হিউ মরিস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হিউ মরিস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামহিউ মরিস
জন্ম (1963-10-05) ৫ অক্টোবর ১৯৬৩ (বয়স ৫৫)
কার্ডিফ, ওয়েলস
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৩১৪
রানের সংখ্যা ১১৫ ১৯৭৮৫
ব্যাটিং গড় ১৯.১৬ ৪০.২৯
১০০/৫০ –/– ৫৩/৯৮
সর্বোচ্চ রান ৪৪ ২৩৩*
বল করেছে ৩৪৮
উইকেট
বোলিং গড় ১৯০.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ১/৬
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩/– ১৯৭/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ১৬ জুলাই ২০১৮

হিউ মরিস (ইংরেজি: Hugh Morris; জন্ম: ৫ অক্টোবর, ১৯৬৩) ওয়েলসের কার্ডিফে জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা সাবেক ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ১৯৯১ সালে স্বল্পকালীন সময়ের জন্য ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের সদস্য ছিলেন তিনি। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে গ্ল্যামারগনের প্রতিনিধিত্ব করাসহ অধিনায়কেরও দায়িত্ব পালন করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ বামহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে মিডিয়াম বোলিংয়ে পারদর্শীতা দেখিয়েছেন তিনি।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

ব্লান্ডেলস স্কুলে অধ্যয়ন করেন। এ সময় সরকারী বিদ্যালয়ের খেলাগুলোয় বেশকিছু ব্যাটিং রেকর্ড গড়েছিলেন। এছাড়াও, অ্যাবেরাভনের পক্ষে রাগবি ইউনিয়নে অংশ নিয়েছেন।

১৯৮৬ সালে মাত্র ২২ বছর বয়সে গ্ল্যামারগনের সর্বকনিষ্ঠ অধিনায়ক হিসেবে মনোনীত হন। তিন বছর দায়িত্ব পালনের পর ব্যাটিংয়ে মনোনিবেশ ঘটানোর লক্ষ্য এ পদ থেকে অব্যহতি নেন। ১৯৯৩ সালে তাঁকে পুণরায় এ দায়িত্বভার অর্পণ করা হয়। টেস্ট দলের জন্য তাঁকে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করা হলেও আর কখনো খেলার জন্য মনোনয়ন দেয়া হয়নি।

১৯৯১ সালে তিনটিমাত্র টেস্ট খেলার সুযোগ পেয়েছেন তিনি। সবগুলোই তৎকালীন বিশ্বক্রিকেটে ত্রাসের রাজত্বকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ছিল। ২৫ জুলাই, ১৯৯১ তারিখে টেস্ট অভিষেক ঘটে হিউ মরিসের। কঠিন পরিস্থিতিতে তাদের পেস আক্রমণ মোকাবেলায় অগ্রসর হন। ১৯.১৬ গড়ে ১১৫ রান তুলতে পেরেছিলেন।

ক্রিকেট সংবাদদাতা কলিন বেটম্যান মরিস সম্পর্কে মূল্যায়ণ করেছেন যে, তিনি প্রতিভাধর হলেও খুব সহজেই বিদায় নিতেন।[১]

অবসর[সম্পাদনা]

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর নেয়ার পর ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডে কারিগরী কোচিং পরিচালক, ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী ও সহকারী প্রধান নির্বাহীর ন্যায় বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে ছিলেন। এরপর আগস্ট, ২০১৩ সালে গ্ল্যামারগনের প্রধান নির্বাহী ও ক্রিকেট পরিচালক পদে নিযুক্তি পান।[২]

ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত হিউ মরিস, ডেব্রা মরিস নাম্নী এক রমণীর পাণিগ্রহণ করেন। তাঁদের সংসারে বেথান মরিস ও এমিলি মরিস নামীয় দুই সন্তান রয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bateman, Colin (১৯৯৩)। If The Cap Fits। Tony Williams Publications। পৃষ্ঠা 121। আইএসবিএন 1-869833-21-X 
  2. "Hugh Morris"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জানুয়ারি ২০১৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]