হিমছড়ি জাতীয় উদ্যান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
হিমছড়ি জাতীয় উদ্যান
Where hills meet sea.jpg
হিমছড়ি পাহাড়
মানচিত্র হিমছড়ি জাতীয় উদ্যানের অবস্থান দেখাচ্ছে
মানচিত্র হিমছড়ি জাতীয় উদ্যানের অবস্থান দেখাচ্ছে
বাংলাদেশে অবস্থান
অবস্থান কক্সবাজার জেলা, চট্টগ্রাম বিভাগ, বাংলাদেশ
স্থানাঙ্ক ২১°২০′৫৮″ উত্তর ৯২°০২′২৪″ পূর্ব / ২১.৩৪৯৩৯২৯° উত্তর ৯২.০৩৯৮৭৩২° পূর্ব / 21.3493929; 92.0398732স্থানাঙ্ক: ২১°২০′৫৮″ উত্তর ৯২°০২′২৪″ পূর্ব / ২১.৩৪৯৩৯২৯° উত্তর ৯২.০৩৯৮৭৩২° পূর্ব / 21.3493929; 92.0398732
আয়তন ১৭২৯ হেক্টর
স্থাপিত ১৯৮০

হিমছড়ি জাতীয় উদ্যান বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বিভাগের কক্সবাজার জেলার হিমছড়িতে অবস্থিত। উদ্যানটি ১৯৮০ খ্রিস্টাব্দে কক্সবাজার শহর থেকে ১২ কিলোমিটার দূরে ১৭২৯ হেক্টর (১৭.২৯ বর্গ কিলোমিটার) জায়গা জুড়ে প্রতিষ্ঠিত হয়।[১] হিমছড়ি জাতীয় উদ্যান স্থাপনের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে গবেষণা ও শিক্ষণ, পর্যটন ও বিনোদন এবং বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ। হিমছড়ির একপাশে রয়েছে সুবিস্তৃত সমুদ্র সৈকত আর অন্যপাশে রয়েছে সবুজ পাহাড়ের সারি। উদ্যানে অনেকগুলো জলপ্রপাত রয়েছে, যার মধ্যে হিমছড়ি জলপ্রপাতটি সবচেয়ে বিখ্যাত। হিমছড়ি জাতীয় উদ্যান একটি জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র।[২]

জীববৈচিত্র্য[সম্পাদনা]

হিমছড়ি জাতীয় উদ্যান একটি চিরসবুজ ও প্রায়-চিরসবুজ ক্রান্তীয় বৃক্ষের বনাঞ্চল। বনের ১১৭ প্রজাতির উদ্ভিদের মধ্যে ৫৮ প্রজাতির বৃক্ষ,১৫ প্রজাতির গুল্ম , ৪ প্রজাতির তৃণ, ১৯ প্রজাতির লতা এবং ২১ প্রজাতির ভেষজ।[১]

হিমছড়ি বনাঞ্চল হাতির আবাসস্থল বলে ধারনা করা হয়। এছাড়া এ বনে মায়া হরিণ, বন্য শুকরবানর দেখা যায়। এ বনে ৫৫ প্রজাতির স্তন্যপায়ী, ২৮৬ প্রজাতির পাখি, ৫৬ প্রজাতির সরীসৃপ ও ১৬ প্রজাতির উভচর প্রাণী পাওয়া যায়।[১] হিমছড়ি বনাঞ্চল উল্লুকের আবাসস্থল।[৩]

পাখিপ্রেমীদের জন্য হিমছড়ি জাতীয় উদ্যান একটি আদর্শ স্থান। এর ২৮৬ প্রজাতির পাখির মধ্যে ময়না, ফিঙ্গেতাল বাতাসি উল্লেখযোগ্য।[৪]

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. [১], বাংলাদেশ বন অধিদপ্তর, Himchari National Park.
  2. দৈনিক ইত্তেফাকে ৬জুন ২০১৪ প্রকাশিত প্রতিবেদন
  3. [২], অতিবিপন্নের কাতারে উল্লুক, বার্তা২৪.নেট.
  4. [৩], Himchari National Park - A Birdwatcher's Paradise.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]