হিনো কান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হিনো কান
Heino Kuhn 2018.jpg
২০১৮ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে হিনো কান
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামহিনো গান্টার কান
জন্ম (1984-04-01) ১ এপ্রিল ১৯৮৪ (বয়স ৩৮)
পাইত রেটিফ, এমপুমালাঙ্গা, ট্রান্সভাল প্রদেশ
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক-ব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৩৩১)
৬ জুলাই ২০১৭ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট৪ আগস্ট ২০১৭ বনাম ইংল্যান্ড
টি২০আই অভিষেক
(ক্যাপ ৪৩)
১৫ নভেম্বর ২০০৯ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টি২০আই২২ জানুয়ারি ২০১৭ বনাম শ্রীলঙ্কা
টি২০আই শার্ট নং২০
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০৪/০৫ - ২০১৫/১৬নর্দার্নস
২০০৫/০৬ -টাইটান্স
২০১৮ -কেন্ট (জার্সি নং ৪)
২০১৮ - ২০১৯নেলসন ম্যান্ডেলা বে জায়ান্টস
২০১৮/১৯ঢাকা ডায়নামাইটস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট টি২০আই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১৭৫ ১৭৪
রানের সংখ্যা ১১৩ ৪৯ ১১,৪৪২ ৪,৮৫৯
ব্যাটিং গড় ১৪.১২ ১২.২৫ ৪১.০১ ৩৪.৪৬
১০০/৫০ ০/০ ০/০ ২৪/৫৮ ১৩/২২
সর্বোচ্চ রান ৩৪ ২৯ ২৪৪* ১৪১*
বল করেছে
উইকেট
বোলিং গড়
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/– ৫/০ ৩৭৪/১৮ ১৭৯/২২
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

হিনো গান্টার কান (ইংরেজি: Heino Kuhn; জন্ম: ১ এপ্রিল, ১৯৮৪) এমপুমালাঙ্গা পাইত রেটিফ এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ২০০০-এর দশকের শেষদিক থেকে ২০১০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়কাল পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে নর্দার্নস দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষক হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন হিনো কান

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২০০৫ সাল থেকে হিনো কানের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান রয়েছে। ২০০৪-০৫ মৌসুম থেকে টাইটান্সের পক্ষে উইকেট-রক্ষক-ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতে থাকেন। ঐ সময়ে দলের প্রথম পছন্দের উইকেট-রক্ষক ছিলেন তিনি। নিঃসন্দেহে তার ব্যাটিং দলে নিয়মিত খেলোয়াড় হিসেবে থাকতে সহায়তা করে। তিন স্তরের ক্রিকেটেই তিনি চমৎকার খেলেছিলেন। ২০০৬-০৭ মৌসুমে ৪৮.৫০ গড়ে ৭৭৬ রান তুলে সুপারস্পোর্ট সিরিজের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকে পরিণত হন। ডলফিন্সের বিপক্ষে শতরানের ইনিংস খেলে ঐ মৌসুমে দলকে শিরোপা বিজয়ে সহায়তা করেন।

২০১৫-১৬ মৌসুমে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে সহস্রাধিক রান তুলে শীর্ষে পৌঁছেন। পরবর্তী গ্রীষ্মে ব্যাটিংয়ে মনোনিবেশ ঘটানোর স্বার্থে উইকেট-রক্ষকের দায়িত্ব ছেড়ে দেন। ২০১৬-১৭ মৌসুমে যুক্তরাজ্য গমনার্থে দক্ষিণ আফ্রিকার এ দলের সদস্য হিসেবে মনোনীত হন। হ্যাম্পশায়ারের বিপক্ষে দ্বি-শতক ও লায়ন্সের বিপক্ষে শতরান করেন। এ সাফল্যের স্বীকৃতিস্বরূপ দীর্ঘদিন পর জুলাই, ২০১৭ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট দলে খেলার সুযোগ লাভ করেন।

স্বর্ণালী সময়[সম্পাদনা]

