হুইলিং টানেল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হুইলিং টানেল
WB on I-70 at the Wheeling Tunnel.jpg
টানেলের পশ্চিমমুখী প্রবেশপথ
সংক্ষিপ্ত বিবরণ
স্থানহুইলিং,ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া
স্থানাঙ্ক৪০°০৪′২২″ উত্তর ৮০°৪৩′১১″ পশ্চিম / ৪০.০৭২৭১৯২° উত্তর ৮০.৭১৯৬২১° পশ্চিম / 40.0727192; -80.719621 (Wheeling Tunnel)স্থানাঙ্ক: ৪০°০৪′২২″ উত্তর ৮০°৪৩′১১″ পশ্চিম / ৪০.০৭২৭১৯২° উত্তর ৮০.৭১৯৬২১° পশ্চিম / 40.0727192; -80.719621 (Wheeling Tunnel)
পথ/
ক্রিয়াকলাপ
নির্মাণ শুরু২২ আগস্ট ১৯৬৩ (1963-08-22)[১]
উন্মুক্ত কাল৭ ডিসেম্বর ১৯৬৬ (1966-12-07)[২]
চালনাকারীওয়েস্ট ভার্জিনিয়া মহাসড়ক বিভাগ
প্রতিদিন যানবাহন সংখ্যা৫৯,৬০০ (2009 AADT)[৩]
কারিগরী
দৈর্ঘ্য০.২৭ মা (৪৩০ মি)
লেন সংখ্যাপ্রতিটায় ২টি
কার্যকর গতি৪৫ মা/ঘ (৭২ কিমি/ঘ)

হুইলিং টানেল পশ্চিম ভার্জিনিয়া রাজ্যের ওহাইও কাউন্টির হুইলিং শহরের হুইলিং পাহাড়ের ভিতরে অবস্থিত। এটা আসলে একটা টানেল না; জোড়া টানেল। টানেল দুটো লম্বায় ০.২৭ মাইল (৪৩০ মি)। ইন্টারস্টেট ৭০ আর ইউ.এস রুট ২৫০ এর দুটো করে লেন এর ভিতর দিয়ে চলে গেছে। টানেল দুটো বানাতে সময় লেগেছে তিন বছর আর খরচ পড়েছে ৬.৯ মিলিয়ন ডলার। টানেল দুটোর সংস্কারের সময় ভাবা হয়েছিলো ৬ মাস লাগবে। কিন্তু সেবারও ২০০৭ থেক ২০১০ সাল পর্যন্ত পাক্কা তিন বছর লেগে যায় আর খরচ হয় ১৩.৭ মিলিয়ন ডলার।

সংক্ষিপ্ত বর্ণনা[সম্পাদনা]

হুইলিং টানেলজোড়া হুইলিং শহরের মাঝ দিয়ে একই রাস্তা হিসেবে চলে যাওয়া মহাসড়ক ইন্টারস্টেট ৭০ আর ইউ.এস রুট ২৫০ এর এক্সিট ১এ আর এক্সিট ১বি এর মাঝে অবস্থিত। হুইলিং পাহাড়টা কেটে এটা বানানো হয়েছে। প্রতিটায় দুটো করে গাড়ি চলার লেন।[৪] পশ্চিমমুখী এক্সিট এ-এর কাছে টানেল দুটোর মুখ কাছাকাছি তাই যারা এক্সিট ১ এ দিয়ে বের হতে চায় তারা ডান পাশের লেনটা গতি কমাতে বা বাড়াতে ব্যবহার করে। বাম লেন দিয়ে গাড়ি ওভারটেক করা বা লেন পরিবর্তন করা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।[৫]

মালবাহী গাড়িগুলো কয়েকবার দুর্ঘটনা ঘটানোয় স্থানীয় রাজনীতিবিদরা এই টানেলজোড়ায় মালবাহী ট্রাক নিষিদ্ধ কয়ার দাবি জানিয়ে আসছেন। সেটা অনুমোদিত হলে মালবাহী ট্রাক পাশের আই-৪৭০ ব্যবহার করবে।[৬]

নির্মাণ[সম্পাদনা]

