হাকিম হাফিজ আব্দুল মজিদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হাকিম

আব্দুল মজিদ
স্থানীয় নাম
হাফিজ আব্দুল মজিদ
জন্ম১৮৮৩
মৃত্যু২২ মার্চ ১৯২২(1922-03-22) (বয়স ৩৯)
নাগরিকত্ব ব্রিটিশ ভারত
পেশাচিকিৎসক
কার্যকাল১৯০৬-১৯২২
পরিচিতির কারণহামদর্দ কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা
পিতা-মাতাশেখ রহিম বকশ

হাকিম হাফিজ আব্দুল মজিদ (১৮৮১ - ২২ মার্চ ১৯২২) ছিলেন ব্রিটিশ ভারতের একজন ইউনানি চিকিৎসক এবং ভারত উপমহাদেশের ঔষধ কোম্পানি হামদর্দ এর প্রতিষ্ঠাতা।

তিনি ইসলাম ধর্মের পবিত্র গ্রন্থ আল কোরআন সম্পূর্ণ মুখস্ত করে হিফজ বা হাফেজ হন। এছাড়াও তিনি উর্দুফারসি ভাষায় পাণ্ডিত্য লাভ করেন। [১]

চিকিৎসক জীবন[সম্পাদনা]

হাকিম হাফিজ আব্দুল মজিদ পবিত্র কোরআন, উর্দু ও ফারসি ভাষায় পাণ্ডিত্য লাভ করার পর ইউনানি চিকিৎসায় সর্বোচ্চ ডিগ্রি অর্জন করেন। ইউনানি চিকিৎসায় ডিগ্রি অর্জনের পর তিনি হাকিম জামাল খান এর সাথে যোগাযোগ করে একটি হারবাল প্রতিষ্ঠান খোলার ইচ্ছে প্রকাশ করেন। তিনি সহজেই যেকোনো ঔষধি গাছ চিহ্নিত করায় অধিক অভিজ্ঞ বা পণ্ডিত ছিলেন। তিনি তার সহধর্মীনির সাথে পরামর্শ করে ১৯০৬ সালের ১লা আগস্ট ভারতের পুরাতন দিল্লিতে কাজী হাউজে হামর্দদ নামে একটি হার্বালের দোকান খোলেন। কিছুদিন পর তিনি বিভিন্ন ধরনের হার্বাল ঔষধ আবিস্কার করতে থাকেন। তিনি হামদর্দ এর বহুল জনপ্রিয় শরবত রূহ আফজা ১৯০৭ সালে আবিস্কার করেন। ১৯২০ সাল নাগাদ এটি ছোট্ট একটি হার্বাল দোকান থেকে বড় পরিসরে ঔষুধ উৎপাদনের প্রতিষ্ঠানে রুপ নেয়। তার বিখ্যাত কিছু ঔষুধ হচ্ছে সাফি, শরবত রূহ আফজা, সিনকারা, রোগান বাদাম শিরিন এবং পাচনল।

সমাজসেবামূলক কাজ[সম্পাদনা]

তিনি তার মৃত্যুর আগে তার স্ত্রী এবং সন্তানদেরকে হামদর্দ কোম্পানি ওয়াকফ করার জন্য বলে যান। তার কথামত ১৯৪৮ সালে তার বংশধররা হামর্দদ কোম্পানিকে ওয়াকফ করেন। যা এখন একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

এই ইউনানি চিকিৎসক মাত্র ৪০ বছর বয়সে ১৯২২ সালের ২২ মার্চ মৃত্যুবরণ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]