উইকেট-রক্ষক-ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনি ২০০৬-০৭ মৌসুমের সুপারস্পোর্ট সিরিজে ৪৮.৫০ গড়ে ৭৭৬ রান সংগ্রহ করেন। ফলশ্রুতিতে, সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকদের তালিকায় তিনি দ্বিতীয় স্থান দখল করেন। এ পর্যায়ে পিটারমারিৎজবার্গে ডলফিন্সের বিপক্ষে ২১৬ রানের ইনিংস খেলেছিলেন তিনি।

২০১৫-১৬ মৌসুমের সানফয়েল সিরিজে ষষ্ঠ দক্ষিণ আফ্রিকান খেলোয়াড় হিসেবে এক মৌসুমে সহস্র রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন।[১] জুলাই, ২০১৬ সালে ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা কর্তৃক মৌসুমের সেরা প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটার ও মৌসুমের সেরা ঘরোয়া খেলোয়াড় হিসেবে মনোনীত হন।[২]

ঘরোয়া ক্রিকেট[সম্পাদনা]

আগস্ট, ২০১৭ সালে টি২০ গ্লোবাল লীগের উদ্বোধনী আসরে নেলসন ম্যান্ডেলা বে স্টার্সের পক্ষে খেলার জন্যে মনোনীত হন।[৩] তবে, ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা কর্তৃপক্ষ শুরুতে ঐ প্রতিযোগিতাটি নভেম্বর, ২০১৮ পর্যন্ত স্থগিত রাখে ও পরবর্তীতে বাতিল করে দেয়।[৪]

জুন, ২০১৮ সালে টাইটান্সের দলের পক্ষে তাকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।[৫] সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সালে আবুধাবি টি২০ ট্রফ খেলার জন্যে তাকে টাইটান্স দলে রাখা হয়।[৬]

অক্টোবর, ২০১৮ সালে মজানসি সুপার লীগ টি২০ প্রতিযোগিতার প্রথম আসরে নেলসন ম্যান্ডেলা বে জায়ান্টসের পক্ষে তাকে রাখা হয়।[৭][৮] সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সালের মজানসি সুপার লীগ প্রতিযোগিতায় নেলসন ম্যান্ডেলা বে জায়ান্টসের পক্ষে তাকে রাখা হয়।[৯]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে চারটিমাত্র টেস্ট ও সাতটিমাত্র টি২০আইয়ে অংশগ্রহণ করেছেন হিনো কান। সবগুলো টেস্টই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলেছিলেন তিনি। ৬ জুলাই, ২০১৭ তারিখে লর্ডসে স্বাগতিক ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ৪ আগস্ট, ২০১৭ তারিখে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি। তাকে কোন ওডিআইয়ে অংশগ্রহণ করার সুযোগ দেয়া হয়নি।

১৫ নভেম্বর, ২০০৯ তারিখে প্রিটোরিয়ার সুপারস্পোর্ট পার্কে তার নিজ মাঠে স্বাগতিক ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে অভিষেক হয়।[১০]

টেস্ট অভিষেক[সম্পাদনা]

২০১৭ সালে ইংল্যান্ড গমনার্থে দক্ষিণ আফ্রিকা দল থেকে আমন্ত্রণ পান। জুন, ২০১৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট দলের সদস্যরূপে তাকেসহ অ্যান্ডিল ফেহলাকওয়াইওকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।[১১] অতঃপর, ৬ জুলাই, ২০১৭ তারিখে লর্ডসে সিরিজের প্রথম টেস্টে তার অভিষেক পর্ব সম্পন্ন হয়।[১২]

দক্ষিণ আফ্রিকায় বারো বছর ঘরোয়া ক্রিকেটে অভিজ্ঞতালব্ধ হিনো কান ইংল্যান্ডের পিচে বেশ হিমশিম খান। চারটি টেস্ট ও সাতটি টি২০আইয়ে অংশ নিয়ে তার আন্তর্জাতিক খেলোয়াড়ী জীবনের সমাপ্তি ঘটে। কোন ক্ষেত্রেই তিনি অর্ধ-শতরান করতে পারেননি।

কাউন্টি ক্রিকেটে অংশগ্রহণ[সম্পাদনা]

