হেলমান্দ নদী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হেলমান্দ নদী
হেলমান্দ নদীর প্রবাহচিত্র
হেলমান্দ নদীর মানচিত্র
Helmand River drainage basin
মানচিত্রে হেলমান্দ নদীর অবস্থান
অববাহিকার বৈশিষ্ট্য
মূল উৎসহিন্দু কুশ পর্বতমালা
মোহনালেক হামুন
অববাহিকার আকারসিস্টান বেসিন
শাখা-নদী
প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্য
দৈর্ঘ্য১,১৫০ কিমি (৭১০ মা)

হেলমান্দ নদী (হেলমেন্দ, অথবা হেলমুন্দ, হিরমান্দ; পুশতু / ফার্সি : هیرمند / هلمند ; গ্রীক : Ἐτύμανδρος (এটেমন্ড্রোস); লাতিন : Erymandrus) আফগানিস্তানের দীর্ঘতম নদী এবং এন্ডোরিয়িক সিস্তান অববাহিকার সর্ববৃৃৃহৎ জলাধার।[১]

ব্যুৎপত্তি[সম্পাদনা]

হেলমান্দ নামটি অবেস্তা ভাষার হাটুমান্ট শব্দ থেকে এসেছে। হেলমান্দ শব্দের আক্ষরিক অর্থ বাঁধ দেওয়া হয়েছে বা বাঁধ আছে এমন। এই অর্থ হেলমান্দ নদী এবং তার চারপাশের সেচ অঞ্চলকে বোঝায়।[২] এই নামটি গ্রীক এবং লাতিন ভাষায় পূর্বের ইরানি *রাহা (সিএফ)-এর মিশ্রণরূপে ছিল। পরে সিথিয়ান শব্দ রাহাভোলগা নদী থেকে নামটি বর্তমান নামে রূপান্তরিত হয়েছে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

আফগানিস্তানের হেলমান্দ প্রদেশের নামানুসারে নদীটির নামকরণ করা হয়েছে।

ভূগোল[সম্পাদনা]

হেলমান্দ নদী ১,১৫০ কিমি (৭১০ মা) পর্যন্ত প্রসারিত। এটি হিন্দু কুশের পাহাড়ে উঠেছিল, প্রায় ৮০ কিমি (৫০ মা) পশ্চিমে কাবুল ( ৩৪°৩৪′ উত্তর ৬৮°৩৩′ পূর্ব / ৩৪.৫৬৭° উত্তর ৬৮.৫৫০° পূর্ব / 34.567; 68.550 ), এর ক্ষণস্থায়ী উত্তর উনাই স্বাগতম পাস, হাজারাত পূর্ব প্রোক্সিমিটিসে, বেহসুদে, ময়দানে ওয়ার্ড, পশ্চিম দিকে দাইকুণ্ডি এবং উরুজগান প্রবাহিত। এটা মরুভূমির মধ্য দিয়ে দক্ষিণ-পশ্চিম অতিক্রম দাশটি মার্গো, এর সিস্টান জলা ও হামুন-ই-হেলমান্দ প্রায় হ্রদ অঞ্চল জাবল আফগান-ইরানি সীমান্ত (এ ৩১°৯′ উত্তর ৬১°৩৩′ পূর্ব / ৩১.১৫০° উত্তর ৬১.৫৫০° পূর্ব / 31.150; 61.550)।

বেশ কয়েকটি জলবিদ্যুৎ বাঁধগুলো হেলমান্দ নদীর কাজাকাইসহ আফগানিস্তানের কয়েকটি নদীর উপর কৃত্রিম জলাধার তৈরি করেছে। হেলমান্দ নদীর প্রধান উপনদী আরঘন্দব নদী (এ সঙ্গমস্থলে ৩১°২৭′ উত্তর ৬৪°২৩′ পূর্ব / ৩১.৪৫০° উত্তর ৬৪.৩৮৩° পূর্ব / 31.450; 64.383 যা একটি প্রধান আছে) বাঁধ উত্তর কান্দাহারের। নদীর বেশিরভাগ দৈর্ঘ্যের জন্য নদী তুলনামূলকভাবে লবণমুক্ত থাকে, বেশিরভাগ নদীর মতো নয় সমুদ্রের কাছে কোনও প্রবাহ নেই। হেলমান্দ এবং আরঘন্দব ভ্যালি কর্তৃপক্ষ পরিচালিত এই নদীটি সেচের জন্য ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়, যদিও খনিজ লবণের এক ধরনের ফলে ফসলের জল সরবরাহে এর উপযোগ হ্রাস পেয়েছে।

হেলমান্দ প্রদেশের সীমানা একসময় সাকস্তানের রাজ্য হিসাবে পরিচিত ছিল।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

হেলমান্দ উপত্যকা অঞ্চলের নামে উল্লেখ করা হয় আবেস্তার (ফারগার্দ ১:১৩) যেমন আর্য হাতুমন্ত, প্রথম কেন্দ্রে এক দেশ পার্সি বিশ্বাস ক্ষেত্র থাকে যেগুলো এখন আফগানিস্তান হয় । তবে, খ্রিস্টপূর্ব প্রথম সহস্রাব্দের শেষ এবং প্রথম সহস্রাব্দের প্রথম দিকে, হেলমান্দ ও কাবুল উপত্যকায় জরথাস্ট্রিয়ান হিন্দু ও বৌদ্ধদের অগ্রগতির ফলে পার্থিয়ানরা এটিকে হোয়াইট ইন্ডিয়া বলে উল্লেখ করেছিল। [৩][৪][৫][৬] জুনবিল রাজবংশ প্রথম সহস্রাব্দের মাঝামাঝি সময়ে হেলমান্দকে শাসন করেছিল।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "History of Environmental Change in the Sistan Basin 1976 - 2005" (PDF)। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৭-২০ 
  2. Jack Finegan. Myth & Mystery: An Introduction to the Pagan Religions of the Biblical World. Baker Books, 1997. আইএসবিএন ০-৮০১০-২১৬০-X, 9780801021602
  3. http://parthia.com/doc/parthian_stations.htm
  4. Vendidad 1, at Avesta.org
  5. Beyond is Arachosia, 36 schoeni. And the Parthians call this White India; there are the city of Biyt and the city of Pharsana and the city of Chorochoad and the city of Demetrias; then Alexandropolis, the metropolis of Arachosia; it is Greek, and by it flows the river Arachotus. As far as this place the land is under the rule of the Parthians.
  6. Avesta, translated by James Darmesteter (From Sacred Books of the East, American Edition, 1898

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

  • Various authors. "হেলমান্ড রিভার" । এনসাইক্লোপিডিয়া ইরানিকা (অনলাইন সংস্করণ)। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র: কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয় ।
  • ফ্রাই, রিচার্ড এন। (1963)। পারস্যের .তিহ্য । বিশ্ব প্রকাশনা সংস্থা, ক্লেভল্যান্ড, ওহিও। মেন্টর বুক সংস্করণ, 1966।
  • টয়োনবি, আর্নল্ড জে (1961)। অক্সাস এবং জুমনার মধ্যে । লন্ডন। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস
  • ভোগেলসাং, ডাব্লু। (1985)। "দক্ষিণ-পূর্ব আফগানিস্তানের প্রারম্ভিক Araতিহাসিক আরাকোসিয়া; পূর্ব এবং পশ্চিমের মধ্যে সভা-স্থান।" ইরানিকা পুরানো, 20 (1985), পিপি।   55-99।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]