মাত্র ৪ টি জয় পায়। মৌসুম শেষে ক্লাব থেকে বরখাস্ত হন এবং পেরু'তে তার ফুটবল কোচিং ক্যারিয়ার শেষ করেন।