টানেল দুটোর ভিতরের দিকটা ঢাকতে প্রায় ১৩,০০০ বর্গ ফিট (১,২০০ বর্গ মি) টাইলস ব্যবহার করা হয়েছে।[২] পুরো টানেল নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৬.৯ মিলিয়ন ডলার (২০১৫ সালে যার মূল্যমান দাঁড়ায় ৪৮ মিলিয়ন ডলার)।[৭] ওয়েস্ট ভার্জিনিয়ার তৎকালীন গভর্নর উইলিয়াম ওয়ালেস ব্যারন এবং রাজ্য সড়কের প্রধান নির্বাহী মিলে ১৯৬৩ সালের ২২ আগস্ট টানেলজোড়ার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। ব্যারন বলেন আন্তঃরাজ্য মহাসড়কগুলোর মধ্যে এটাই সবচে বড় প্রজেক্ট।[১] এটা নির্মাণের ঠিকাদারি পায় মেরিল্যান্ডের বাল্টিমোরের সি. জে ল্যাঙ্গেনফেল্ডার এন্ড সন্স।[৮] ১৯৬৪ সালের দিকে অতিরিক্ত কার্বন মনোক্সাইড গ্যাসের কারণে বেশ কিছু শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়ায় নির্মাণ কাজ বন্ধ থাকে। এরপর সেখানে বায়ু চলাচলের জন্যে পাখা লাগিয়ে দেওয়া হয় আর আবার কাজ শুরু হয়।[৮] ১৯৬৬ সালের ৭ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে টানেলজোড়া যান চলাচলের জন্যে খুলে দেওয়া হয়।[২]

সংস্কার[সম্পাদনা]

আকাশ থেকে হুইলিং পাহাড়ের দৃশ্য

২০০৫ সালে ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া মহাসড়ক পরিদপ্তর টানেলজোড়া সংস্কার করার পরিকল্পনা হাতে নেয়।[৯] কাজ শুরু হয় ২০০৭ এর জানুয়ারিতে। পরিকল্পনা মোতাবেক তিন মাসেই কাজ শেষ হয়ে যাওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু দেখা গেলো এগারো মাস যাওয়ার পরেও পূর্বমুখী টানেলের কাজই শেষ হয়নি।[১০] দেয়ালে টাইলস বসাতে যে আঠা ব্যবহার করা হয়েছিলো সেগুলোতে সমস্যা ছিলো।[১১] টানেলের ভিতরকার নালা গুলোর সমস্যার কারণেও দেরি হতে লাগলো। শ্রমিকেরা টানেলের ভিতরে একটা কয়লা খনি আবিষ্কার করে, তার জন্যেও কাজটায় বিলম্ব হতে থাকে।[১২]

স্থানীয় কর্মকর্তারা এসব ঝামেলার কারণে টানেল দুটো বন্ধ করে দেওয়ার প্রস্তাব দেন। এর বদলে তারা হুইলিং পাহাড়ের উপ দিয়ে একটা রাস্তা বানানোর পরিকল্পনা করেন।[১৩] তবে তার জন্যে পাহাড়ের উপরে বসবাসরত কমপক্ষে ৫০টা পরিবারকে তাদের বসত ভিটা ছাড়তে হতো। এ কারণে ন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন ফর দ্য অ্যাডভান্সমেন্ট অফ কালারড পিপল (NAACP) এই পরিকল্পনার বিরোধিতা করা শুরু করে।[১৪] শেষমেশ রাজ্য সরকার নতুন রাস্তা বানানোর পরিকল্পনা বাদ দেয়। ২০০৮ সালের জুলাইতে আবার পূর্বমুখী টানেলটার কাজ শুরু হয়।[১৫]

তবে পশ্চিমমুখী টানেলটা সংস্কারের জন্য শুধু রাতে বন্ধ রাখা হতো।[১৬] নতুন করে টানেল দুটোয় নিরাপত্তা বেষ্টনী, অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা আর সিকিউরিটি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়। সেই সাথে টানেলগুলোকে একেবারে ঝেড়ে পুছে পরিষ্কার করে ফেলা হয়। রাস্তার উপর আরও এক পরত ঢালাই করা হয়।[১০] আর কোনো কোম্পানী সঠিক সময়ে কাজ সারতে না পারায় এক জার্মান কোম্পানীকে টাইলস বদলানোর দায়িত্ব দেয়া হয়।[২] প্রথমবার নির্মাণের সময় টাইলস বসানোর দায়িত্বে ছিলো ক্লীভল্যান্ডের একটা কোম্পানী। ২০০৮ এর ৩১ অক্টোবর কোম্পানীটা পূর্বমুখী টানেলটায় টাইলস বসানো শেষ করে।[১৭] এরপর ২০১০ সালের ফেব্রুয়ারিতে পশ্চিমমুখী টানেলটাও পুরোপুরি বন্ধ করে কাজ আরম্ভ করা হয়।[১৮] নির্ধারিত সময়ের একমাস আগেই ২০১০ এর সেপ্টেম্বরে এটার সংস্কার শেষ হয়।[১৯] অতিরিক্ত বিলম্বের কারণে মোট খরচের পরিমাণ দাড়ায় ১৩.৭ মিলিয়ন ডলার।[২০]

