হারুনুর রশীদ (ক্রিকেটার)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হারুনুর রশীদ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামমাসুদ লিটন রকি
জন্ম৩০ নভেম্বর, ১৯৬৮
ঢাকা, বাংলাদেশ
ডাকনামলিটন
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনলেগ ব্রেক
ভূমিকাব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ১৫)
২৭ অক্টোবর ১৯৮৮ বনাম ভারত
শেষ ওডিআই২ নভেম্বর ১৯৮৮ বনাম শ্রীলঙ্কা
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১৩
রানের সংখ্যা ২৩৬ ১৬৫
ব্যাটিং গড় ১৪.৭৫ ১৩.৭৫
১০০/৫০ -/- -/১ -/১
সর্বোচ্চ রান ৬৬ ৭৫
বল করেছে
উইকেট
বোলিং গড়
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং -/- ৮/- ৬/১
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

মাসুদ লিটন রকি (জন্ম: ৩০ নভেম্বর, ১৯৬৮) ঢাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক বাংলাদেশী আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও লেগ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শীতা দেখিয়েছেন হারুনুর রশীদ

১৯৮৮ সালে দুইটি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণের সুযোগ হয় তার। ১৯৮৮ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। উভয় খেলাতেই ব্যাট হাতে ব্যর্থ হন। ভারত[১] ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শূন্য রানে ফেরৎ যান তিনি।[২]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৮৯-৯০ মৌসুমে ব্যাট হাতে বেশ সফলতা পান। নোয়াখালীতে অনুষ্ঠিত সফরকারী ডেকান ব্লুজের বিপক্ষে মনোরম ১৩৪ রানের ইনিংস খেলেন। আবাহনী ক্রীড়া চক্রের সদস্যরূপে অধিনায়ক গাজী আশরাফের সাথে দ্বিতীয় উইকেটে ৮৬ রানের জুটি গড়েন। এর পরদিনই বিসিসিবি (সাদা) দলের সদস্যরূপে একই দলের বিপক্ষে ৫০ রান তুলেন। উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান জাহিদ রাজ্জাকের সাথে প্রথম উইকেটে ১০৫ রান তুলেন।

ঘরোয়া ক্রিকেটে সফলতা লাভের প্রেক্ষিতে ১৯৯০ সালের আইসিসি ট্রফিতে খেলার সুযোগ পান হারুনুর রশীদ। ফিজি ও ডেনমার্কের বিপক্ষে যথাক্রমে ১০ ও ৬ রান তুলেন।[৩] ফেব্রুয়ারি, ১৯৯২ সালে সফরকারী পশ্চিমবাংলা দলের বিপক্ষে ৪০ রান তুলেন। এ সময়ে জাহাঙ্গীর আলমের সাথে উদ্বোধনী জুটিতে ৯০ রান সংগ্রহ করেন। এক বছর পর করাচী জিমখানার বিপক্ষে ৪৫ রান তুলেছিলেন। কয়েক বছর জাতীয় দল থেকে উপেক্ষিত থাকার পর সেপ্টেম্বর, ১৯৯৬ সালে মালয়েশিয়ায় এসিসি ট্রফি খেলতে যান তিনি। গ্রুপ পর্বের খেলায় ব্রুনেইয়ের বিপক্ষে অপরাজিত ৬৬ রান তুলে দলের শীর্ষ রান সংগ্রহকারীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হন তিনি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Cricinfo Scorecard:Bangladesh v India (27 October 1988). (retrieved on 25 December 2007).
  2. Cricinfo Scorecard: Bangladesh v Sri Lanka (2 November 1988). (Retrieved on 25 December 2007).
  3. Hasan Babli. "Antorjartik Crickete Bangladesh". Khelar Bhuban Prakashani, November 1994.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]