২০১৮ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে হিনো কান

মার্চ, ২০১৮ সালে ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে কেন্টের সাথে কোলপ্যাক খেলোয়াড় হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হন। মার্চ, ২০১৮ সালে ভিসা প্রাপ্তিতে কোলপ্যাক নিয়মের আওতায় ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে কেন্টের সাথে চুক্তিতে উপনীত হন।[১৩] ৩৩ বছর বয়সে ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা থেকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তার খেলার সম্ভাবনা ক্ষীণ হবার কথা জানার পর দক্ষিণ আফ্রিকা ছেড়ে কাউন্টি ক্রিকেটের দিকে ধাবিত হন। ২০১৮ সালকে ঘিরে কেন্টের সাথে কোলপ্যাক চুক্তির আওতায় আসেন ও তার খেলোয়াড়ী জীবন আরও দীর্ঘ করার কথা জানান।

১১ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো কেন্ট দলের প্রথম বিভাগে উত্তরণে তিনি বেশ ভূমিকা রাখেন ও রয়্যাল লন্ডন কাপে তার প্রতিদ্বন্দ্বীকে পরাভূত করে। চ্যাম্পিয়নশীপে তিনি একটি শতরান থেকে বঞ্চিত হন। তবে, ৫০-ওভারের ক্রিকেটের পাঁচ ইনিংসের চারটিতে শতক হাঁকিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু, ওরচেস্টারশায়ারের বিপক্ষে ১২৭ করলেও সেমি-ফাইনাল খেলাটিতে তার দল পরাজিত হয়েছিল।

কেন্টের নিয়মিত অধিনায়ক স্যাম বিলিংসজো ডেনলি আইপিএলে ব্যস্ত থাকায় তাকে অন্তর্বর্তীকালীন অধিনায়কের দায়িত্ব দেয়া হয়। তবে, কাঁধের আঘাতে বিলিংসকে মাঠের বাইরে অবস্থান করায় তিনি এ দায়িত্ব সঠিকভাবে পালনে সচেষ্ট হন। এছাড়াও, বিলিংসের টেস্ট দলে ব্যাটিংয়ে মনোনিবেশ ঘটানোয় তিনি এ দায়িত্ব পালনের সময়কাল আরও বৃদ্ধি করেন। দ্বিতীয় বর্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে শতরান না পেলেও পাঁচটি অর্ধ-শতরান করেন। ব্যাট হাতে সাধারণমানের বছর অতিবাহিত করলেও পরপর দুইবার কেন্টের বার্ষিক পুরস্কার পান। সকল স্তরের ক্রিকেটে ২৩ ক্যাচ তালুবন্দী করে বর্ষসেরা ফিল্ডার মনোনীত হন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Titans crowned champions after Richards' seven"ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১৬ 
  2. "Rabada dominates CSA awards"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জুলাই ২০১৬ 
  3. "T20 Global League announces final team squads"T20 Global League। ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ আগস্ট ২০১৭ 
  4. "Cricket South Africa postpones Global T20 league"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১০ অক্টোবর ২০১৭ 
  5. "Multiply Titans Announce Contracts 2018-19"Multiply Titans। ১৬ জুন ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুন ২০১৮ 
  6. "Titans name strong squad for Abu Dhabi T20 league"Sport24। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  7. "Mzansi Super League - full squad lists"Sport24। ২৩ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৮ 
  8. "Mzansi Super League Player Draft: The story so far"Independent Online। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৮ 
  9. "MSL 2.0 announces its T20 squads"Cricket South Africa। ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  10. "Smith And Bosman Star As South Africa Smash 241"। Cricket World। সংগ্রহের তারিখ ১৫ নভেম্বর ২০০৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  11. "Kuhn, Phehlukwayo in South Africa's Test squad"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুন ২০১৭ 
  12. "South Africa tour of England, 1st Test: England v South Africa at Lord's, Jul 6-10, 2017"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুলাই ২০১৭ 
  13. Fordham J (2018) Kent sign South African batsman Heino Kuhn, Kent Online, 2018-03-07. Retrieved 2018-03-07.

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]