হাতাহাতি লড়াই

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
প্রাচীন গ্রিক মল্লক্রীড়াবিদের হাতাহাতি লড়াইয়ের উদ্গত রোমান শিল্পকর্ম (খ্রিস্টীয় ২য় বা ৩য় শতক)

হাতাহাতি লড়াই দুই বা ততোধিক ব্যক্তির মধ্যে হাতের (বা হাতে ধরা অস্ত্রের) নাগালের মধ্যে আঁকড়ে ধরার যায়, এমন স্বল্প পাল্লার দূরত্বে শারীরিক লড়াইকে বোঝায়।[১] হাতাহাতি লড়াইয়ে অস্ত্রের ব্যবহার হতে পারে। হাতাহাতি লড়াইয়ের অস্ত্র হিসেবে ছুরি, তরবারি, গদা বা মুগুর, বর্শা বা বল্লম, কুঠার বা যেকোনও ধরনের তাৎক্ষণিকভাবে উদ্ভাবিত অস্ত্র যেমন রান্নার উপকরণ, খননের উপকরণ, খেলার উপকরণ বা সরঞ্জাম, ইত্যাদি ব্যবহার করা হতে পারে।[১] যদিও হাতাহাতি লড়াই মূলত যুদ্ধক্ষেত্রে সামরিক যোদ্ধাদের মধ্যকার এক ধরনের লড়াই নির্দেশ করে, তবে দুই বা ততোধিক ব্যক্তির মধ্যে, যেমন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তা, বেসামরিক ব্যক্তি, অপরাধী, ইত্যাদির মধ্যে যেকোনও ব্যক্তি পর্যায়ের শারীরিক লড়াইকেও হাতাহাতি লড়াই বলা হতে পারে।[১]

আঁকড়ানোর দূরত্ব থেকে সামান্য দূরে অবস্থিত পাল্লায় থেকে করা লড়াইকে সাধারণত স্বল্প পাল্লার লড়াই (close combat বা close-quarters combat) বলা হয়। স্বল্প পাল্লার লড়াইয়ে প্রাণঘাতী ও প্রাণঘাতী নয় এমন অস্ত্র ও লড়াইয়ের পদ্ধতি ব্যবহার করা হতে পারে, যা বেসামরিক আইন, সামরিক লড়াইয়ের নিয়মাবলি কিংবা নৈতিক নিয়মাবলির উপর নির্ভর করে। যেসব স্বল্প পাল্লার লড়াইয়ে সামরিক যোদ্ধারা আগ্নেয়াস্ত্র ও অন্যান্য দূরপাল্লার অস্ত্র কৌশলগত স্তরে ব্যবহার করে, সেগুলিকে সমসাময়িক কথোপকথনে স্বল্প পরিসরের লড়াই (close quarter battle) বলা হয়।

মার্কিন সেনাবাহিনী হাতাহাতি লড়াইয়ের প্রশিক্ষণে ব্যবহৃত বিভিন্ন সামরিক লড়াইয়ের পদ্ধতিকে কমব্যাটিভ পরিভাষাটি দিয়ে নির্দেশ করতে পারে, যে পদ্ধতিগুলিতে বিভিন্ন ধরনের সমরকলালড়াই ক্রীড়া থেকে ক্রিয়াকৌশল যুক্ত করা হতে পারে।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Hunsicker, A., Advanced Skills in Executive Protection, Boca Raton FL: Universal Publishers, আইএসবিএন ১-৫৯৯৪২-৮৪৯-০, আইএসবিএন ৯৭৮-১-৫৯৯৪২-৮৪৯-৯, p. 51

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]