হাসমিক পাপিয়ান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হাসমিক পাপিয়ান
Hasmik Papian 07.jpg
প্রাথমিক তথ্য
জন্ম(১৯৬১-০৯-০২)২ সেপ্টেম্বর ১৯৬১
উদ্ভবইয়েরেভান, আর্মেনিয়া সোভিয়েত সমাজতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র, সোভিয়েত ইউনিয়ন
ওয়েবসাইটঅফিসিয়াল ওয়েবসাইট

হাসমিক পাপিয়ান (আর্মেনীয়: Հասմիկ Պապյան; জন্ম: ২ সেপ্টেম্বর, ১৯৬১)[১] হচ্ছেন একজন আর্মেনিয়ার গায়িকা। ২০০৪ সালে তিনি "পিউপল'স আর্টিস্ট অফ আর্মেনিয়া" উপাধিতে ভূষিত হয়েছেন। ২০০৫ সালে সেন্ট ইঞ্চিমাদজিন ও অল আর্মেনিয়ান কেরেকিনের ক্যাথলিকস কর্তৃক আর্মেনীয় সংস্কৃতিতে তার অবদানের জন্য সেন্ট সীগ এবং সেন্ট মেসোব এবং অর্ডার অফ সেন্ট মেজরপ মাসশট দ্বারা আর্মেনিয়ার "সাংস্কৃতিক রাষ্ট্রদূত" হিসেবে অভিহিত করা হয়।

"দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট" তাকে "সেরা জীবিত নোর্মা নারী" হিসাবে বর্ণনা করেছে।[২]

জীবনী[সম্পাদনা]

হাসমিক পাপিয়ান ১৯৮১ সালের ২ সেপ্টেম্বর আর্মেনিয়ার ইয়েরেভানে (তখন সোভিয়েত ইউনিয়নের অংশ ছিল) জন্মগ্রহণ করেন। তিনি মাত্র ৫ বছর বয়সে ভায়োলিন বাজানো শুরু করার আগে প্রথমবারের মতো সংগীতের প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করেন। পাপিয়ান ইয়েরেভানের ইয়েরেভান কমিতাস উচ্চ একাডেমী থেকে একটি ভায়োলিন বাদক হিসেবে স্নাতক সম্পন্ন করেন, তারপর একজন গায়িকা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। তার বন্ধুরা তাকে তার কণ্ঠস্বর সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে উৎসাহিত করেছিল এবং কোটিতাসের কণ্ঠ্য বিভাগের প্রধান টাটিভী সোজন্দ্রিয়রন, তার কাছ থেকে কয়েকটি নোটের কথা শুনে হাসমিক পাপিয়ানকে বলেছিলেন যে তাকে গান গাইতে হবে, এবং তিনি বেশ ভালো গান করতে পারবেন।[৩]

আর্মেনিয়ার জাতীয় অপেরাতে তার আত্মপ্রকাশের পর, অপেরা বন এবং জার্মানির ডুসেলডর্ফের ডয়েশের অপারেটিং রেনের মাধ্যমে তিনি অন্যতম একজন শিল্পী হিসেবে আমন্ত্রিত হন। এরপর শীঘ্রই তিনি আন্তর্জাতিকভাবে তার কর্মজীবন শুরু করেন এবং পরে নিউ ইয়র্কের মেট্রোপলিটন অপেরা, কার্নেগী হল, সান ফ্রান্সিসকো অপেরা, ওয়াশিংটন ন্যাশনাল অপেরা, মিলারের লা স্কালার মত বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ অপেরা স্টেজ এবং কনসার্টের ঘরসহ অনেক থিয়েটারে গান পরিবেশন করেছেন। এছাড়াও তিনি প্যারিসের অপেরা ব্যস্তিল, গ্রান থিয়েটার ডেল লেইসু বার্সেলোনা, টাইট্রো রিয়াল মাদ্রিদ, লন্ডনের উইগমোর হল, ভিয়েনার স্টেট অপেরা, কনসার্টবুউয়ের মুসিকভিরিন ভিয়েনা, জুরিখের ডি নেদারল্যান্ডস অপেরা আমস্টারডাম অপেরা এবং সেন্ট পিটার্সবার্গের মারিন্সচি থিয়েটারেও গান পরিবেশন করেছেন।[৪]

তিনি বর্তমানে অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় বসবাস করছেন। তার স্বামী কোন্রাদ কুহন হচ্ছেন হাসমিক পাপিয়ানের জনসংযোগ পরিচালক।[৩] তার একসাথে জুরিচ অপেরা হাউসে কাজ করেন[৫] এবং ২০০১ সালে জন্মগ্রহণকারী তাদের কন্যা সিনারোসহের সাথে ইউরোপের বিভিন্ন থিয়েটারের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।[২][৬] তার স্বামী আর্মেনীয় কবি ইয়েঘিশে চ্যারেন্টস দ্বারা নির্বাচিত কবিতা জার্মান ভাষায় অনুবাদ করে একটি বই লিখেছেন।[৩] হাসমিক পাপিয়ান ইয়েরেভানকে তার "প্রিয় শহর" বলে আখ্যায়িত করেছেন এবং বলেছেন, "আমি আর্মেনিয়াকে একেবারে ছেড়ে যাচ্ছি না, আমি প্রায়ই একটি ব্যবসা ভ্রমণ হিসেবে বিভিন্ন স্থানে যাই, কিন্তু আমার দেশের কথা আমি কখনো ভুলি না।" তিনি প্রতি বছর তার দেশ ভ্রমণ করেন। তিনি আরো জানান যে, তার কর্মজীবনের শেষে তিনি আর্মেনিয়াতে বসবাস করবেন।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ՀԱՍՄԻԿ ՊԱՊՅԱՆ (Armenian)
  2. Joy, Negar (২০০৩)। "Diva with a Heart Supports Women in Armenia" (PDF)। Washington, D.C.: Armenian American Cultural Association। ২৯ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  3. Avanesian, Tenny (১০ মে ২০০৮)। "Soprano Hasmik Papian reigns supreme" (PDF)Armenian Reporter। Washington, D.C.। ২২ ডিসেম্বর ২০১০ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  4. "Papian biography"। ২৯ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ নভেম্বর ২০১৭ 
  5. "Hasmik Papian hones Vancouver Opera's high priestess, Norma"। Straight.com। ২৫ নভেম্বর ২০০৯। ২৯ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  6. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; MS নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]