প্রাথমিক বাজেটের চেয়ে যা প্রায় দ্বিগুণ।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Break Ground for Wheeling Tunnel"The Washington Observer। Washington, Pennsylvania। Associated Press। আগস্ট ২৩, ১৯৬৩। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১ 
  2. Connors, Fred (মার্চ ১২, ২০০৭)। "W.Va. Courts Tile Makers"The Intelligencer & Wheeling News Register। মার্চ ১৯, ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১ 
  3. I70 – Ohio to Pennsylvania (মানচিত্র)। West Virginia Department of Transportation। ২০০৯। নভেম্বর ১, ২০১১ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১ 
  4. গুগল (জানুয়ারি ২৪, ২০১১)। "Wheeling Tunnel" (মানচিত্র)। গুগল মানচিত্র। গুগল। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১ 
  5. গুগল (ফেব্রুয়ারি ২, ২০১১)। "I-70 Westbound at western portal" (মানচিত্র)। গুগল মানচিত্র। গুগল। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ২, ২০১১ 
  6. Cardelli, Renee (আগস্ট ২৮, ২০০৬)। "Local Candidate Pushes For Wheeling Tunnel Safety"। WTOV-TV। ২৩ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১  অজানা প্যারামিটার |coauthors= উপেক্ষা করা হয়েছে (|author= ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে) (সাহায্য)
  7. "Consumer Price Index (estimate) 1800–2008"। Federal Reserve Bank of Minneapolis। আগস্ট ১৩, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১, ২০০৯ 
  8. "Local Man is Among 14 Overcome by Fumes at Wheeling Tunnel Project"The Washington Observer। Washington, Pennsylvania। Associated Press। জুলাই ২৪, ১৯৬৪। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১ 
  9. Echemann, Jerry (ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০০৫)। "Reaction to Wheeling Tunnel Renovations"। West Virginia Media। জুলাই ২৬, ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১, ২০১১ 
  10. Connors, Fred (অক্টোবর ২৭, ২০০৭)। "Ready or Not, Tunnel to Open"The Intelligencer & Wheeling News Register। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১ 
  11. Lash, Cindy (মে ২৭, ২০০৭)। "Sticky problems cause delays in repairs to Wheeling Tunnel"Pittsburgh Post-Gazette। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৯, ২০১১ 
  12. Novotney, Steve (মার্চ ৩০, ২০০৭)। "Wheeling Tunnel Project Faces Delays, Growing Budget"The State Journal। ২১ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ জানুয়ারি ২০১৬ 
  13. Connors, Fred (জানুয়ারি ৬, ২০০৮)। "Tunnel Removal Good Idea, But Not Feasible"The Intelligencer & Wheeling News Register। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১  অজানা প্যারামিটার |coauthors= উপেক্ষা করা হয়েছে (|author= ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে) (সাহায্য)
  14. Connors, Fred (মার্চ ১২, ২০০৮)। "NAACP Takes Issue With Tunnel Cut Plan"The Intelligencer & Wheeling News Register। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১ 
  15. "Motorists Warned to Avoid Wheeling Tunnel"WHSV-TV। জুলাই ২৩, ২০০৮। ৪ ফেব্রুয়ারি ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১ 
  16. "Construction To Resume On Wheeling Tunnel Westbound Lanes"। WOTV-TV। সেপ্টেম্বর ১২, ২০০৮। ২৩ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১ 
  17. Towne, Leigh Ann (অক্টোবর ৩১, ২০০৮)। "Eastbound Tube of Wheeling Tunnel to Open Friday"। West Virginia Media। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১, ২০১১ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  18. Johnson, Jr., J.W. (ফেব্রুয়ারি ২, ২০১০)। "Tube Closed Until October"The Intelligencer & Wheeling News Register। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১ 
  19. "Wheeling Tunnel to open Sept. 2"Charleston Daily Mail। Associated Press। আগস্ট ২৮, ২০১০। ২০ জানুয়ারি ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১ 
  20. "Answer Tunnel Cost Questions"The Intelligencer & Wheeling News Register। জুন ২৬, ২০১০। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০১১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

উইকিমিডিয়া কমন্সে হুইলিং টানেল সম্পর্কিত মিডিয়া দেখুন